সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৫৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, July 31, 2016 12:06 pm
A- A A+ Print

আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন দুপুরে

Agartala_Railway1469943335

বাংলাদেশের আখাউড়া ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার মধ্যে রেললাইনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হচ্ছে আজ ভারতের সময় দুপুর ১২টায় (বাংলাদেশ সময় সাড়ে ১২টা)।
  ত্রিপুরায় বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভাকর প্রভু যৌথভাবে এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।   ভারতের অর্থায়নে এই রেললাইনটি নির্মিত হবে। এর মাধ্যমে ৬৯ বছর পর আন্তর্জাতিক রুট হিসেবে নির্মাণ হচ্ছে আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ। আগরতলায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।   বাংলাদেশ রেলওয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. শরিফুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।   তিনি জানান, ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে আজ রোববার সকাল ৭টায় বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক ত্রিপুরার উদ্দেশে যাত্রা করেছেন। তার সঙ্গে রয়েছেন রেলসচিব ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন, রেলমন্ত্রীর পিএস ও এপিএস।   ভিত্তিপ্রস্তরের ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু ও ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।   ভারতের রেল মন্ত্রণালয় থেকে তহবিল পাওয়ার পর এরই মধ্যে আগরতলা-আখাউড়ার মধ্যে রেল যোগাযোগের জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়েছে। ২০১৭ সালের মধ্যে ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের কাজ শেষ হবে। এ রেলপথের মাত্র ৫ কিলোমিটার ভারতের ত্রিপুরা অংশে, বাকি ১০ কিলোমিটারই বাংলাদেশে। ভারতীয় রেলপথকে বাংলাদেশের রেলপথের সঙ্গে সংযুক্ত করবে এ আখাউড়া-আগরতরা রেল যোগাযোগ।   ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, এতে দুই দেশের মধ্যে, বিশেষ করে ভারতের অবহেলিত উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারিত হবে।   আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ পুরো অংশ নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৮০ কোটি রুপি। এর মধ্যে ভারতের ৫ কিলোমিটার অংশের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৮০ কোটি রুপি। বাংলাদেশ অংশের জমি অধিগ্রহণ, পুনর্বাসন ও অন্যান্য রাজস্ব খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৭ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর ১০ কিলোমিটার মিশ্র গেজ (একই সঙ্গে মিটার ও ব্রডগেজে) রেলপথ নির্মাণে ৪২০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা, যা অনুদান হিসেবে দেবে ভারত।   বাংলাদেশের দিকে প্রথম স্টেশন হবে গঙ্গাসাগর। গঙ্গাসাগর থেকে আখাউড়ার মধ্যে বর্তমান স্টেশনের পাশ দিয়ে তৈরি হবে নতুন রেললাইন। আগরতলা রেলওয়ে স্টেশন থেকে বের হয়ে নিশ্চিন্তপুর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকবে এ রেলপথ।    

Comments

Comments!

 আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন দুপুরেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন দুপুরে

Sunday, July 31, 2016 12:06 pm
Agartala_Railway1469943335

বাংলাদেশের আখাউড়া ও ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের আগরতলার মধ্যে রেললাইনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন হচ্ছে আজ ভারতের সময় দুপুর ১২টায় (বাংলাদেশ সময় সাড়ে ১২টা)।

 

ত্রিপুরায় বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক ও ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভাকর প্রভু যৌথভাবে এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন।

 

ভারতের অর্থায়নে এই রেললাইনটি নির্মিত হবে। এর মাধ্যমে ৬৯ বছর পর আন্তর্জাতিক রুট হিসেবে নির্মাণ হচ্ছে আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ। আগরতলায় ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপনের ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক।

 

বাংলাদেশ রেলওয়ের সিনিয়র তথ্য কর্মকর্তা মো. শরিফুল আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

 

তিনি জানান, ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করতে আজ রোববার সকাল ৭টায় বাংলাদেশের রেলমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক ত্রিপুরার উদ্দেশে যাত্রা করেছেন। তার সঙ্গে রয়েছেন রেলসচিব ফিরোজ সালাহ উদ্দিন, রেলওয়ের মহাপরিচালক আমজাদ হোসেন, রেলমন্ত্রীর পিএস ও এপিএস।

 

ভিত্তিপ্রস্তরের ওই অনুষ্ঠানে থাকবেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার, ভারতের কেন্দ্রীয় রেলমন্ত্রী সুরেশ প্রভু ও ঢাকায় ভারতীয় হাইকমিশনার হর্ষবর্ধন শ্রিংলা।

 

ভারতের রেল মন্ত্রণালয় থেকে তহবিল পাওয়ার পর এরই মধ্যে আগরতলা-আখাউড়ার মধ্যে রেল যোগাযোগের জমি অধিগ্রহণের কাজ শুরু হয়েছে। ২০১৭ সালের মধ্যে ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ আখাউড়া-আগরতলা রেলপথের কাজ শেষ হবে। এ রেলপথের মাত্র ৫ কিলোমিটার ভারতের ত্রিপুরা অংশে, বাকি ১০ কিলোমিটারই বাংলাদেশে। ভারতীয় রেলপথকে বাংলাদেশের রেলপথের সঙ্গে সংযুক্ত করবে এ আখাউড়া-আগরতরা রেল যোগাযোগ।

 

ভারতীয় সংবাদমাধ্যমে বলা হয়, এতে দুই দেশের মধ্যে, বিশেষ করে ভারতের অবহেলিত উত্তর-পূর্বাঞ্চলের রাজ্যগুলোর সঙ্গে বাংলাদেশের বাণিজ্য সম্প্রসারিত হবে।

 

আখাউড়া-আগরতলা রেলপথ পুরো অংশ নির্মাণে ব্যয় ধরা হয়েছে ৯৮০ কোটি রুপি। এর মধ্যে ভারতের ৫ কিলোমিটার অংশের জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৮০ কোটি রুপি। বাংলাদেশ অংশের জমি অধিগ্রহণ, পুনর্বাসন ও অন্যান্য রাজস্ব খাতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৫৭ কোটি ৫ লাখ টাকা। আর ১০ কিলোমিটার মিশ্র গেজ (একই সঙ্গে মিটার ও ব্রডগেজে) রেলপথ নির্মাণে ৪২০ কোটি ৭৬ লাখ টাকা, যা অনুদান হিসেবে দেবে ভারত।

 

বাংলাদেশের দিকে প্রথম স্টেশন হবে গঙ্গাসাগর। গঙ্গাসাগর থেকে আখাউড়ার মধ্যে বর্তমান স্টেশনের পাশ দিয়ে তৈরি হবে নতুন রেললাইন। আগরতলা রেলওয়ে স্টেশন থেকে বের হয়ে নিশ্চিন্তপুর সীমান্ত দিয়ে বাংলাদেশে ঢুকবে এ রেলপথ।

 

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X