রবিবার, ২৫শে জুন, ২০১৭ ইং, ১১ই আষাঢ়, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১১:১০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, April 20, 2017 12:55 am
A- A A+ Print

উত্তর-পূর্ব ভারতে গোমাংসে ছাড় বিজেপির

images

উত্তর প্রদেশসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে গরুর মাংসের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নেওয়া ভারতের শাসক দল বিজেপি উত্তর-পূর্ব ভারতে গোমাংসের ওপর নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দিয়েছে। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিজেপি সভাপতি বিপ্লব দেব বুধবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমন তথ্য জানিয়েছেন। খ্রিষ্টধর্মাবলম্বী অধ্যুষিত মেঘালয়, মিজোরাম ও নাগাল্যান্ড বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্যগুলোর বিজেপি নেতারা আগেই জানিয়েছিলেন, তাঁরা ক্ষমতায় এলে গোমাংস নিষিদ্ধ হবে না। এবার বিজেপির ত্রিপুরা সভাপতি বললেন, গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতেই গোমাংসে ছাড় দিচ্ছে বিজেপি। সিপিএমের তরফে এটাকে দ্বিচারিতা বলে পাল্টা কটাক্ষ করা হয়েছে। আজ বুধবার দুপুরে আগরতলায় বিজেপির ত্রিপুরা রাজ্য সদর দপ্তরে সাংবাদিক সম্মেলনে মিলিত হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি বিপ্লব দেব, দলের রাজ্য প্রভারী সুনীল দেওধর, রাজ্য সম্পাদক সুব্রত চক্রবর্তী। ওডিশা রাজ্যের রাজধানী ভুবনেশ্বরে দলের কার্যকরী সমিতির বৈঠকে ত্রিপুরা নিয়ে গৃহীত দলের সর্বোচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের সিদ্ধান্ত সাংবাদিকদের অবহিত করা হয়। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিপ্লব এদিন বলেন, ‘গোমাংস ইস্যুতে শুধু ত্রিপুরা নয়, উত্তর-পূর্ব ভারতকেই ছাড় দেওয়া হয়েছে।’ বিপ্লব দেবের এই বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন রাজ্য বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার তথা সিপিএমের পশ্চিম ত্রিপুরা জেলা সম্পাদক পবিত্র কর। তিনি বলেন, ‘এটা দ্বিচারিতা। উত্তর প্রদেশে গরু তো দূরের কথা, মাছ-মাংস-ডিম খাওয়াই বন্ধ করে দিচ্ছে বিজেপি সরকার।’ শুধু গরুর ওপর নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দেওয়াই নয়, এদিন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে উদ্ধৃত করে মুসলিমদের ‘দুঃখ-দুর্দশা’র কথাও উল্লেখ করেন বিপ্লব। বিজেপির রাজ্য সভাপতির অভিযোগ, কংগ্রেস, সিপিএম ও তৃণমূলের জন্যই অনগ্রসর শ্রেণির মানুষের (ওবিসি) জন্য নতুন আইন পাস করতে পারছে না কেন্দ্রীয় সরকার। এটা পাস করাতে পারলেই ওবিসিদের অবস্থার উন্নতি হবে। এই ওবিসির মধ্যে মুসলিমরাও অনেকে পড়েন বলে বিপ্লব স্মরণ করিয়ে দেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশ সংখ্যালঘুদের চিহ্নিত করে তাদের মধ্যে ব্যাপক প্রচার চালাবে বিজেপি। বিজেপির এই ‘মুসলিমপ্রেম’কে মোটেই ভালোভাবে নিচ্ছেন না অন্য দলগুলো। সিপিএম নেতা পবিত্র কর প্রথম আলোকে বলেন, ‘যাঁরা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে ক্ষমতা দখল করতে চায়, তাঁদের এ রাজ্যের মানুষ বিশ্বাস করতে পারে না।’ বিজেপিকে পুরোপুরি সাম্প্রদায়িক এবং মুসলিমবিরোধী দল বলে মন্তব্য করেন প্রদেশ কংগ্রেসের সহসভাপতি তাপস দে। আর তৃণমূল বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণ প্রথম আলোকে বলেন, ‘মুসলিম দরদ আসলে রাজনৈতিক ভাঁওতা ছাড়া কিছুই নয়। মানুষ কী খাবে, কী পরবে—সেটা কোনো দল ঠিক করে দিতে পারে না।’

Comments

Comments!

