শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 1, 2016 11:09 pm
A- A A+ Print

অর্পিত সম্পত্তি নিয়ে সরকারের তালিকা বৈধ : হাইকোর্ট

court11480600101

২০০১ সালের অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পণ আইন অনুযায়ী ‘ক’ তফসিলভুক্ত ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর ঘোষিত অর্পিত সম্পত্তির তালিকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিট সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট। এই রায়ের ফলে সরকার কর্তৃক প্রণীত তালিকা বৈধ বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা। বৃহস্পতিবার বিচারপতি তারিক-উল হাকিম ও বিচারপতি এম ফারুকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন। রায় ঘোষণার সময় আদালতে রিট আবেদনকারী অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এআরএম হাসানুজ্জামান উজ্জ্বল উপস্থিত ছিলেন। পরে সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এআরএম হাসানুজ্জামান রাইজিংবিডিকে বলেন, আদালত রায়ে বলেছেন আবেদনকারীদের আবেদনের অধিকার (লোকাস স্টান্ডি) নেই। তিনি বলেন, আদালত বলেছেন, সংক্ষুব্ধ কোনো ব্যক্তি তার সম্পত্তির জন্য সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে যেতে পারবেন। র আগে ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর যে সম্পত্তিগুলো ২০০১ সালের আইনের অধীনে ‘ক’ তফসিলভুক্ত হয়েছে, সেই তালিকা বাতিলের আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।   রিট আবেদন দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান।   রিট আবেদনে বলা হয়, ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর রুজুকৃত ভিপি বা ইপি কেইস অর্পিত সম্পত্তির ‘ক’ তফসিলভুক্ত তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা ঠিক হয়নি। এটা শুরু থেকেই বেআইনি ও ক্ষমতাবহির্ভূত। এই বেআইনি তালিকা বাতিল করা ছাড়া অন্য কোনো পথ খোলা নেই। এটি বাতিল করা না হলে সংশ্লিষ্ট জনগণ হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পাবে না।   এআরএম হাসানুজ্জামান বলেন, এই রিট আবেদনের ওপর ৫/৬ কার্যদিবস শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত আজ উপরোক্ত রায় দেন।   প্রসঙ্গত, সরকার দুটি ‘ক্যাটাগরিতে’ অর্পিত সম্পত্তির তালিকা করেছে, যার মধ্যে ‘ক’ তালিকাভুক্ত সম্পত্তি সরকারের দখলে রয়েছে বা ইজারা দেওয়া হয়েছে। আর ‘খ’ তালিকার সম্পত্তি সরকারের দখলে বা ইজারায় নেই।

Comments

Comments!

 অর্পিত সম্পত্তি নিয়ে সরকারের তালিকা বৈধ : হাইকোর্টAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

অর্পিত সম্পত্তি নিয়ে সরকারের তালিকা বৈধ : হাইকোর্ট

Thursday, December 1, 2016 11:09 pm
court11480600101

২০০১ সালের অর্পিত সম্পত্তি প্রত্যার্পণ আইন অনুযায়ী ‘ক’ তফসিলভুক্ত ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর ঘোষিত অর্পিত সম্পত্তির তালিকার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে দায়ের করা রিট সরাসরি খারিজ করে দিয়েছেন হাইকোর্ট।

এই রায়ের ফলে সরকার কর্তৃক প্রণীত তালিকা বৈধ বলে জানিয়েছেন আইনজীবীরা।

বৃহস্পতিবার বিচারপতি তারিক-উল হাকিম ও বিচারপতি এম ফারুকের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

রায় ঘোষণার সময় আদালতে রিট আবেদনকারী অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান এবং রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমাতুল করিম ও সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এআরএম হাসানুজ্জামান উজ্জ্বল উপস্থিত ছিলেন।

পরে সহকারী অ্যাটর্নি জেনারেল এআরএম হাসানুজ্জামান রাইজিংবিডিকে বলেন, আদালত রায়ে বলেছেন আবেদনকারীদের আবেদনের অধিকার (লোকাস স্টান্ডি) নেই।

তিনি বলেন, আদালত বলেছেন, সংক্ষুব্ধ কোনো ব্যক্তি তার সম্পত্তির জন্য সংশ্লিষ্ট ট্রাইব্যুনালে যেতে পারবেন।

র আগে ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর যে সম্পত্তিগুলো ২০০১ সালের আইনের অধীনে ‘ক’ তফসিলভুক্ত হয়েছে, সেই তালিকা বাতিলের আবেদন জানিয়ে হাইকোর্টে রিট দায়ের করা হয়।

 

রিট আবেদন দায়ের করেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট খলিলুর রহমান।

 

রিট আবেদনে বলা হয়, ১৯৭৪ সালের ২৩ মার্চের পর রুজুকৃত ভিপি বা ইপি কেইস অর্পিত সম্পত্তির ‘ক’ তফসিলভুক্ত তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করা ঠিক হয়নি। এটা শুরু থেকেই বেআইনি ও ক্ষমতাবহির্ভূত। এই বেআইনি তালিকা বাতিল করা ছাড়া অন্য কোনো পথ খোলা নেই। এটি বাতিল করা না হলে সংশ্লিষ্ট জনগণ হয়রানির হাত থেকে রক্ষা পাবে না।

 

এআরএম হাসানুজ্জামান বলেন, এই রিট আবেদনের ওপর ৫/৬ কার্যদিবস শুনানি হয়। শুনানি শেষে আদালত আজ উপরোক্ত রায় দেন।

 

প্রসঙ্গত, সরকার দুটি ‘ক্যাটাগরিতে’ অর্পিত সম্পত্তির তালিকা করেছে, যার মধ্যে ‘ক’ তালিকাভুক্ত সম্পত্তি সরকারের দখলে রয়েছে বা ইজারা দেওয়া হয়েছে। আর ‘খ’ তালিকার সম্পত্তি সরকারের দখলে বা ইজারায় নেই।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X