শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৫৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, October 2, 2017 10:25 am
A- A A+ Print

এক ক্যাচেই আলোচনায় লিটন

5

উইকেটের পেছনে নির্ভরতা দেওয়ার মতো কাউকে তাহলে শেষ পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া গেল! দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার যে ছয় উইকেট পড়েছে তার পাঁচটিতেই আছে লিটন দাসের অবদান। টেন্ডা বাভুমার ক্যাচটা তো রীতিমতো চোখে আটকে থাকার মতো! দিন শেষের সংবাদ সম্মেলনে সেই ক্যাচ নিয়ে বাভুমার প্রশংসাও পেয়েছেন লিটন। ‘এ রকম ক্যাচ সচরাচর হয় না। আমি নিজে অন্তত এ রকম ক্যাচে আগে আউট হইনি। অসাধারণ ক্যাচ। দ্বিতীয় উইকেট কিপার হিসেবে খেললেও এই টেস্টের পুরোটাই সে খুব ভালো কিপিং করেছে’—বলেছেন বাভুমা। এর আগে হয়ে যাওয়া লিটনের সংবাদ সম্মেলনেও তাঁর উইকেট কিপিংয়ের প্রসঙ্গ একাধিকবার এসেছে। লাজুক হেসে লিটন বলেছেন, ‘আমি কিপিং সব সময়ই উপভোগ করি। কখনো মিস হয়ে যায়, কখনো ভালো কিছু হয়। এটা খেলারই অংশ। তবে ভালো ক্যাচ নিতে পারলে অবশ্যই ভালো লাগে।’ লিটন এ রকম ক্যাচ আগেও নিয়েছেন একবার। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজের গল টেস্টে নিরোশান ডিকভেলার সেই ক্যাচটাই যেন কাল আরেকবার দেখা গেল পচেফস্ট্রুমে। হার এড়াতে কাল সারাদিন ব্যাটিং করা চাই বাংলাদেশের। আর জিততে হলে করতে হবে ৩৭৫ রান। দুটোই খুব কঠিন এবং দ্বিতীয়টি বেশি কঠিন। লিটন জানালেন, শেষ দিনে তাই ড্রয়ের জন্যই ব্যাটিংয়ে নামবে বাংলাদেশ, ‘পঞ্চম দিনে তিনশ-সাড়ে তিনশ রান তাড়া করে জেতা যায় না। আমাদের তিন উইকেট চলে গেছে। চেষ্টা করব ভালো কিছু করতে। তবে এখান থেকে জেতা কঠিন। ড্র করার চেষ্টা থাকবে।’ লিটনের বিশ্লেষণ বলছে, ম্যাচে এখনো পশ্চাৎপদ হয়ে পড়েনি বাংলাদেশ। এক-দুইটা ভালো জুটি হলে এখান থেকেও সম্ভব ভালো কিছু অর্জন করা, ‘আমরা এখনো ব্যাকফুটে যাইনি। যদি ভালো দুই-একটা জুটি হয় হয়তো কিছু হতে পারে।’ অবশ্য চতুর্থ দিন শেষেই শুধু নয়, এই টেস্টে বাংলাদেশ দল কখনোই পিছিয়ে পড়েনি বলে দাবি তাঁর, ‘প্রথম দিনে হয়তো ওদের ১ উইকেট পড়েছে, কিন্তু রান ৩৫০-৪০০ হয়ে যায়নি। চার দিন গেছে, আমরা এখনো ম্যাচের বাইরে নই। টেস্ট ক্রিকেটে আপনি সব সময় জয় পাবেন না। কখনো হারবেন, কখনো ড্র হবে। এমন নয় যে জিততেই হবে আপনাকে। না জেতা মানে এই নয় যে, আমরা ম্যাচে নেই। প্রথম দিন থেকে আমরা ম্যাচে ছিলাম এবং এখন পর্যন্ত আছি।’ লিটনের ক্যাচের মতো চতুর্থ দিনের আরেকটা আলোচিত বিষয় আম্পায়ারের এলবিডব্লিউর সিদ্ধান্তে মুমিনুল হকের রিভিউ না নেওয়া। ইমরুলের সঙ্গে শলা-পরামর্শ করে ড্রেসিংরুমে ফিরে যান তিনি। অথচ পরে টিভি রিপ্লেতে তো বটেই, প্রথমে সাদা চোখেও দেখে মনে হয়েছে ওটা এলবিডব্লিউ নয়। লিটনের কাছ থেকে জানা গেল, এ নিয়ে আফসোস আছে ড্রেসিংরুমেও, ‘আফসোস তো একটু আছেই। পরে দেখে মনে হয়েছে রিভিউ নিলে ভালো হতো আমাদের জন্য। ওটা আউট ছিল না।’

Comments

Comments!

