সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:২৪
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, June 20, 2017 8:06 pm
A- A A+ Print

এখন পাকিস্তানের অপমান গিলতে হচ্ছে ভারতকে

9

‘বাবা দিবসে ছেলের সঙ্গে খেলা মন্দ হবে না। মজাটাকে সিরিয়াস ভেবে নিয়ো, বাবা।’ এটাই ছিল বীরেন্দর শেবাগের টুইট। ১৮ জুন বাবা দিবসে খেলা পড়েছিল বলে ভারতীয়দের তরফে এই বাবা-তত্ত্ব দিয়ে পাকিস্তানকে খোঁচানো হয়েছে খুব। সাধারণ ক্রিকেট সমর্থকেরা তো ছিলেনই, শেবাগ-ঋষি কাপুরদের মতো তারকারাও এ নিয়ে মজা করেছেন। এখন সেই অপমানের তির ছুটে আসছে তাঁদের দিকেই। আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের ৮ নম্বর দল হিসেবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলতে এসেছিল পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল ১২৪ রানের বড় ব্যবধানে। ভারত হয়তো ধরেই নিয়েছিল, চ্যাম্পিয়ন হওয়া সময়ের ব্যাপার। সামাজিক মাধ্যমেও ভারতীয় সমর্থকদের উল্লম্ফন এতটাই তীব্র ছিল, কিছু ভারতীয়ই এ নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। বাড়াবাড়ি করতে বারণ করেছিলেন। সুযোগ পেয়ে এখন পাকিস্তানের সমর্থকেরা পাল্টা নিচ্ছেন। পাকিস্তানের এক টেলিভিশন সাংবাদিক রীতিমতো অপমানই করলেন শেবাগদের কাছ থেকে ধার করে নেওয়া ভাষায়। আমির লিয়াকত নামের সেই সাংবাদিক বলেছেন, ‘ভারত এখন বুঝেছে কে বাপ কে ব্যাটা।’ লিয়াকত তাঁর ‘অ্যায়সা নেহি চালেগা’ (এটা চলবে না) অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালের পর ভারতের প্রতিটি মা তাদের বাচ্চাদের পাকিস্তানকে নিয়ে গল্প শোনাবে। সেই গল্পে থাকবে কীভাবে পাকিস্তান এসে তাদের দেশকে ১৮০ রানে হারিয়ে গিয়েছিল।’ লিয়াকত আরও বলেন, ‘ভারত ও এই “কাপুর”রা এখন বুঝেছে কে বাবা। আমরা ভারত ও কাপুরদের বুঝিয়ে দিয়েছি পাকিস্তানের জন্ম ১৪ আগস্ট আর বাবা দিবসটা আমাদেরই।’ আর তাঁর এই অনুষ্ঠানের কথাগুলো ভিডিওসহ প্রকাশ করেছে ভারতেরই মিডিয়া। ভাইরাল হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে। সেই সঙ্গে একই প্রশ্ন উঠে আসছে, খেলা নিয়ে অশালীন আক্রমণ আর কত? এভাবে জবাব-পাল্টা জবাব দেওয়া কি চলতেই থাকবে?

Comments

Comments!

 এখন পাকিস্তানের অপমান গিলতে হচ্ছে ভারতকেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

এখন পাকিস্তানের অপমান গিলতে হচ্ছে ভারতকে

Tuesday, June 20, 2017 8:06 pm
9

‘বাবা দিবসে ছেলের সঙ্গে খেলা মন্দ হবে না। মজাটাকে সিরিয়াস ভেবে নিয়ো, বাবা।’ এটাই ছিল বীরেন্দর শেবাগের টুইট। ১৮ জুন বাবা দিবসে খেলা পড়েছিল বলে ভারতীয়দের তরফে এই বাবা-তত্ত্ব দিয়ে পাকিস্তানকে খোঁচানো হয়েছে খুব। সাধারণ ক্রিকেট সমর্থকেরা তো ছিলেনই, শেবাগ-ঋষি কাপুরদের মতো তারকারাও এ নিয়ে মজা করেছেন। এখন সেই অপমানের তির ছুটে আসছে তাঁদের দিকেই।

আইসিসির ওয়ানডে র‍্যাঙ্কিংয়ের ৮ নম্বর দল হিসেবে চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে খেলতে এসেছিল পাকিস্তান। প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে হেরে গিয়েছিল ১২৪ রানের বড় ব্যবধানে। ভারত হয়তো ধরেই নিয়েছিল, চ্যাম্পিয়ন হওয়া সময়ের ব্যাপার। সামাজিক মাধ্যমেও ভারতীয় সমর্থকদের উল্লম্ফন এতটাই তীব্র ছিল, কিছু ভারতীয়ই এ নিয়ে প্রশ্ন করেছিলেন। বাড়াবাড়ি করতে বারণ করেছিলেন।
সুযোগ পেয়ে এখন পাকিস্তানের সমর্থকেরা পাল্টা নিচ্ছেন। পাকিস্তানের এক টেলিভিশন সাংবাদিক রীতিমতো অপমানই করলেন শেবাগদের কাছ থেকে ধার করে নেওয়া ভাষায়। আমির লিয়াকত নামের সেই সাংবাদিক বলেছেন, ‘ভারত এখন বুঝেছে কে বাপ কে ব্যাটা।’
লিয়াকত তাঁর ‘অ্যায়সা নেহি চালেগা’ (এটা চলবে না) অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়নস ট্রফির ফাইনালের পর ভারতের প্রতিটি মা তাদের বাচ্চাদের পাকিস্তানকে নিয়ে গল্প শোনাবে। সেই গল্পে থাকবে কীভাবে পাকিস্তান এসে তাদের দেশকে ১৮০ রানে হারিয়ে গিয়েছিল।’
লিয়াকত আরও বলেন, ‘ভারত ও এই “কাপুর”রা এখন বুঝেছে কে বাবা। আমরা ভারত ও কাপুরদের বুঝিয়ে দিয়েছি পাকিস্তানের জন্ম ১৪ আগস্ট আর বাবা দিবসটা আমাদেরই।’
আর তাঁর এই অনুষ্ঠানের কথাগুলো ভিডিওসহ প্রকাশ করেছে ভারতেরই মিডিয়া। ভাইরাল হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে। সেই সঙ্গে একই প্রশ্ন উঠে আসছে, খেলা নিয়ে অশালীন আক্রমণ আর কত? এভাবে জবাব-পাল্টা জবাব দেওয়া কি চলতেই থাকবে?

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X