 উত্তর-পূর্ব ভারতে গোমাংসে ছাড় বিজেপিরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

উত্তর-পূর্ব ভারতে গোমাংসে ছাড় বিজেপির

Thursday, April 20, 2017 12:55 am
images

উত্তর প্রদেশসহ ভারতের বিভিন্ন রাজ্যে গরুর মাংসের বিষয়ে কঠোর অবস্থান নেওয়া ভারতের শাসক দল বিজেপি উত্তর-পূর্ব ভারতে গোমাংসের ওপর নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দিয়েছে। ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের বিজেপি সভাপতি বিপ্লব দেব বুধবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমন তথ্য জানিয়েছেন।

খ্রিষ্টধর্মাবলম্বী অধ্যুষিত মেঘালয়, মিজোরাম ও নাগাল্যান্ড বিধানসভা ভোটের আগে রাজ্যগুলোর বিজেপি নেতারা আগেই জানিয়েছিলেন, তাঁরা ক্ষমতায় এলে গোমাংস নিষিদ্ধ হবে না। এবার বিজেপির ত্রিপুরা সভাপতি বললেন, গোটা উত্তর-পূর্ব ভারতেই গোমাংসে ছাড় দিচ্ছে বিজেপি। সিপিএমের তরফে এটাকে দ্বিচারিতা বলে পাল্টা কটাক্ষ করা হয়েছে।
আজ বুধবার দুপুরে আগরতলায় বিজেপির ত্রিপুরা রাজ্য সদর দপ্তরে সাংবাদিক সম্মেলনে মিলিত হয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি বিপ্লব দেব, দলের রাজ্য প্রভারী সুনীল দেওধর, রাজ্য সম্পাদক সুব্রত চক্রবর্তী। ওডিশা রাজ্যের রাজধানী ভুবনেশ্বরে দলের কার্যকরী সমিতির বৈঠকে ত্রিপুরা নিয়ে গৃহীত দলের সর্বোচ্চ পর্যায়ের বৈঠকের সিদ্ধান্ত সাংবাদিকদের অবহিত করা হয়। সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বিপ্লব এদিন বলেন, ‘গোমাংস ইস্যুতে শুধু ত্রিপুরা নয়, উত্তর-পূর্ব ভারতকেই ছাড় দেওয়া হয়েছে।’
বিপ্লব দেবের এই বক্তব্যের কড়া সমালোচনা করেছেন রাজ্য বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার তথা সিপিএমের পশ্চিম ত্রিপুরা জেলা সম্পাদক পবিত্র কর। তিনি বলেন, ‘এটা দ্বিচারিতা। উত্তর প্রদেশে গরু তো দূরের কথা, মাছ-মাংস-ডিম খাওয়াই বন্ধ করে দিচ্ছে বিজেপি সরকার।’
শুধু গরুর ওপর নিষেধাজ্ঞায় ছাড় দেওয়াই নয়, এদিন দলের সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহকে উদ্ধৃত করে মুসলিমদের ‘দুঃখ-দুর্দশা’র কথাও উল্লেখ করেন বিপ্লব। বিজেপির রাজ্য সভাপতির অভিযোগ, কংগ্রেস, সিপিএম ও তৃণমূলের জন্যই অনগ্রসর শ্রেণির মানুষের (ওবিসি) জন্য নতুন আইন পাস করতে পারছে না কেন্দ্রীয় সরকার। এটা পাস করাতে পারলেই ওবিসিদের অবস্থার উন্নতি হবে। এই ওবিসির মধ্যে মুসলিমরাও অনেকে পড়েন বলে বিপ্লব স্মরণ করিয়ে দেন। তিনি আরও বলেন, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির নির্দেশ সংখ্যালঘুদের চিহ্নিত করে তাদের মধ্যে ব্যাপক প্রচার চালাবে বিজেপি।
বিজেপির এই ‘মুসলিমপ্রেম’কে মোটেই ভালোভাবে নিচ্ছেন না অন্য দলগুলো। সিপিএম নেতা পবিত্র কর প্রথম আলোকে বলেন, ‘যাঁরা ধর্ম নিয়ে রাজনীতি করে, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করে ক্ষমতা দখল করতে চায়, তাঁদের এ রাজ্যের মানুষ বিশ্বাস করতে পারে না।’
বিজেপিকে পুরোপুরি সাম্প্রদায়িক এবং মুসলিমবিরোধী দল বলে মন্তব্য করেন প্রদেশ কংগ্রেসের সহসভাপতি তাপস দে। আর তৃণমূল বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণ প্রথম আলোকে বলেন, ‘মুসলিম দরদ আসলে রাজনৈতিক ভাঁওতা ছাড়া কিছুই নয়। মানুষ কী খাবে, কী পরবে—সেটা কোনো দল ঠিক করে দিতে পারে না।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X