রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৩:৪১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, September 7, 2016 12:31 am
A- A A+ Print

আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় এফবিআই

7

আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় মার্কিন তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন- এফবিআই। এ নিয়ে সংস্থাটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারের কাছে একাধিক প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। এফবিআই জঙ্গি-উগ্রপন্থিদের মনোস্তাত্ত্বিক অবস্থা বুঝতে চায়। সরকারের দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র মানবজমিনকে এই তথ্য জানিয়েছে। সূত্র মতে, কূটনৈতিক জোন গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁ এবং কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে জঙ্গি হামলাসহ সামপ্রতিক সময়ে দেশব্যাপী সহিংস-চরমপন্থিদের আক্রমণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের তরফে এমন প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সরকারের তরফে তাৎক্ষণিক তাতে অনাগ্রহ দেখানো হয়। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির গত মাসের আচমকা ঢাকা সফরের পর নতুন করে বিষয়টি আলোচনায় এসেছে জানিয়ে এক কর্মকর্তা গতকাল মানবজমিনকে বলেন, চাঞ্চল্যকর জঙ্গি হামলাগুলোর তদন্ত কার্যক্রমসহ সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস চরমপন্থা মোকাবিলায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং দেশটির তদন্ত সংস্থা এফবিআই বাংলাদেশকে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। দেশটির তরফে আরো ‘সুনির্দিষ্ট’ এবং ‘ঘনিষ্ঠ’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। ওই প্রস্তাবগুলোর মধ্যে আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টিও রয়েছে। তিনি বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিষয়গুলো অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিবেচনায় সরকারের নীতিনির্ধারকরা মার্কিন প্রস্তাবনা পর্যালোচনায় সময় নিচ্ছেন। পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থা এবং আইন মন্ত্রণালয় ঘনিষ্ঠভাবে এ নিয়ে কাজ করছে। দায়িত্বশীল অপর এক কর্মকর্তা বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ঢাকা সফরকালে দেয়া বক্তৃতায় দেশীয় জঙ্গিদের সঙ্গে বিদেশি যোগসূত্রের বিষয়টি আরো খোলাসা করেছেন। বাংলাদেশের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে এ নিয়ে তার আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে কেরি বলেন, ওই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা সবাই স্থানীয়, তবে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে তাদের যোগসূত্র থাকার বিষয়ে কোনো বিতর্ক নেই। বাংলাদেশে সহিংস-চরমপন্থিদের যে কোনো অপতৎপরতা ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের তরফে আগাম গোয়েন্দা তথ্যসহ যে কোনো সহায়তার প্রস্তাবের বিষয়টিও তিনি পুনরুল্লেখ করে গেছেন। জন কেরির সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশের নেতৃত্ব ‘প্রয়োজনের নিরিখে বিদেশি সহায়তা’ নেয়ার বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে জানিয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবের বিষয়েও সরকারের অবস্থান একই। বাংলাদেশ তথা এ অঞ্চলে সহিংস চরমপন্থিদের যে কোনো হামলা ঠেকাতে সরকারের সংশ্লিষ্ট সব বাহিনী ও সংস্থার সমন্বিত কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে অন্য এক কর্মকর্তা বলেন, কোনো কাজে কোনো দেশের সহযোগিতা নিলে দেশ বেশি উপকৃত হবে এখন সেটিই পর্যালোচনা চলছে। গুলশান হামলায় নিহত জঙ্গিদের অনেকে বিদেশে পড়াশোনায় ছিল এবং সেখান থেকেই তারা জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ে। তাদের পরিচয়ের বিস্তারিত প্রকাশের পর সঙ্গতকারণেই এতে আন্তর্জাতিক তদন্ত সংস্থাগুলোর দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। ফলে মার্কিন তদন্ত সংস্থা অন্য জঙ্গিদের সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহী। এখন দেখার বিষয় সরকারের তরফে কি সিদ্ধান্ত আসে? ওই কর্মকর্তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনার বাৎসরিক আয়োজন ঢাকা-ওয়াশিংটন নিরাপত্তা সংলাপ। আগামী মাসে ওই ফোরামের বৈঠক হওয়ার সময়ক্ষণ নির্ধারিত রয়েছে। সেখানে অন্য বিষয়ের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতার প্রস্তাব নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

Comments

Comments!

 আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় এফবিআইAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় এফবিআই

Wednesday, September 7, 2016 12:31 am
7

আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় মার্কিন তদন্ত সংস্থা ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন- এফবিআই। এ নিয়ে সংস্থাটির পক্ষ থেকে বাংলাদেশ সরকারের কাছে একাধিক প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। এফবিআই জঙ্গি-উগ্রপন্থিদের মনোস্তাত্ত্বিক অবস্থা বুঝতে চায়। সরকারের দায়িত্বশীল একাধিক সূত্র মানবজমিনকে এই তথ্য জানিয়েছে। সূত্র মতে, কূটনৈতিক জোন গুলশানের হলি আর্টিজান রেস্তরাঁ এবং কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়া ঈদগাহ মাঠে জঙ্গি হামলাসহ সামপ্রতিক সময়ে দেশব্যাপী সহিংস-চরমপন্থিদের আক্রমণের ঘটনা বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের তরফে এমন প্রস্তাব দেয়া হয়েছিল। কিন্তু সরকারের তরফে তাৎক্ষণিক তাতে অনাগ্রহ দেখানো হয়। মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির গত মাসের আচমকা ঢাকা সফরের পর নতুন করে বিষয়টি আলোচনায় এসেছে জানিয়ে এক কর্মকর্তা গতকাল মানবজমিনকে বলেন, চাঞ্চল্যকর জঙ্গি হামলাগুলোর তদন্ত কার্যক্রমসহ সন্ত্রাসবাদ ও সহিংস চরমপন্থা মোকাবিলায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং দেশটির তদন্ত সংস্থা এফবিআই বাংলাদেশকে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা দিয়ে যাচ্ছে। দেশটির তরফে আরো ‘সুনির্দিষ্ট’ এবং ‘ঘনিষ্ঠ’ সহযোগিতার প্রস্তাব দেয়া হয়েছে। ওই প্রস্তাবগুলোর মধ্যে আটক জঙ্গিদের জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়টিও রয়েছে। তিনি বলেন, সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিষয়গুলো অত্যন্ত স্পর্শকাতর বিবেচনায় সরকারের নীতিনির্ধারকরা মার্কিন প্রস্তাবনা পর্যালোচনায় সময় নিচ্ছেন। পররাষ্ট্র ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন বিভিন্ন বিভাগ ও সংস্থা এবং আইন মন্ত্রণালয় ঘনিষ্ঠভাবে এ নিয়ে কাজ করছে। দায়িত্বশীল অপর এক কর্মকর্তা বলেন, মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি ঢাকা সফরকালে দেয়া বক্তৃতায় দেশীয় জঙ্গিদের সঙ্গে বিদেশি যোগসূত্রের বিষয়টি আরো খোলাসা করেছেন। বাংলাদেশের শীর্ষ নেতৃত্বের সঙ্গে এ নিয়ে তার আলোচনা হয়েছে উল্লেখ করে কেরি বলেন, ওই ঘটনা যারা ঘটিয়েছে তারা সবাই স্থানীয়, তবে আন্তর্জাতিক জঙ্গিগোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে তাদের যোগসূত্র থাকার বিষয়ে কোনো বিতর্ক নেই। বাংলাদেশে সহিংস-চরমপন্থিদের যে কোনো অপতৎপরতা ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের তরফে আগাম গোয়েন্দা তথ্যসহ যে কোনো সহায়তার প্রস্তাবের বিষয়টিও তিনি পুনরুল্লেখ করে গেছেন। জন কেরির সঙ্গে আলোচনায় বাংলাদেশের নেতৃত্ব ‘প্রয়োজনের নিরিখে বিদেশি সহায়তা’ নেয়ার বিষয়ে ইতিবাচক মনোভাব দেখিয়েছে জানিয়ে ওই কর্মকর্তা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবের বিষয়েও সরকারের অবস্থান একই। বাংলাদেশ তথা এ অঞ্চলে সহিংস চরমপন্থিদের যে কোনো হামলা ঠেকাতে সরকারের সংশ্লিষ্ট সব বাহিনী ও সংস্থার সমন্বিত কার্যক্রম অব্যাহত রয়েছে জানিয়ে অন্য এক কর্মকর্তা বলেন, কোনো কাজে কোনো দেশের সহযোগিতা নিলে দেশ বেশি উপকৃত হবে এখন সেটিই পর্যালোচনা চলছে। গুলশান হামলায় নিহত জঙ্গিদের অনেকে বিদেশে পড়াশোনায় ছিল এবং সেখান থেকেই তারা জঙ্গি কার্যক্রমে জড়িয়ে পড়ে। তাদের পরিচয়ের বিস্তারিত প্রকাশের পর সঙ্গতকারণেই এতে আন্তর্জাতিক তদন্ত সংস্থাগুলোর দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। ফলে মার্কিন তদন্ত সংস্থা অন্য জঙ্গিদের সঙ্গে কথা বলতে আগ্রহী। এখন দেখার বিষয় সরকারের তরফে কি সিদ্ধান্ত আসে? ওই কর্মকর্তার মতে, যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে বাংলাদেশের নিরাপত্তা সংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনার বাৎসরিক আয়োজন ঢাকা-ওয়াশিংটন নিরাপত্তা সংলাপ। আগামী মাসে ওই ফোরামের বৈঠক হওয়ার সময়ক্ষণ নির্ধারিত রয়েছে। সেখানে অন্য বিষয়ের সঙ্গে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সহযোগিতার প্রস্তাব নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X