 এক ক্যাচেই আলোচনায় লিটনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

এক ক্যাচেই আলোচনায় লিটন

Monday, October 2, 2017 10:25 am
5

উইকেটের পেছনে নির্ভরতা দেওয়ার মতো কাউকে তাহলে শেষ পর্যন্ত খুঁজে পাওয়া গেল! দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকার যে ছয় উইকেট পড়েছে তার পাঁচটিতেই আছে লিটন দাসের অবদান। টেন্ডা বাভুমার ক্যাচটা তো রীতিমতো চোখে আটকে থাকার মতো! দিন শেষের সংবাদ সম্মেলনে সেই ক্যাচ নিয়ে বাভুমার প্রশংসাও পেয়েছেন লিটন।
‘এ রকম ক্যাচ সচরাচর হয় না। আমি নিজে অন্তত এ রকম ক্যাচে আগে আউট হইনি। অসাধারণ ক্যাচ। দ্বিতীয় উইকেট কিপার হিসেবে খেললেও এই টেস্টের পুরোটাই সে খুব ভালো কিপিং করেছে’—বলেছেন বাভুমা। এর আগে হয়ে যাওয়া লিটনের সংবাদ সম্মেলনেও তাঁর উইকেট কিপিংয়ের প্রসঙ্গ একাধিকবার এসেছে। লাজুক হেসে লিটন বলেছেন, ‘আমি কিপিং সব সময়ই উপভোগ করি। কখনো মিস হয়ে যায়, কখনো ভালো কিছু হয়। এটা খেলারই অংশ। তবে ভালো ক্যাচ নিতে পারলে অবশ্যই ভালো লাগে।’
লিটন এ রকম ক্যাচ আগেও নিয়েছেন একবার। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সর্বশেষ সিরিজের গল টেস্টে নিরোশান ডিকভেলার সেই ক্যাচটাই যেন কাল আরেকবার দেখা গেল পচেফস্ট্রুমে।
হার এড়াতে কাল সারাদিন ব্যাটিং করা চাই বাংলাদেশের। আর জিততে হলে করতে হবে ৩৭৫ রান। দুটোই খুব কঠিন এবং দ্বিতীয়টি বেশি কঠিন। লিটন জানালেন, শেষ দিনে তাই ড্রয়ের জন্যই ব্যাটিংয়ে নামবে বাংলাদেশ, ‘পঞ্চম দিনে তিনশ-সাড়ে তিনশ রান তাড়া করে জেতা যায় না। আমাদের তিন উইকেট চলে গেছে। চেষ্টা করব ভালো কিছু করতে। তবে এখান থেকে জেতা কঠিন। ড্র করার চেষ্টা থাকবে।’
লিটনের বিশ্লেষণ বলছে, ম্যাচে এখনো পশ্চাৎপদ হয়ে পড়েনি বাংলাদেশ। এক-দুইটা ভালো জুটি হলে এখান থেকেও সম্ভব ভালো কিছু অর্জন করা, ‘আমরা এখনো ব্যাকফুটে যাইনি। যদি ভালো দুই-একটা জুটি হয় হয়তো কিছু হতে পারে।’
অবশ্য চতুর্থ দিন শেষেই শুধু নয়, এই টেস্টে বাংলাদেশ দল কখনোই পিছিয়ে পড়েনি বলে দাবি তাঁর, ‘প্রথম দিনে হয়তো ওদের ১ উইকেট পড়েছে, কিন্তু রান ৩৫০-৪০০ হয়ে যায়নি। চার দিন গেছে, আমরা এখনো ম্যাচের বাইরে নই। টেস্ট ক্রিকেটে আপনি সব সময় জয় পাবেন না। কখনো হারবেন, কখনো ড্র হবে। এমন নয় যে জিততেই হবে আপনাকে। না জেতা মানে এই নয় যে, আমরা ম্যাচে নেই। প্রথম দিন থেকে আমরা ম্যাচে ছিলাম এবং এখন পর্যন্ত আছি।’
লিটনের ক্যাচের মতো চতুর্থ দিনের আরেকটা আলোচিত বিষয় আম্পায়ারের এলবিডব্লিউর সিদ্ধান্তে মুমিনুল হকের রিভিউ না নেওয়া। ইমরুলের সঙ্গে শলা-পরামর্শ করে ড্রেসিংরুমে ফিরে যান তিনি। অথচ পরে টিভি রিপ্লেতে তো বটেই, প্রথমে সাদা চোখেও দেখে মনে হয়েছে ওটা এলবিডব্লিউ নয়। লিটনের কাছ থেকে জানা গেল, এ নিয়ে আফসোস আছে ড্রেসিংরুমেও, ‘আফসোস তো একটু আছেই। পরে দেখে মনে হয়েছে রিভিউ নিলে ভালো হতো আমাদের জন্য। ওটা আউট ছিল না।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X