মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:৩৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, December 31, 2016 11:37 pm
A- A A+ Print

এমপি লিটন খুন: সুন্দরগঞ্জে বিক্ষোভ জামায়াত সমর্থকের দোকানে আগুন

165311_1

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা-১ আসনে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হয়েছেন। এ ঘটনায় সুন্দরগঞ্জে তীব্র উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। দলীয় নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন। উপজেলা সদরসহ তার গ্রামের বাড়ি শাহবাজ ও সংলগ্ন বামনডাঙ্গা এলাকায় দোকানপাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে। উত্তেজিত নেতাকর্মীরা হত্যাকাণ্ডের জন্য জামায়াত-শিবিরকে দায়ী করে স্লোগান দিচ্ছেন। মিছিল থেকে জামায়াত সমর্থক আব্দুল গোফ্ফারের দুটি ওষুধের দোকানে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে। নেতাকর্মীরা জানান, ‘এমপির নিরাপত্তার ব্যাপারে কোনো ধরনের ব্যবস্থা না নেয়ায় তাকে এভাবে প্রাণ দিতে হলো’। এমপির ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও তার কোল্ডস্টোরেজের ম্যানেজার অনিল সাহা ও এমপির শ্যালক আবু নাসের মিরান জানান, ‘সন্ধ্যা পৌনে ছয়টায় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন তার দ্বিতল বাসভবনের নিচ তলার বৈঠক খানায় বসে ৫/৬ জন নেতাকর্মীকে নিয়ে দলীয় সাংগঠনিক বিষয়ে কথা বলছিলেন। এসময় ৩ জন যুবক হেলমেট পড়া অবস্থায় একটি মোটরসাইকেলে করে তার বাসার সামনে আসে। তাদের একজন বাইরের আঙিনায় স্টার্ট দেয়া মোটরসাইকেলে বসে অবস্থান করছিল। অপর দুইজন এমপি লিটনের সাথে জরুরী কথা বলার অজুহাতে ঘরের ভেতরে ঢুকে তাকে লক্ষ্য করে খুব কাছ থেকে আকস্মিকভাবে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে। লিটন মাটিতে লুটিয়ে পড়েই অচেতন হয়ে যান। এসময় আততায়ীরা দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে মোটরসাইকেলে চড়ে পালিয়ে যায়। লিটনের স্ত্রী স্মৃতির বড় ভাই বদিউল কারিমিন বাদল জানান, ‘আততায়ীদের আসা এবং গুলি করার সময় এমপি লিটনের স্ত্রী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক খুরশিদ জাহান স্মৃতি রান্না ঘরে ব্যস্ত ছিলেন। গুলির আওয়াজ শুনে তিনি ছুটে এসে তার স্বামীকে মাটিতে লুটিয়ে পড়া অবস্থায় দেখতে পান। তার চিৎকারে আশেপাশের মানুষ ছুটে আসেন’। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘হামলাকারিরা এমপিকে লক্ষ্য করে ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। দুইটি গুলি তার বুকের দুই পাশে এবং অপরটি উঁরুতে বিদ্ধ হয়। এসময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। গুলির শব্দ শুনে বাড়ির এবং আশ-পাশের লোকজন ছুটে আসেন। তারা মোটরসাইকেল নিয়ে ৩ জন যুবককে পালাতে দেখেন কিন্তু তাদের হাতে উদ্যত রিভলভার থাকায় কেউ সামনে যেতে সাহস করেনি। তারা দ্রুত রাস্তায় উঠে বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়ক ধরে পালিয়ে যায়। ওই সময় অন্ধকার থাকায় কাউকে চেনা যায়নি। এছাড়া এমপির বাড়িতে পৌঁছানোর পর থেকে হত্যাকাণ্ড চালিয়ে পালানোর সময় পর্যন্ত হামলাকারীরা মাথা থেকে হেলমেটও খোলেনি। উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদ জানান, ‘জঙ্গিবাদ ও জামায়াত-শিবির বিরোধী অবস্থান নেয়ায় তিনি একটি মহলের রোষানলে পড়েন। তারাই লিটনকে হত্যা করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা গাইবান্ধা পৌর মেয়র অ্যাড. শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন বলেন, ‘সুন্দরগঞ্জের রাজনীতিতে মৌলবাদী চক্রের ধংসযজ্ঞের রাজনীতি মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে লিটনের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। সেই কারণেই আততায়ীরা তাকে টার্গেট করে হত্যা করেছে’। জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক জানান, ‘লিটনের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপির নেতৃত্বে একটি দল রবিবার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে আসছেন জানা গেছে’। গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ঘটনাস্থল থেকে দুটি গুলির খোসা পাওয়া গেছে। বিস্তারিত তদন্ত করে এ সম্পর্কে জানানো যাবে। পুলিশ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে। সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকে সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।
 

Comments

Comments!

