বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৮:৩৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, September 20, 2017 10:18 pm
A- A A+ Print

উদ্বোধনের আগেই ভেঙে পড়ল গঙ্গার উপর নির্মিত ৩৮৯ কোটি রুপির বাঁধ!

15

দিল্লি: উদ্বোধনের ঠিক আগেই অতিরিক্ত পানির চাপে ভেঙে পড়ল ভাগলপুরের গাটেশ্বর পন্থ ক্যানাল প্রকল্পের একাংশ। খুব জাকজমক আয়োজন করেই বাঁধটি নির্মাণ করার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের। সেই মতে প্রচারও হয়েছিল জোরকদমে। কিন্তু উদ্বোধনের আগেই ভারতের গঙ্গা নদীর উপর নির্মিত ৩৮৯ কোটি রুপির বাঁধটি ভেঙে পড়লো। বিহারের ভাগলপুর জেলার কাহালগাঁওয়ে ওই প্রকল্পের অধীনে প্রায় ৪০ বছর ধরে এই বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছিল। সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, বিহার ও ঝাড়খণ্ডের কৃষকেরা এতে উপকৃত হবেন। বুধবার এই বাঁধ উদ্বেধনের কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের। খবর আনন্দবাজারের। অভিযোগ, অতিরিক্ত পানির চাপেই ভেঙে পড়েছে বাঁধটির একাংশ। বাঁধ ভেঙে পড়ায় কাহালগাঁওয়ের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ঘটনার জেরে বাতিল করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠান। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন সেচ প্রকল্পের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। বিহারের পানিসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী লল্লন সিংহের কথায়, ‘পুরো মাত্রায় পানি ছাড়ার কারণেই বাঁধটির একাংশ ভেঙে পড়েছে। তবে প্রকল্পটির নতুন তৈরি অংশের কোনও ক্ষতি হয়নি।’ সরকারি সূত্রে খবর, বিহার ও ঝাড়খণ্ডের যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই প্রকল্পে ভাগলপুরের প্রায় ১৮ হাজার ৬২০ হেক্টর এবং ঝাড়খণ্ডের প্রায় ৪ হাজার হেক্টর জমিতে চাষের কাজ সম্ভব হত। বাঁধ ভেঙে পড়ায় প্রভূত নিন্দা করেছেন লালু-তনয় তেজস্বী যাদব। টুইটারে তিনি লিখেছেন, সেচ প্রকল্পের দুর্নীতির কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে। তার কথায়, ‘আরো একটি বাঁধ দুর্নীতির বলি হলো। রাজ্যের পানিসম্পদ উন্নয়ন দফতর দুর্নীতিতে ভরে গিয়েছে। এই ঘটনা তারই ফল।’
 

Comments

Comments!

 উদ্বোধনের আগেই ভেঙে পড়ল গঙ্গার উপর নির্মিত ৩৮৯ কোটি রুপির বাঁধ!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

উদ্বোধনের আগেই ভেঙে পড়ল গঙ্গার উপর নির্মিত ৩৮৯ কোটি রুপির বাঁধ!

Wednesday, September 20, 2017 10:18 pm
15

দিল্লি: উদ্বোধনের ঠিক আগেই অতিরিক্ত পানির চাপে ভেঙে পড়ল ভাগলপুরের গাটেশ্বর পন্থ ক্যানাল প্রকল্পের একাংশ। খুব জাকজমক আয়োজন করেই বাঁধটি নির্মাণ করার কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের। সেই মতে প্রচারও হয়েছিল জোরকদমে। কিন্তু উদ্বোধনের আগেই ভারতের গঙ্গা নদীর উপর নির্মিত ৩৮৯ কোটি রুপির বাঁধটি ভেঙে পড়লো।

বিহারের ভাগলপুর জেলার কাহালগাঁওয়ে ওই প্রকল্পের অধীনে প্রায় ৪০ বছর ধরে এই বাঁধ নির্মাণের কাজ চলছিল। সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, বিহার ও ঝাড়খণ্ডের কৃষকেরা এতে উপকৃত হবেন। বুধবার এই বাঁধ উদ্বেধনের কথা ছিল মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমারের। খবর আনন্দবাজারের।

অভিযোগ, অতিরিক্ত পানির চাপেই ভেঙে পড়েছে বাঁধটির একাংশ। বাঁধ ভেঙে পড়ায় কাহালগাঁওয়ের বিস্তীর্ণ এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়েছে। ঘটনার জেরে বাতিল করা হয়েছে মুখ্যমন্ত্রীর অনুষ্ঠান। ঘটনাস্থলে পৌঁছেছেন সেচ প্রকল্পের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। বিহারের পানিসম্পদ উন্নয়নমন্ত্রী লল্লন সিংহের কথায়, ‘পুরো মাত্রায় পানি ছাড়ার কারণেই বাঁধটির একাংশ ভেঙে পড়েছে। তবে প্রকল্পটির নতুন তৈরি অংশের কোনও ক্ষতি হয়নি।’

সরকারি সূত্রে খবর, বিহার ও ঝাড়খণ্ডের যৌথ উদ্যোগে তৈরি এই প্রকল্পে ভাগলপুরের প্রায় ১৮ হাজার ৬২০ হেক্টর এবং ঝাড়খণ্ডের প্রায় ৪ হাজার হেক্টর জমিতে চাষের কাজ সম্ভব হত। বাঁধ ভেঙে পড়ায় প্রভূত নিন্দা করেছেন লালু-তনয় তেজস্বী যাদব। টুইটারে তিনি লিখেছেন, সেচ প্রকল্পের দুর্নীতির কারণেই এই ঘটনা ঘটেছে। তার কথায়, ‘আরো একটি বাঁধ দুর্নীতির বলি হলো। রাজ্যের পানিসম্পদ উন্নয়ন দফতর দুর্নীতিতে ভরে গিয়েছে। এই ঘটনা তারই ফল।’

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X