সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, ভোর ৫:৫৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, December 10, 2016 8:22 pm
A- A A+ Print

ইদানীং আমি ফুল দেখলে খুব ভয় পাই : কাদের

28

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘মানুষ ফুল দেখলে খুশি হয়। আর ইদানীং আমি ফুল দেখলে খুব ভয় পাই। আমি শুধু চেয়ে চেয়ে দেখি, ভালোবাসার ফুল কোনটি আর স্বার্থের ফুল কোনটি।’ আজ শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় নোয়াখালী জেলা সমিতি, ঢাকা এই গণসংবর্ধনার আয়োজন করে। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইদানীং আমি ফুল দেখলে ভয় পাই। কারণ, অনেকে ফুল নিয়ে এসে বলে এমনিই আসছি। পরেই একটা কাগজ ধরিয়ে দেয়। দাবি তো মন্ত্রীর কাছে থাকবে...। আমি জানি, এগুলোর সঙ্গে কত স্বার্থ!’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্মদক্ষতার প্রশংসা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সত্তর বছর বয়সেও তাঁর গতি অ্যারাবিয়ান হর্সের মতো। অনেক সময় আমরাও তাঁর সঙ্গে তাল মেলাতে পারি না। তাঁর মতো ভিশনারি ও ডায়নামিক নেতা যে দেশে আছেন, সে দেশ এগিয়ে যাবেই।’ ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে রাজনীতিতে এসেছি। আমার রাজনীতির শিক্ষা, অনেক কিছু তাঁরই কন্যা শেখ হাসিনার কাছ থেকে পেয়েছি। এখনো পাচ্ছি। আজ আমি আওয়ামী লীগের মতো একটি বড় দলের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছি তাঁরই অবদানে। না হলে আসতে পারতাম না।’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। আমি নোয়াখালীর উন্নয়নের জন্য সর্বশক্তি দিয়ে চেষ্টা করব। নোয়াখালী আমার জন্মভূমি ও নির্বাচনী এলাকা। তবে আমরা মূল নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ। আমি মন্ত্রী বাংলাদেশের, শুধু নোয়াখালীর নয়। অন্য এলাকাকে বঞ্চিত করে, নোয়াখালীর উন্নয়ন করব—এই মানসিকতা আমার নেই।’ ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘মন্ত্রণালয় এবং একই সঙ্গে একটি বড় দলের সাধারণ সম্পাদকের মতো দায়িত্ব পালন কেবল ওবায়দুল কাদেরের পক্ষেই সম্ভব। আপনার জন্য অনেক দোয়া ও শুভকামনা।’ সংগঠনের সভাপতি শাহাবউদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সাংসদ মামুনুর রশীদ কিরণ, নোয়াখালী জেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক, যুবলীগ নেতা আবুল বাশার, বেলাল হোসেন প্রমুখ।

Comments

Comments!

 ইদানীং আমি ফুল দেখলে খুব ভয় পাই : কাদেরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ইদানীং আমি ফুল দেখলে খুব ভয় পাই : কাদের

Saturday, December 10, 2016 8:22 pm
28

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, ‘মানুষ ফুল দেখলে খুশি হয়। আর ইদানীং আমি ফুল দেখলে খুব ভয় পাই। আমি শুধু চেয়ে চেয়ে দেখি, ভালোবাসার ফুল কোনটি আর স্বার্থের ফুল কোনটি।’

আজ শনিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন মিলনায়তনে এক গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের এসব কথা বলেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় নোয়াখালী জেলা সমিতি, ঢাকা এই গণসংবর্ধনার আয়োজন করে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ইদানীং আমি ফুল দেখলে ভয় পাই। কারণ, অনেকে ফুল নিয়ে এসে বলে এমনিই আসছি। পরেই একটা কাগজ ধরিয়ে দেয়। দাবি তো মন্ত্রীর কাছে থাকবে…। আমি জানি, এগুলোর সঙ্গে কত স্বার্থ!’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কর্মদক্ষতার প্রশংসা করে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘সত্তর বছর বয়সেও তাঁর গতি অ্যারাবিয়ান হর্সের মতো। অনেক সময় আমরাও তাঁর সঙ্গে তাল মেলাতে পারি না। তাঁর মতো ভিশনারি ও ডায়নামিক নেতা যে দেশে আছেন, সে দেশ এগিয়ে যাবেই।’

ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শে উজ্জীবিত হয়ে রাজনীতিতে এসেছি। আমার রাজনীতির শিক্ষা, অনেক কিছু তাঁরই কন্যা শেখ হাসিনার কাছ থেকে পেয়েছি। এখনো পাচ্ছি। আজ আমি আওয়ামী লীগের মতো একটি বড় দলের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছি তাঁরই অবদানে। না হলে আসতে পারতাম না।’

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘আমি আপনাদের সহযোগিতা চাই। আমি নোয়াখালীর উন্নয়নের জন্য সর্বশক্তি দিয়ে চেষ্টা করব। নোয়াখালী আমার জন্মভূমি ও নির্বাচনী এলাকা। তবে আমরা মূল নির্বাচনী এলাকা বাংলাদেশ। আমি মন্ত্রী বাংলাদেশের, শুধু নোয়াখালীর নয়। অন্য এলাকাকে বঞ্চিত করে, নোয়াখালীর উন্নয়ন করব—এই মানসিকতা আমার নেই।’

ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের মেয়র আনিসুল হক বলেন, ‘মন্ত্রণালয় এবং একই সঙ্গে একটি বড় দলের সাধারণ সম্পাদকের মতো দায়িত্ব পালন কেবল ওবায়দুল কাদেরের পক্ষেই সম্ভব। আপনার জন্য অনেক দোয়া ও শুভকামনা।’

সংগঠনের সভাপতি শাহাবউদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে গণসংবর্ধনা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সাংসদ মামুনুর রশীদ কিরণ, নোয়াখালী জেলা সমিতির সাধারণ সম্পাদক শামসুল হক, যুবলীগ নেতা আবুল বাশার, বেলাল হোসেন প্রমুখ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X