সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:৩৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, January 23, 2017 8:20 pm
A- A A+ Print

‘আমি পারিনি, দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি’

31

অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক, হোক না এক ম্যাচের জন্যই। তামিম ইকবালের জন্য সুযোগ ছিল সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে ম্যাচটা স্মরণীয় করে রাখার। তামিম নেতৃত্ব দিলেন ঠিকই, কিন্তু তা ব্যাটসম্যানদের আত্মহননের। প্রথম ইনিংসের চেয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে আরও যেন সাজঘরে ফেরার তাড়া। ম্যাচটা বাংলাদেশ কার্যত হারল তিন দিনেই। এমন পরাজয়ের পুরো দায় নিলেন তামিম। প্রথম ইনিংসে শর্ট বল এড়িয়ে না গিয়ে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দিলেন উইকেটের পেছনে। ইনিংসের সেটি মাত্রই চতুর্থ ওভার। দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হলেন আরও বাজেভাবে। ডিপ স্কয়ার লেগে ফিল্ডার দাঁড় করিয়ে দেওয়া হলো শর্ট বল। তামিম সাজানো ছক মেনে যেন ফাঁদে পা দিলেন ইচ্ছে করে। ফুল করে তুলে দিলেন ক্যাচ। ম্যাচ বাঁচানোর তাগিদে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের সেটি মাত্রই ষষ্ঠ ওভার। ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে ঘুরে–ফিরে বারবার তামিমের কণ্ঠে শোনা গেল এর অনুশোচনা। দলের ব্যর্থতার পুরো দায়ও নিজ কাঁধে তুলে নিয়েছেন তামিম। বলেছেন, ‘আমি অধিনায়ক ছিলাম। ভালোভাবে নেতৃত্ব দেওয়া উচিত ছিল। অধিনায়ক তো শুধু নামে নয়, আমার ব্যাটিং দিয়ে নেতৃত্ব দিতে পারতাম। যেভাবে দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হয়েছি, দলের নেতা বাকিদের কাছে ভালো কোনো বার্তা যায়নি।’ রেকর্ডে-পরিসংখ্যানে দলের সেরা ব্যাটসম্যান তিনি। এর দায়ও তো মেটানোর ছিল। তামিমের আরও খারাপ লাগছে এই ভেবে, পুরো টেস্ট সিরিজে কখনোই কোনো বলে বোলাররা ভোগাতে পারেনি তাঁকে। নিজ দোষে আউট হয়েছেন। আর সেটা স্বীকারও করলেন, ‘নিজের কথা যদি বলি, পুরো সিরিজে এ রকম কোনো ইনিংস ছিল না যেখানে আমি বিন্দুমাত্র সমস্যায় পড়েছি। অনায়াসে খেলছিলাম, কিন্তু সেটাকে পুঁজি করে বড় ইনিংস করতে পারিনি। আমার প্রতি দলের যে প্রত্যাশা, কিংবা আমি নিজেও নিজের প্রতি যে প্রত্যাশা করি, তাতে হতাশ হয়েছি। এত অনায়াসে খেলেও সেটাকে পুঁজি করতে না পারাটা ক্রাইম। আমি সেই অপরাধে অপরাধী।’ এ দিক দিয়ে সতীর্থরা অধিনায়ককে পুরো অনুসরণ করে গেল। তামিম ওপেনারের ভূমিকায় খেলেন বলে দায়িত্বটা যে বেশি, তাও বোঝেন, ‘যেভাবে আউট হয়েছি—রাবিশ। আমার উচিত ছিল বাজে বলের জন্য অপেক্ষা করা। সেখান থেকে রান তোলা। দীর্ঘ সময় ব্যাট করা। আমাকে নিয়ে বড় জুটি গড়ে তুলতে পারলে ছবিটা অন্য রকম হতো। আমি পুরো দায় নিচ্ছি। আমিই শুরুটা করেছিলাম। আমি ওই শটটা না খেললে, কঠিন পথটা বেছে নিতে পারলে ম্যাচ অন্য রকম হতো।’ তামিমের বিশ্লেষণ, ‘আমরা সহজ পথে হেঁটেছি। কঠোর পরিশ্রম করতে চাইনি। কঠিন কাজটা বেছে নিতে চাইনি। তেমনটাই মনে হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নেতার কাছ থেকে সতীর্থরা আশা করে সামনে থেকে পথ দেখাবে। আমি তা পারিনি।’

Comments

Comments!

