বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:৪০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, October 24, 2016 1:39 pm
A- A A+ Print

ইঁদুর খেয়ে বেঁচে ছিলেন তারা

rates1477292404

সোমালিয়ার জলদস্যুদের হাতে জিম্মি একদল নাবিক পাঁচ বছর পর মুক্তি পেয়েছেন। তাদের একজন বিবিসিকে জানিয়েছেন, বাঁচার জন্য কখনো কখনো তারা ইঁদুর খেয়ে ক্ষুধা মিটিয়েছেন। ফিলিপাইনের নাবিক আরনেল বালবেরো জানিয়েছেন, জিম্মি অবস্থায় তাদের খুব সামান্য খাবার দেওয়া হতো। অসহনীয় দিনশেষে মনে হতো, মৃত্যুর সঙ্গে বসবাস করছেন তারা। ২০১২ সালে একটি জাহাজের ২৬ জন নাবিককে জিম্মি করে সোমালিয়ায় নিয়ে যায় জলদস্যুরা। সেই থেকে পাঁচ বছর বন্দি থাকার পর মুক্তিপণ নিয়ে শনিবার তাদের ছেড়ে দিয়েছে দস্যুরা। এই নাবিকরা চীন, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম ও তাইওয়ানের নাগরিক। নাবিক বালবেরো জিম্মি হওয়াদের মধ্যে একজন। সেচিলিসের দক্ষিণ থেকে জাহাজসহ তাদের জিম্মি করে সোমালিয়ার জলসদ্যুরা। ওই সময় একজন ক্রু নিহত হন। ওই জিম্মি ঘটনার এক বছর পর জাহাজটি ডুবে যায় এবং নাবিকদের সোমালিয়ার কূলে আনা হয়। সে সময় অসুস্থ হয়ে দুজন নাবিক মারা যায়। নাবিক বালবেরো জানিয়েছেন, জলদস্যুরা তাদের খুবই কম খাবার দিত। যে কারণে তারা ইঁদুর খেতেন। জঙ্গলে ইঁদুর রান্না করে খেতে হতো তাদের। তিনি বলেন, ‘আমরা যা পেতাম তাই খেতাম। ক্ষুধায় ধরলে আপনিও খাবেন।’ বালবেরো তার পাঁচ বছরের জিম্মি জীবনের করুণ গল্প বলেছেন বিবিসিকে। বনে-জঙ্গলে বেঁচে থাকার বীভৎস অভিজ্ঞতা তাকে কুঁরে কুঁরে খাচ্ছে। মুক্ত হয়েও এখন তিনি চিন্তিত, স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন তো? তবে তিনি আশাবাদী, কষ্ট হলেও স্বাভাবিক জীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠবেন।
 

Comments

Comments!

 ইঁদুর খেয়ে বেঁচে ছিলেন তারাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ইঁদুর খেয়ে বেঁচে ছিলেন তারা

Monday, October 24, 2016 1:39 pm
rates1477292404

সোমালিয়ার জলদস্যুদের হাতে জিম্মি একদল নাবিক পাঁচ বছর পর মুক্তি পেয়েছেন।

তাদের একজন বিবিসিকে জানিয়েছেন, বাঁচার জন্য কখনো কখনো তারা ইঁদুর খেয়ে ক্ষুধা মিটিয়েছেন।

ফিলিপাইনের নাবিক আরনেল বালবেরো জানিয়েছেন, জিম্মি অবস্থায় তাদের খুব সামান্য খাবার দেওয়া হতো। অসহনীয় দিনশেষে মনে হতো, মৃত্যুর সঙ্গে বসবাস করছেন তারা।

২০১২ সালে একটি জাহাজের ২৬ জন নাবিককে জিম্মি করে সোমালিয়ায় নিয়ে যায় জলদস্যুরা। সেই থেকে পাঁচ বছর বন্দি থাকার পর মুক্তিপণ নিয়ে শনিবার তাদের ছেড়ে দিয়েছে দস্যুরা।

এই নাবিকরা চীন, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন, কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম ও তাইওয়ানের নাগরিক। নাবিক বালবেরো জিম্মি হওয়াদের মধ্যে একজন। সেচিলিসের দক্ষিণ থেকে জাহাজসহ তাদের জিম্মি করে সোমালিয়ার জলসদ্যুরা। ওই সময় একজন ক্রু নিহত হন।

ওই জিম্মি ঘটনার এক বছর পর জাহাজটি ডুবে যায় এবং নাবিকদের সোমালিয়ার কূলে আনা হয়। সে সময় অসুস্থ হয়ে দুজন নাবিক মারা যায়।

নাবিক বালবেরো জানিয়েছেন, জলদস্যুরা তাদের খুবই কম খাবার দিত। যে কারণে তারা ইঁদুর খেতেন। জঙ্গলে ইঁদুর রান্না করে খেতে হতো তাদের। তিনি বলেন, ‘আমরা যা পেতাম তাই খেতাম। ক্ষুধায় ধরলে আপনিও খাবেন।’

বালবেরো তার পাঁচ বছরের জিম্মি জীবনের করুণ গল্প বলেছেন বিবিসিকে। বনে-জঙ্গলে বেঁচে থাকার বীভৎস অভিজ্ঞতা তাকে কুঁরে কুঁরে খাচ্ছে। মুক্ত হয়েও এখন তিনি চিন্তিত, স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে পারবেন তো? তবে তিনি আশাবাদী, কষ্ট হলেও স্বাভাবিক জীবনে অভ্যস্ত হয়ে উঠবেন।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X