সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:০৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, September 22, 2017 5:50 pm
A- A A+ Print

আরাকানে শান্তিরক্ষী নিয়োগ করতে হবে: ইসলামী ঐক্যজোট

1506079815

ঢাকা: মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যার প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ করেছে ইসলামী ঐক্যজোট। শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে সমাবেশ শেষে পল্টন মোড় ও আশেপাশের সড়কে বিক্ষোভ করে তারা। মিছিল-সমাবেশে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ও সাধারণ মুসল্লিরা অংশ নেন। সমাবেশে প্রধান বক্তা ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, মিয়ানমারের সামরিক জান্তা জাতিগত নিধন চালাচ্ছে। সেখানে মুসলিমদের রক্তে রঞ্জিত হয়ে গেছে। সেখানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে অবিলম্বে জাতিসংঘের অধীনে শান্তিরক্ষিবাহিনী নিয়োগ করতে হবে এবং নিরাপদ জোন গড়ে তুলতে হবে। ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম মহাসচিব মুফতি আবু তৈয়ব হোসাইনের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, ভাইস-চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মাওলানা আবুল কাশেম, যুগ্ম-মহাসচি মাওলানা শেখ লোকমান হোসাইন প্রমুখ। আব্দুল লতিফ নেজামী বলেন, বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর মিয়ানমারের প্রতি সমর্থন প্রমাণ করেছে মুসলমানদের পক্ষে কেউ নেই। এজন্য নিজেদের রক্ষায় মুসলমানদেরই ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। তিনি অবিলম্বে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর পরিচালিত গণহত্যা ও নির্যাতন বন্ধ করার আহবান জানিয়ে বলেন, অন্যথায় রোহিঙ্গাদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয়া ছাড়া বিকল্প থাকবে না। তিনি আরো বলেন, উগ্র বর্মীয় সেনাবাহিনী, অং সান সুচি এবং সংশ্লিষ্ট সবার বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও জাতিগত নির্মূল অভিযান এবং মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার করতে হবে। মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, আরাকান এক সময় স্বীধন রাষ্ট্র ছিল। ১৯৪৮ সালে বার্মা স্বাধীন হওয়ার পর আরাকান পরাধীন হয়ে পড়ে। তাদের ওপর মগ দস্যুদের অত্যাচার-নির্যাতন শুরু হয়। তারপরও বার্মা সরকারে রোহিঙ্গারা এমপি ছিলেন। এখন তাদের বাঙালি আখ্যা দিয়ে দেশ থেকে বিতাড়িত করা হচ্ছে। তাদের হত্যা করে লাশের স্তূপ বানিয়ে ফেলা হচ্ছে। সবখানে শুধু রক্ত আর রক্ত। আমরা মুসলিমদের এ রক্ত সহ্য করতে পারছি না। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জিহাদ করা এখন ফরজ হয়ে গেছে। তিনি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, আরাকানের স্বাধীনতার জন্য জিহাদের ঘোষণা দিন। দেশের কোটি জনতা লংমার্চ করে আরাকান দখল করে সেখানে পতাকা তুলে দিয়ে আসবে। স্বাধীন আরাকানই চলমান সংকটের একমাত্র সমাধান। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রোহিঙ্গারা মুসলিম না হয়ে অন্য ধর্মের হলে বিশ্বশক্তিগুলো চুপ করে বসে থাকতো না। এজন্য তিনি বর্তমান জাতিসংঘের বিকল্প মুসলিম জাতিসংঘ গড়ে তোলার আহবান জানান। সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আবদুর রশীদ মজুমদার, মাওলানা যুবায়ের আহমদ, মাওলানা জসীম উদ্দীন, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা আলতাফ হোসাইন, মাওলানা এ কে এম আশরাফুল হক, পীরজাদা সৈয়দ মো: আহসান, মাওলানা আনসারুল হক ইমরান, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, আবুল হাসিম, নুরুজ্জামান প্রমুখ।

Comments

Comments!

