সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:৫৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, January 29, 2017 3:53 pm
A- A A+ Print

আঙ্কারায় এরদোগান-মে বৈঠক : তুর্কি যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়নে প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সম্মত ব্রিটেন

22

আঙ্কারা: তুর্কি বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়নে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডের একটি প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সম্মত হয়েছে ব্রিটেন। আঙ্কারায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে এ ঘোষণা দেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে। মে বলেন, ‘এই প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে আরো একবার প্রমাণ হলো ব্রিটেন বিশ্বব্যাপী একটি বনিকের জাতি।’ তিনি বলেন, ‘যুক্তরাজ্য তুরস্কের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক উন্নত করতে আগ্রহী এবং প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান জানিয়েছেন তার দেশ ব্রিটেনের সঙ্গে বছরে ২০ বিলিয়ন ডলার পর্যন্ত বাণিজ্য বৃদ্ধি করবে।’ ব্রিটিশ এয়ারক্রাফট ও তুরস্কের অ্যারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে এ প্রতিরক্ষা চুক্তির উদ্দেশ্য হচ্ছে তুর্কি যুদ্ধবিমানকে আরো আধুনিকায়ন করা। চুক্তির ঘোষণায় বলা হয়েছে, এই চুক্তির মাধ্যমে একটি গভীর প্রতিরক্ষা অংশীদারিত্বের পথকে আরো সুগম করবে। মে বলেন, ‘এটা তুরস্কের সঙ্গে একটি নতুন ও গভীর বাণিজ্যিক সম্পর্কের সূচনা করল এবং ব্রিটিশ ও তুর্কির নিরাপত্তাকে সমৃদ্ধি করবে।’ ব্রিটিশ এয়ারক্রাফটের প্রধান নির্বাহী ইয়ান কিং বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে তুরস্ক ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে সম্পর্ক আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল।’ তুরস্কে বিবিসির সংবাদদাতা মার্ক লোয়েন জানান, শীর্ষ বাণিজ্য এজেন্ডার সঙ্গে এই প্রতিরক্ষা চুক্তি ব্রেক্সিট পরবর্তী ব্রিটেনের দ্বিপাক্ষিক আলোচনার একটি অর্জন হিসেবে থেরেসা মে এটিকে স্বাগত জানিয়েছেন। তার সরকার আরো বড় অর্থনীতির দেশের সঙ্গে ব্রিটিশ বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে আগ্রহী এই প্রতিরক্ষা চুক্তি তারই বার্তা বহন করে। তিনি জানান, নিরাপত্তা সহযোগিতা নিয়েও এই দুই নেতার মাঝে আলাচনা হয়েছ। কেননা ইউরোপ তার পূর্বাঞ্চল রক্ষার জন্য তুরস্কের উপর নির্ভর করে। মে বলেন, ‘তুরস্ক যুক্তরাজ্যের প্রাচীনতম বন্ধু। এ সম্পর্ককে আরো গভীর করতে আরো অনেক কিছু করা যেতে পারে।’ এসময় এরদোগান ঘোষণা করেন যে, তুরস্কের লক্ষ্য হচ্ছে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বছরে ১৫ থেকে ২০ বিলিয়ন ডলার বাণিজ্য বৃদ্ধি করা। ব্রেক্সিট পরবর্তী বাণিজ্যিক সম্পর্কের ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে ব্রিটেন ও তুরস্ক মিলে একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করবে বলে ঘোষণা দেন মে। সূত্র: বিবিসি
 

Comments

Comments!

