বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:০৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, January 18, 2017 7:22 am
A- A A+ Print

অগ্রণী ব্যাংকের অর্থ আত্মসাতের মামলায় ৯ আসামির কারাদণ্ড

1

জালিয়াতির মাধ্যমে অগ্রণী ব্যাংকের পৌনে ১ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলার রায়ে ছয় ব্যবসায়ীসহ ৯ জনকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। ২৮ বছর আগে করা মামলায় চট্টগ্রামের আদালত তাদের প্রত্যেককে ৮ লাখ ৩৯ হাজার ৭০০ টাকা করে অর্থদণ্ড অন্যথায় প্রত্যেককে আরো ৬ মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। মঙ্গলবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ মীর রহুল আমিন ওই রায়ে দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাস দিয়েছেন। আদালতের পিপি অ্যাড. মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯, ১০৯ এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা দায়ের হয়েছিল। এর মধ্যে ৪০৯ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের সাজা দিয়েছেন আদালত’। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, অগ্রণী ব্যাংকের খাতুনগঞ্জ শাখার প্রাক্তন ব্যবস্থাপক আনসারুল হক, প্রাক্তন ক্যাশ ইনচার্জ আব্দুস শুক্কুর ও ক্যাশিয়ার মঈনউদ্দিন চৌধুরী এবং খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ী স্বপন কুমার ঘোষ, নূর ট্রেডার্সের মালিক আব্দুন নূর, মেসার্স আলম ব্রাদার্স এন্ড কোম্পানির মালিক জামাল উদ্দিন, মেসার্স পারভিন অটোমোবাইলসের মালিক কোরবান আলী, আজিজ এন্ড ব্রাদার্সের মালিক আজিজুর রহমান এবং রহমান এন্ড কোম্পানির মালিক শহীদুল আমান। এই মামলায় খালাস প্রপ্ত দুজন হলেন, অগ্রণী ব্যাংকের খাতুনগঞ্জ শাখার বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের প্রাক্তন ইনচার্জ ইছহাক চৌধুরী এবং খাতুনগঞ্জের হোসেন এন্ড ব্রাদার্সের মোহাম্মদ হোসেন। দণ্ডিত ও খালাস পাওয়া ১১ আসামির মধ্যে শুধুমাত্র ইছহাক চৌধুরী আদালতে হাজির ছিলেন। বাকি ১০ আসামির সবাই পলাতক আছেন। মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, আসামিরা পরস্পরের যোগসাজশে নূর ট্রেডার্সের নামে সিআই শিট আমদানির ভূয়া ঋণপত্র খুলে ৭০ লাখ ৪০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ করেন। ১৯৮৮ সালের ১৩ অক্টোবর দুর্নীতি দমন ব্যুরোর তৎকালীন পরিদর্শক আবু মো.আরিফ সিদ্দিকী বাদি হয়ে কোতয়ালি থানায় ৭৫ লাখ ৫৭ হাজার ৩১৮ টাকা ব্যাংকের ক্ষতিসাধনের একটি মামলা দায়ের করেন। ১৯৯৫ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।
 

Comments

Comments!

 অগ্রণী ব্যাংকের অর্থ আত্মসাতের মামলায় ৯ আসামির কারাদণ্ডAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

অগ্রণী ব্যাংকের অর্থ আত্মসাতের মামলায় ৯ আসামির কারাদণ্ড

Wednesday, January 18, 2017 7:22 am
1

জালিয়াতির মাধ্যমে অগ্রণী ব্যাংকের পৌনে ১ কোটি টাকা আত্মসাতের মামলার রায়ে ছয় ব্যবসায়ীসহ ৯ জনকে পাঁচ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

২৮ বছর আগে করা মামলায় চট্টগ্রামের আদালত তাদের প্রত্যেককে ৮ লাখ ৩৯ হাজার ৭০০ টাকা করে অর্থদণ্ড অন্যথায় প্রত্যেককে আরো ৬ মাসের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে।

মঙ্গলবার চট্টগ্রাম বিভাগীয় বিশেষ জজ মীর রহুল আমিন ওই রায়ে দুজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাদের বেকসুর খালাস দিয়েছেন।

আদালতের পিপি অ্যাড. মেজবাহ উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ‘আসামিদের বিরুদ্ধে দণ্ডবিধির ৪০৯, ১০৯ এবং দুর্নীতি প্রতিরোধ আইনের ৫(২) ধারায় মামলা দায়ের হয়েছিল। এর মধ্যে ৪০৯ ধারায় আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তাদের সাজা দিয়েছেন আদালত’।

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন, অগ্রণী ব্যাংকের খাতুনগঞ্জ শাখার প্রাক্তন ব্যবস্থাপক আনসারুল হক, প্রাক্তন ক্যাশ ইনচার্জ আব্দুস শুক্কুর ও ক্যাশিয়ার মঈনউদ্দিন চৌধুরী এবং খাতুনগঞ্জের ব্যবসায়ী স্বপন কুমার ঘোষ, নূর ট্রেডার্সের মালিক আব্দুন নূর, মেসার্স আলম ব্রাদার্স এন্ড কোম্পানির মালিক জামাল উদ্দিন, মেসার্স পারভিন অটোমোবাইলসের মালিক কোরবান আলী, আজিজ এন্ড ব্রাদার্সের মালিক আজিজুর রহমান এবং রহমান এন্ড কোম্পানির মালিক শহীদুল আমান।

এই মামলায় খালাস প্রপ্ত দুজন হলেন, অগ্রণী ব্যাংকের খাতুনগঞ্জ শাখার বৈদেশিক বাণিজ্য বিভাগের প্রাক্তন ইনচার্জ ইছহাক চৌধুরী এবং খাতুনগঞ্জের হোসেন এন্ড ব্রাদার্সের মোহাম্মদ হোসেন।

দণ্ডিত ও খালাস পাওয়া ১১ আসামির মধ্যে শুধুমাত্র ইছহাক চৌধুরী আদালতে হাজির ছিলেন। বাকি ১০ আসামির সবাই পলাতক আছেন।

মামলার বিবরণ থেকে জানা যায়, আসামিরা পরস্পরের যোগসাজশে নূর ট্রেডার্সের নামে সিআই শিট আমদানির ভূয়া ঋণপত্র খুলে ৭০ লাখ ৪০ হাজার টাকা ঋণ নিয়ে আত্মসাৎ করেন। ১৯৮৮ সালের ১৩ অক্টোবর দুর্নীতি দমন ব্যুরোর তৎকালীন পরিদর্শক আবু মো.আরিফ সিদ্দিকী বাদি হয়ে কোতয়ালি থানায় ৭৫ লাখ ৫৭ হাজার ৩১৮ টাকা ব্যাংকের ক্ষতিসাধনের একটি মামলা দায়ের করেন।

১৯৯৫ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর আসামিদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X