 আরাকানে শান্তিরক্ষী নিয়োগ করতে হবে: ইসলামী ঐক্যজোটAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

আরাকানে শান্তিরক্ষী নিয়োগ করতে হবে: ইসলামী ঐক্যজোট

Friday, September 22, 2017 5:50 pm
1506079815

ঢাকা: মিয়ানমারে রোহিঙ্গা মুসলমানদের গণহত্যার প্রতিবাদে রাজধানীতে বিক্ষোভ করেছে ইসলামী ঐক্যজোট।

শুক্রবার বাদ জুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে সমাবেশ শেষে পল্টন মোড় ও আশেপাশের সড়কে বিক্ষোভ করে তারা। মিছিল-সমাবেশে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মী ও সাধারণ মুসল্লিরা অংশ নেন।

সমাবেশে প্রধান বক্তা ইসলামী ঐক্যজোটের মহাসচিব মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, মিয়ানমারের সামরিক জান্তা জাতিগত নিধন চালাচ্ছে। সেখানে মুসলিমদের রক্তে রঞ্জিত হয়ে গেছে। সেখানে শান্তি ফিরিয়ে আনতে অবিলম্বে জাতিসংঘের অধীনে শান্তিরক্ষিবাহিনী নিয়োগ করতে হবে এবং নিরাপদ জোন গড়ে তুলতে হবে।

ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আব্দুল লতিফ নেজামীর সভাপতিত্বে ও যুগ্ম মহাসচিব মুফতি আবু তৈয়ব হোসাইনের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, ভাইস-চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, কেন্দ্রীয় যুগ্ম-মহাসচিব ও মহানগর সভাপতি মাওলানা আবুল কাশেম, যুগ্ম-মহাসচি মাওলানা শেখ লোকমান হোসাইন প্রমুখ।

আব্দুল লতিফ নেজামী বলেন, বিশ্বের শক্তিধর রাষ্ট্রগুলোর মিয়ানমারের প্রতি সমর্থন প্রমাণ করেছে মুসলমানদের পক্ষে কেউ নেই। এজন্য নিজেদের রক্ষায় মুসলমানদেরই ঐক্যবদ্ধ হতে হবে।

তিনি অবিলম্বে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর পরিচালিত গণহত্যা ও নির্যাতন বন্ধ করার আহবান জানিয়ে বলেন, অন্যথায় রোহিঙ্গাদের হাতে অস্ত্র তুলে দেয়া ছাড়া বিকল্প থাকবে না।

তিনি আরো বলেন, উগ্র বর্মীয় সেনাবাহিনী, অং সান সুচি এবং সংশ্লিষ্ট সবার বিরুদ্ধে রোহিঙ্গা মুসলিম গণহত্যা ও জাতিগত নির্মূল অভিযান এবং মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচার করতে হবে।

মুফতি ফয়জুল্লাহ বলেন, আরাকান এক সময় স্বীধন রাষ্ট্র ছিল। ১৯৪৮ সালে বার্মা স্বাধীন হওয়ার পর আরাকান পরাধীন হয়ে পড়ে। তাদের ওপর মগ দস্যুদের অত্যাচার-নির্যাতন শুরু হয়। তারপরও বার্মা সরকারে রোহিঙ্গারা এমপি ছিলেন। এখন তাদের বাঙালি আখ্যা দিয়ে দেশ থেকে বিতাড়িত করা হচ্ছে। তাদের হত্যা করে লাশের স্তূপ বানিয়ে ফেলা হচ্ছে। সবখানে শুধু রক্ত আর রক্ত। আমরা মুসলিমদের এ রক্ত সহ্য করতে পারছি না। মিয়ানমারের বিরুদ্ধে জিহাদ করা এখন ফরজ হয়ে গেছে।

তিনি প্রধানমন্ত্রীর প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, আরাকানের স্বাধীনতার জন্য জিহাদের ঘোষণা দিন। দেশের কোটি জনতা লংমার্চ করে আরাকান দখল করে সেখানে পতাকা তুলে দিয়ে আসবে। স্বাধীন আরাকানই চলমান সংকটের একমাত্র সমাধান।

তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রোহিঙ্গারা মুসলিম না হয়ে অন্য ধর্মের হলে বিশ্বশক্তিগুলো চুপ করে বসে থাকতো না। এজন্য তিনি বর্তমান জাতিসংঘের বিকল্প মুসলিম জাতিসংঘ গড়ে তোলার আহবান জানান।

সমাবেশে আরো উপস্থিত ছিলেন, মাওলানা আবদুর রশীদ মজুমদার, মাওলানা যুবায়ের আহমদ, মাওলানা জসীম উদ্দীন, মাওলানা ফজলুর রহমান, মাওলানা আলতাফ হোসাইন, মাওলানা এ কে এম আশরাফুল হক, পীরজাদা সৈয়দ মো: আহসান, মাওলানা আনসারুল হক ইমরান, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, আবুল হাসিম, নুরুজ্জামান প্রমুখ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X