বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:০৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, May 4, 2017 11:45 pm
A- A A+ Print

‘এভাবে ন্যায়বিচার নিশ্চিত সম্ভব নয়’

sk_sinha_46376_1493917287 (1)

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বলেছেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত না হলে দেশের ভবিষ্যত অন্ধকার। আইনের শাসন চলে গেলে আমরা সেই বর্বর যুগে ফিরে যাব, সমাজ-সভ্যতা ধ্বংস হয়ে যাবে। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় নওগাঁ সার্কিট হাউস মিলনায়তনে বিচার বিভাগীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। জেলা জজশিপ নওগাঁর আয়োজনে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আরিফুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে রেজিস্টার জেনারেল বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট সৈয়দ আমিনুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক ড. আমিনুর রহমান, পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী বকু, সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা, গণপূর্ত  অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী বাকী বিল্লাহ, জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সরদার সালাউদ্দীন মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক আবু বেলাল হোসেন জুয়েল, পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল খালেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। এ সময় জেলার সকল স্তরের বিচারকরা উপস্থিত ছিলেন। প্রধান বিচারপতি বলেন, 'বিজ্ঞানের উৎকর্ষতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরা আইনের শাসনকে আরও আধুনিক করতে চাই। এক্ষেত্রে রাজনীতিক, পুলিশ, প্রশাসন এবং প্রসিকিউশনকে একযোগে কাজ করতে হবে। বিচার বিভাগ, মানবাধিকার ও জনগণের নিরাপত্তা বিধানে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।' তিনি বলেন, 'আইনজীবী হওয়ার কারণে আমি প্রধান বিচারপতি হতে পেরেছি। সারা দেশের শতকরা ৮০ ভাগ মামলায় সরকার বাদী অথবা বিবাদী হিসেবে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত। পাবলিক প্রসিকিউটর, গর্ভমেন্ট লিডার কার্যে আইনজীবী নিয়োগ করা হয়।' প্রধান বিচারপতি বলেন, 'পিপি, জিপিসহ সরকারি আইনজীবী এবং প্লিডারদের যে সম্মানী দেয়া হয় তা সন্তোষজনক নয়। এজন্য তারা মামলা পরিচালনার সময় 'অন্যরকম' ভূমিকা নিয়ে থাকেন। অনেক সময় আমি পাবলিক প্রসিকিউটেরদের কক্ষে আসামি এবং তাদের লোকজনকে বসে থাকতে দেখি। এ রকম পরিস্থিতিতে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা সম্ভব হয় না।' বিভাগী সম্মেলনে বিচার বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে তা সমাধানের জন্য পরার্মশ দেন প্রধান বিচারপতি। তিনি তিন মাসের মধ্যে পুরাতন মামলা নিষ্পত্তি করার জন্য স্ব স্ব আদালতকে নিদের্শ দেন। এ সময় এসকে সিনহা মামলার ক্ষেত্রে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দেয়ার জন্য সিভিল সার্জনকে পরামশর্ দেন। এছাড়া প্রধান বিচারপতি নওগাঁ ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের কোনো নিজস্ব ভবন নেই জেনে তা অচিরেই নির্মাণের আশ্বাস দেন। এর আগে দুপুরে প্রধান বিচারপতি জেলা জজশিপের বিভিন্ন আদালত পরিদর্শন এবং আইনজীবীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

Comments

Comments!

 ‘এভাবে ন্যায়বিচার নিশ্চিত সম্ভব নয়’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘এভাবে ন্যায়বিচার নিশ্চিত সম্ভব নয়’

Thursday, May 4, 2017 11:45 pm
sk_sinha_46376_1493917287 (1)

প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা বলেছেন, আইনের শাসন প্রতিষ্ঠিত না হলে দেশের ভবিষ্যত অন্ধকার। আইনের শাসন চলে গেলে আমরা সেই বর্বর যুগে ফিরে যাব, সমাজ-সভ্যতা ধ্বংস হয়ে যাবে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টায় নওগাঁ সার্কিট হাউস মিলনায়তনে বিচার বিভাগীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জেলা জজশিপ নওগাঁর আয়োজনে সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আরিফুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে রেজিস্টার জেনারেল বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট সৈয়দ আমিনুল ইসলাম, জেলা প্রশাসক ড. আমিনুর রহমান, পুলিশ সুপার মোজাম্মেল হক, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট ফজলে রাব্বী বকু, সিভিল সার্জন ডা. রওশন আরা, গণপূর্ত  অধিদফতরের নির্বাহী প্রকৌশলী বাকী বিল্লাহ, জেলা বার অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি সরদার সালাউদ্দীন মিন্টু, সাধারণ সম্পাদক আবু বেলাল হোসেন জুয়েল, পাবলিক প্রসিকিউটর আব্দুল খালেদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

এ সময় জেলার সকল স্তরের বিচারকরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘বিজ্ঞানের উৎকর্ষতার সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরা আইনের শাসনকে আরও আধুনিক করতে চাই। এক্ষেত্রে রাজনীতিক, পুলিশ, প্রশাসন এবং প্রসিকিউশনকে একযোগে কাজ করতে হবে। বিচার বিভাগ, মানবাধিকার ও জনগণের নিরাপত্তা বিধানে সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘আইনজীবী হওয়ার কারণে আমি প্রধান বিচারপতি হতে পেরেছি। সারা দেশের শতকরা ৮০ ভাগ মামলায় সরকার বাদী অথবা বিবাদী হিসেবে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে জড়িত। পাবলিক প্রসিকিউটর, গর্ভমেন্ট লিডার কার্যে আইনজীবী নিয়োগ করা হয়।’

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘পিপি, জিপিসহ সরকারি আইনজীবী এবং প্লিডারদের যে সম্মানী দেয়া হয় তা সন্তোষজনক নয়। এজন্য তারা মামলা পরিচালনার সময় ‘অন্যরকম’ ভূমিকা নিয়ে থাকেন। অনেক সময় আমি পাবলিক প্রসিকিউটেরদের কক্ষে আসামি এবং তাদের লোকজনকে বসে থাকতে দেখি। এ রকম পরিস্থিতিতে ন্যায়বিচার নিশ্চিত করা সম্ভব হয় না।’

বিভাগী সম্মেলনে বিচার বিভাগের বিভিন্ন সমস্যা তুলে ধরে তা সমাধানের জন্য পরার্মশ দেন প্রধান বিচারপতি।

তিনি তিন মাসের মধ্যে পুরাতন মামলা নিষ্পত্তি করার জন্য স্ব স্ব আদালতকে নিদের্শ দেন।

এ সময় এসকে সিনহা মামলার ক্ষেত্রে ময়নাতদন্তের রিপোর্টের বিষয়ে অধিক গুরুত্ব দেয়ার জন্য সিভিল সার্জনকে পরামশর্ দেন।

এছাড়া প্রধান বিচারপতি নওগাঁ ম্যাজিস্ট্রেট কোর্টের কোনো নিজস্ব ভবন নেই জেনে তা অচিরেই নির্মাণের আশ্বাস দেন।

এর আগে দুপুরে প্রধান বিচারপতি জেলা জজশিপের বিভিন্ন আদালত পরিদর্শন এবং আইনজীবীদের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X