রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:১০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, September 26, 2016 6:46 pm
A- A A+ Print

‘আতাউস সামাদ বস্তুনিষ্ঠ ও সাহসী সাংবাদিকতার প্রতীক’

154269_1-1

ঢাকা: প্রবীন সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী বলেন সাংবাদিক আতাউস সামাদ সত্য, ন্যায়, বস্তুনিষ্ঠ ও সাহসি সাংবাদিকতার যে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তা পেশাজীবীদের সাংবাদিকদের জন্য অনুকরনীয় হয়ে আছে। বরেণ্য সাংবাদিক ব্যক্তিত্ব আতাউস সামাদের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন। তিনি বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য দেশে বর্তমানে তার আদর্শ অনুসরণ করার মতো সাহসী সাংবাদিকতার যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে। ইরাক যুদ্ধের সময় ‘এমবেডেড জার্নালিজ’ নামে এক ধরনের সাংবাদিকতা চালু হতে আমরা দেখেছি। বর্তমানে আমাদেল দেশেও সেই এমবেডেড জার্নালিজম চলছে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার কারণে সাংবাদিকরা সাহসী ভূমিকা রাখতে পারছেন না। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক সাখাওয়াৎ আলী খানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন স্মৃতি পরিষদের পক্ষে সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, এশিয়ান এজ পত্রিকার উপদেষ্টা  সম্পাদক মোস্তফা কামাল মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, ডিইউজের সভাপতি আব্দুল হাই শিকদার। বিএফইউজের মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, কবি হাসান হাফিজ, আমার দেশ এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, বিবিসির ঢাকা প্রতিনিধি কাদির কল্লোল, সাংবাদিক কাদের গনি চৌধুরী, পারভীন সুলতানা মূসা ঝুমা প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মরহুমের ছাত্র কাজী রওনাক হোসেন। স্মরণ সভায় বক্তারা মরহুম আতাউস সামাদের কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, তিনি ছিলেন একজন বড় মাপের সাংবাদিক। সদা হাসি-খুশী থাকা একজন সরল মনের মানুষ। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তার সাহসী ভূমিকা ছিল অতুলনীয়। এজন্য তাকে জেলেও যেতে হয়। বিবিসিতে সে সময় তার সত্য ও সাহসী সাংবাদিকতার জন্য তিনি বাংলাদেশের ঘরে ঘরে এখনও প্রিয় নাম। তারা আরো বলেন, মরহুম আতাউস সামাদ সাংবাদিকতার নীতিমালা পুরোপুরি অনুসরণ করে সাংবাদিকতা করে গেছেন। চুলছেড়াভাবে তথ্য যাচাই না করে তিনি নিজে যেমন কোনো রিপোর্ট লিখতেন না, তেমনি সহকর্মীদেরও লিখতে দিতেন না। তেমনি উভয় পক্ষের ভাষ্য ছাড়া কোনো খবর তিনি ছাপতে দিতেন না। তার আরেকটি বিশেষ গুণ ছিল স্পটে গিয়ে তিনি রিপোর্ট করতে পছন্দ করতেন। বর্তমানে দেশে এ ধরনের সাংবাদিকতার যথেষ্ট অভাব রয়েছে। সভায় তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়। এর আগে আজিমপুর গোরস্থানে মরহুমের কবর জিয়ারত করেন সাংবাদিকরা। বিএফইউজে, ডিইউজের পক্ষ থেকে মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কবরে পুষ্পার্ঘ অর্পন করা হয়। এ সময় ডিইউজের সভাপতি কবি আবদুল হাই শিকদার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সাংবাদিক হাসনাত করিম পিন্টু, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
 

Comments

Comments!