 ‘আমি পারিনি, দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘আমি পারিনি, দেশবাসীর কাছে ক্ষমা চাচ্ছি’

Monday, January 23, 2017 8:20 pm
31

অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক, হোক না এক ম্যাচের জন্যই। তামিম ইকবালের জন্য সুযোগ ছিল সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়ে ম্যাচটা স্মরণীয় করে রাখার। তামিম নেতৃত্ব দিলেন ঠিকই, কিন্তু তা ব্যাটসম্যানদের আত্মহননের। প্রথম ইনিংসের চেয়ে দ্বিতীয় ইনিংসে আরও যেন সাজঘরে ফেরার তাড়া। ম্যাচটা বাংলাদেশ কার্যত হারল তিন দিনেই।
এমন পরাজয়ের পুরো দায় নিলেন তামিম। প্রথম ইনিংসে শর্ট বল এড়িয়ে না গিয়ে পুল করতে গিয়ে ক্যাচ দিলেন উইকেটের পেছনে। ইনিংসের সেটি মাত্রই চতুর্থ ওভার। দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হলেন আরও বাজেভাবে। ডিপ স্কয়ার লেগে ফিল্ডার দাঁড় করিয়ে দেওয়া হলো শর্ট বল। তামিম সাজানো ছক মেনে যেন ফাঁদে পা দিলেন ইচ্ছে করে। ফুল করে তুলে দিলেন ক্যাচ। ম্যাচ বাঁচানোর তাগিদে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশের সেটি মাত্রই ষষ্ঠ ওভার। ম্যাচ শেষের সংবাদ সম্মেলনে ঘুরে–ফিরে বারবার তামিমের কণ্ঠে শোনা গেল এর অনুশোচনা। দলের ব্যর্থতার পুরো দায়ও নিজ কাঁধে তুলে নিয়েছেন তামিম। বলেছেন, ‘আমি অধিনায়ক ছিলাম। ভালোভাবে নেতৃত্ব দেওয়া উচিত ছিল। অধিনায়ক তো শুধু নামে নয়, আমার ব্যাটিং দিয়ে নেতৃত্ব দিতে পারতাম। যেভাবে দ্বিতীয় ইনিংসে আউট হয়েছি, দলের নেতা বাকিদের কাছে ভালো কোনো বার্তা যায়নি।’
রেকর্ডে-পরিসংখ্যানে দলের সেরা ব্যাটসম্যান তিনি। এর দায়ও তো মেটানোর ছিল। তামিমের আরও খারাপ লাগছে এই ভেবে, পুরো টেস্ট সিরিজে কখনোই কোনো বলে বোলাররা ভোগাতে পারেনি তাঁকে। নিজ দোষে আউট হয়েছেন। আর সেটা স্বীকারও করলেন, ‘নিজের কথা যদি বলি, পুরো সিরিজে এ রকম কোনো ইনিংস ছিল না যেখানে আমি বিন্দুমাত্র সমস্যায় পড়েছি। অনায়াসে খেলছিলাম, কিন্তু সেটাকে পুঁজি করে বড় ইনিংস করতে পারিনি। আমার প্রতি দলের যে প্রত্যাশা, কিংবা আমি নিজেও নিজের প্রতি যে প্রত্যাশা করি, তাতে হতাশ হয়েছি। এত অনায়াসে খেলেও সেটাকে পুঁজি করতে না পারাটা ক্রাইম। আমি সেই অপরাধে অপরাধী।’

এ দিক দিয়ে সতীর্থরা অধিনায়ককে পুরো অনুসরণ করে গেল। তামিম ওপেনারের ভূমিকায় খেলেন বলে দায়িত্বটা যে বেশি, তাও বোঝেন, ‘যেভাবে আউট হয়েছি—রাবিশ। আমার উচিত ছিল বাজে বলের জন্য অপেক্ষা করা। সেখান থেকে রান তোলা। দীর্ঘ সময় ব্যাট করা। আমাকে নিয়ে বড় জুটি গড়ে তুলতে পারলে ছবিটা অন্য রকম হতো। আমি পুরো দায় নিচ্ছি। আমিই শুরুটা করেছিলাম। আমি ওই শটটা না খেললে, কঠিন পথটা বেছে নিতে পারলে ম্যাচ অন্য রকম হতো।’
তামিমের বিশ্লেষণ, ‘আমরা সহজ পথে হেঁটেছি। কঠোর পরিশ্রম করতে চাইনি। কঠিন কাজটা বেছে নিতে চাইনি। তেমনটাই মনে হয়েছে। এমন পরিস্থিতিতে নেতার কাছ থেকে সতীর্থরা আশা করে সামনে থেকে পথ দেখাবে। আমি তা পারিনি।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X