শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৮:৫০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, October 25, 2016 10:10 am
A- A A+ Print

এখনো অবশ খাদিজার বাম পা

157567_1

   
ঢাকা: ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের চাপাতির কোপে গুরুতর আহত সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের বাম পা নড়াচড়া করা যাচ্ছে না। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার ডান-পায়ের মুভমেন্ট স্বাভাবিক। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে স্কয়ার হাসপাতালের কাস্টমার সার্ভিসের কর্মকর্তা কাজী মাহবুবা বলেন, ‘খাদিজার অবস্থা এখন ভালো। বাম দিকে একটু সমস্যা থাকলেও ওর বয়স কম হওয়ায় চিকিৎসরা খুবই আশাবাদী। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের ষষ্ঠ তলার নিউরো সার্জারী বিভাগে ডা. এ.এম রেজাউস সাত্তারের অধীনে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।’ খাদিজার সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে তার চাচা আবদুল কুদ্দুস জানান, খাদিজার ডান পাশ নড়াচড়া করছে বেশকিছু দিন ধরে। কিন্তু বাম পাশে কোনো অনুভুতি নেই। খাওয়া দাওয়া করছেন নাকে নল দিয়ে।
গত ৩ অক্টোবর পরীক্ষা শেষে বাসায় ফেরার সময় সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করে শাহজালাল  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম। পরে স্থানীয় জনতা পিটুনি দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেন। সেখানে হাফিজুর রহমান নামের এক ছাত্র খাদিজা আক্তার নার্গিসকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন পরের দিন সকালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। এ ঘটনায় আদালতের বদরুল আলম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আদালতে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছেন, প্রেমে সাড়া না দেওয়ার কারনে তার মাথা খারাপ হয়ে যায় এবং ক্ষোভ থেকে হত্যার উদ্দেশ্যে সে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে খাদিজাকে হত্যার চেষ্টা করে। স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকরা প্রথম বলেছিলেন, খাদিজার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৫ থেকে ১০ ভাগ। তারা বলেন, খাদিজার অবস্থা ভাল। তবে তার বাম পাশটা প্যারালাইজড হয়ে আছে। এই পায়ে অনুভূতি ফিরে আসতে একটু সময় লাগবে।

Comments

Comments!

 এখনো অবশ খাদিজার বাম পাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

এখনো অবশ খাদিজার বাম পা

Tuesday, October 25, 2016 10:10 am
157567_1

 

 

ঢাকা: ছাত্রলীগ নেতা বদরুলের চাপাতির কোপে গুরুতর আহত সিলেট সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসের বাম পা নড়াচড়া করা যাচ্ছে না। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন খাদিজার ডান-পায়ের মুভমেন্ট স্বাভাবিক।

চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে স্কয়ার হাসপাতালের কাস্টমার সার্ভিসের কর্মকর্তা কাজী মাহবুবা বলেন, ‘খাদিজার অবস্থা এখন ভালো। বাম দিকে একটু সমস্যা থাকলেও ওর বয়স কম হওয়ায় চিকিৎসরা খুবই আশাবাদী। রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালের ষষ্ঠ তলার নিউরো সার্জারী বিভাগে ডা. এ.এম রেজাউস সাত্তারের অধীনে নিবিড় পর্যবেক্ষণ কেন্দ্রে (আইসিইউ) চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।’

খাদিজার সর্বশেষ অবস্থা সম্পর্কে তার চাচা আবদুল কুদ্দুস জানান, খাদিজার ডান পাশ নড়াচড়া করছে বেশকিছু দিন ধরে। কিন্তু বাম পাশে কোনো অনুভুতি নেই। খাওয়া দাওয়া করছেন নাকে নল দিয়ে।

গত ৩ অক্টোবর পরীক্ষা শেষে বাসায় ফেরার সময় সিলেট সরকারী মহিলা কলেজের ছাত্রী খাদিজা আক্তার নার্গিসকে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে আহত করে শাহজালাল  বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রলীগ নেতা বদরুল আলম। পরে স্থানীয় জনতা পিটুনি দিয়ে তাকে পুলিশে সোপর্দ করেন।

সেখানে হাফিজুর রহমান নামের এক ছাত্র খাদিজা আক্তার নার্গিসকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সিলেটের ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করেন

পরের দিন সকালে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে আনা হয়। এ ঘটনায় আদালতের বদরুল আলম স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আদালতে দাঁড়িয়ে তিনি বলেছেন, প্রেমে সাড়া না দেওয়ার কারনে তার মাথা খারাপ হয়ে যায় এবং ক্ষোভ থেকে হত্যার উদ্দেশ্যে সে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে খাদিজাকে হত্যার চেষ্টা করে।

স্কয়ার হাসপাতালের চিকিৎসকরা প্রথম বলেছিলেন, খাদিজার বেঁচে থাকার সম্ভাবনা ৫ থেকে ১০ ভাগ।

তারা বলেন, খাদিজার অবস্থা ভাল। তবে তার বাম পাশটা প্যারালাইজড হয়ে আছে। এই পায়ে অনুভূতি ফিরে আসতে একটু সময় লাগবে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X