 ‘আতাউস সামাদ বস্তুনিষ্ঠ ও সাহসী সাংবাদিকতার প্রতীক’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘আতাউস সামাদ বস্তুনিষ্ঠ ও সাহসী সাংবাদিকতার প্রতীক’

Monday, September 26, 2016 6:46 pm
154269_1-1

ঢাকা: প্রবীন সাংবাদিক ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব কামাল লোহানী বলেন সাংবাদিক আতাউস সামাদ সত্য, ন্যায়, বস্তুনিষ্ঠ ও সাহসি সাংবাদিকতার যে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তা পেশাজীবীদের সাংবাদিকদের জন্য অনুকরনীয় হয়ে আছে।

বরেণ্য সাংবাদিক ব্যক্তিত্ব আতাউস সামাদের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে সোমবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে স্মৃতি পরিষদ আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য দেশে বর্তমানে তার আদর্শ অনুসরণ করার মতো সাহসী সাংবাদিকতার যথেষ্ট ঘাটতি রয়েছে। ইরাক যুদ্ধের সময় ‘এমবেডেড জার্নালিজ’ নামে এক ধরনের সাংবাদিকতা চালু হতে আমরা দেখেছি।

বর্তমানে আমাদেল দেশেও সেই এমবেডেড জার্নালিজম চলছে। তথ্যপ্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধারার কারণে সাংবাদিকরা সাহসী ভূমিকা রাখতে পারছেন না।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক সাখাওয়াৎ আলী খানের সভাপতিত্বে স্মরণ সভায় বক্তব্য রাখেন স্মৃতি পরিষদের পক্ষে সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, এশিয়ান এজ পত্রিকার উপদেষ্টা  সম্পাদক মোস্তফা কামাল মজুমদার, মুক্তিযোদ্ধা ইশতিয়াক আজিজ উলফাত, ডিইউজের সভাপতি আব্দুল হাই শিকদার।

বিএফইউজের মহাসচিব এম আবদুল্লাহ, কবি হাসান হাফিজ, আমার দেশ এর নির্বাহী সম্পাদক সৈয়দ আবদাল আহমদ, বিবিসির ঢাকা প্রতিনিধি কাদির কল্লোল, সাংবাদিক কাদের গনি চৌধুরী, পারভীন সুলতানা মূসা ঝুমা প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মরহুমের ছাত্র কাজী রওনাক হোসেন।

স্মরণ সভায় বক্তারা মরহুম আতাউস সামাদের কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বলেন, তিনি ছিলেন একজন বড় মাপের সাংবাদিক। সদা হাসি-খুশী থাকা একজন সরল মনের মানুষ। স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলনে তার সাহসী ভূমিকা ছিল অতুলনীয়। এজন্য তাকে জেলেও যেতে হয়।

বিবিসিতে সে সময় তার সত্য ও সাহসী সাংবাদিকতার জন্য তিনি বাংলাদেশের ঘরে ঘরে এখনও প্রিয় নাম। তারা আরো বলেন, মরহুম আতাউস সামাদ সাংবাদিকতার নীতিমালা পুরোপুরি অনুসরণ করে সাংবাদিকতা করে গেছেন। চুলছেড়াভাবে তথ্য যাচাই না করে তিনি নিজে যেমন কোনো রিপোর্ট লিখতেন না, তেমনি সহকর্মীদেরও লিখতে দিতেন না।

তেমনি উভয় পক্ষের ভাষ্য ছাড়া কোনো খবর তিনি ছাপতে দিতেন না। তার আরেকটি বিশেষ গুণ ছিল স্পটে গিয়ে তিনি রিপোর্ট করতে পছন্দ করতেন। বর্তমানে দেশে এ ধরনের সাংবাদিকতার যথেষ্ট অভাব রয়েছে। সভায় তার আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

এর আগে আজিমপুর গোরস্থানে মরহুমের কবর জিয়ারত করেন সাংবাদিকরা। বিএফইউজে, ডিইউজের পক্ষ থেকে মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে কবরে পুষ্পার্ঘ অর্পন করা হয়।

এ সময় ডিইউজের সভাপতি কবি আবদুল হাই শিকদার, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, সাংবাদিক হাসনাত করিম পিন্টু, শহিদুল ইসলাম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X