 আঙ্কারায় এরদোগান-মে বৈঠক : তুর্কি যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়নে প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সম্মত ব্রিটেনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

আঙ্কারায় এরদোগান-মে বৈঠক : তুর্কি যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়নে প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সম্মত ব্রিটেন

Sunday, January 29, 2017 3:53 pm
22

আঙ্কারা: তুর্কি বিমানবাহিনীর যুদ্ধবিমানের আধুনিকায়নে ১০০ মিলিয়ন পাউন্ডের একটি প্রতিরক্ষা চুক্তিতে সম্মত হয়েছে ব্রিটেন।

আঙ্কারায় তুর্কি প্রেসিডেন্ট ও প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাৎ শেষে এ ঘোষণা দেন যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে।

মে বলেন, ‘এই প্রতিরক্ষা চুক্তির মাধ্যমে আরো একবার প্রমাণ হলো ব্রিটেন বিশ্বব্যাপী একটি বনিকের জাতি।’

তিনি বলেন, ‘যুক্তরাজ্য তুরস্কের সঙ্গে বাণিজ্য সম্পর্ক উন্নত করতে আগ্রহী এবং প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান জানিয়েছেন তার দেশ ব্রিটেনের সঙ্গে বছরে ২০ বিলিয়ন ডলার পর্যন্ত বাণিজ্য বৃদ্ধি করবে।’

ব্রিটিশ এয়ারক্রাফট ও তুরস্কের অ্যারোস্পেস ইন্ডাস্ট্রির মধ্যে এ প্রতিরক্ষা চুক্তির উদ্দেশ্য হচ্ছে তুর্কি যুদ্ধবিমানকে আরো আধুনিকায়ন করা।

চুক্তির ঘোষণায় বলা হয়েছে, এই চুক্তির মাধ্যমে একটি গভীর প্রতিরক্ষা অংশীদারিত্বের পথকে আরো সুগম করবে।

মে বলেন, ‘এটা তুরস্কের সঙ্গে একটি নতুন ও গভীর বাণিজ্যিক সম্পর্কের সূচনা করল এবং ব্রিটিশ ও তুর্কির নিরাপত্তাকে সমৃদ্ধি করবে।’

ব্রিটিশ এয়ারক্রাফটের প্রধান নির্বাহী ইয়ান কিং বলেন, ‘এর মধ্য দিয়ে তুরস্ক ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে সম্পর্ক আরো এক ধাপ এগিয়ে গেল।’

তুরস্কে বিবিসির সংবাদদাতা মার্ক লোয়েন জানান, শীর্ষ বাণিজ্য এজেন্ডার সঙ্গে এই প্রতিরক্ষা চুক্তি ব্রেক্সিট পরবর্তী ব্রিটেনের দ্বিপাক্ষিক আলোচনার একটি অর্জন হিসেবে থেরেসা মে এটিকে স্বাগত জানিয়েছেন।

তার সরকার আরো বড় অর্থনীতির দেশের সঙ্গে ব্রিটিশ বাণিজ্য বৃদ্ধি করতে আগ্রহী এই প্রতিরক্ষা চুক্তি তারই বার্তা বহন করে।

তিনি জানান, নিরাপত্তা সহযোগিতা নিয়েও এই দুই নেতার মাঝে আলাচনা হয়েছ। কেননা ইউরোপ তার পূর্বাঞ্চল রক্ষার জন্য তুরস্কের উপর নির্ভর করে।

মে বলেন, ‘তুরস্ক যুক্তরাজ্যের প্রাচীনতম বন্ধু। এ সম্পর্ককে আরো গভীর করতে আরো অনেক কিছু করা যেতে পারে।’

এসময় এরদোগান ঘোষণা করেন যে, তুরস্কের লক্ষ্য হচ্ছে যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বছরে ১৫ থেকে ২০ বিলিয়ন ডলার বাণিজ্য বৃদ্ধি করা।

ব্রেক্সিট পরবর্তী বাণিজ্যিক সম্পর্কের ক্ষেত্র প্রস্তুত করতে ব্রিটেন ও তুরস্ক মিলে একটি যৌথ ওয়ার্কিং গ্রুপ প্রতিষ্ঠা করবে বলে ঘোষণা দেন মে।

সূত্র: বিবিসি

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X