 এমপি লিটন খুন: সুন্দরগঞ্জে বিক্ষোভ জামায়াত সমর্থকের দোকানে আগুনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

এমপি লিটন খুন: সুন্দরগঞ্জে বিক্ষোভ জামায়াত সমর্থকের দোকানে আগুন

Saturday, December 31, 2016 11:37 pm
165311_1

গাইবান্ধা: গাইবান্ধা-১ আসনে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ দলীয় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন সন্ধ্যায় নিজ বাড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে নিহত হয়েছেন।

এ ঘটনায় সুন্দরগঞ্জে তীব্র উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। দলীয় নেতাকর্মীরা বিক্ষোভ মিছিল করে হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন।

উপজেলা সদরসহ তার গ্রামের বাড়ি শাহবাজ ও সংলগ্ন বামনডাঙ্গা এলাকায় দোকানপাট ও যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে গেছে।

উত্তেজিত নেতাকর্মীরা হত্যাকাণ্ডের জন্য জামায়াত-শিবিরকে দায়ী করে স্লোগান দিচ্ছেন। মিছিল থেকে জামায়াত সমর্থক আব্দুল গোফ্ফারের দুটি ওষুধের দোকানে আগুন লাগিয়ে দিয়েছে।

নেতাকর্মীরা জানান, ‘এমপির নিরাপত্তার ব্যাপারে কোনো ধরনের ব্যবস্থা না নেয়ায় তাকে এভাবে প্রাণ দিতে হলো’।

এমপির ঘনিষ্ঠ সহযোগী ও তার কোল্ডস্টোরেজের ম্যানেজার অনিল সাহা ও এমপির শ্যালক আবু নাসের মিরান জানান, ‘সন্ধ্যা পৌনে ছয়টায় সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটন তার দ্বিতল বাসভবনের নিচ তলার বৈঠক খানায় বসে ৫/৬ জন নেতাকর্মীকে নিয়ে দলীয় সাংগঠনিক বিষয়ে কথা বলছিলেন।

এসময় ৩ জন যুবক হেলমেট পড়া অবস্থায় একটি মোটরসাইকেলে করে তার বাসার সামনে আসে। তাদের একজন বাইরের আঙিনায় স্টার্ট দেয়া মোটরসাইকেলে বসে অবস্থান করছিল। অপর দুইজন এমপি লিটনের সাথে জরুরী কথা বলার অজুহাতে ঘরের ভেতরে ঢুকে তাকে লক্ষ্য করে খুব কাছ থেকে আকস্মিকভাবে কয়েক রাউন্ড গুলি ছোড়ে।

লিটন মাটিতে লুটিয়ে পড়েই অচেতন হয়ে যান। এসময় আততায়ীরা দ্রুত ঘর থেকে বেরিয়ে মোটরসাইকেলে চড়ে পালিয়ে যায়।

লিটনের স্ত্রী স্মৃতির বড় ভাই বদিউল কারিমিন বাদল জানান, ‘আততায়ীদের আসা এবং গুলি করার সময় এমপি লিটনের স্ত্রী জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক খুরশিদ জাহান স্মৃতি রান্না ঘরে ব্যস্ত ছিলেন। গুলির আওয়াজ শুনে তিনি ছুটে এসে তার স্বামীকে মাটিতে লুটিয়ে পড়া অবস্থায় দেখতে পান। তার চিৎকারে আশেপাশের মানুষ ছুটে আসেন’।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ‘হামলাকারিরা এমপিকে লক্ষ্য করে ৩ রাউন্ড গুলি ছোড়ে। দুইটি গুলি তার বুকের দুই পাশে এবং অপরটি উঁরুতে বিদ্ধ হয়। এসময় তিনি মাটিতে লুটিয়ে পড়েন। গুলির শব্দ শুনে বাড়ির এবং আশ-পাশের লোকজন ছুটে আসেন।

তারা মোটরসাইকেল নিয়ে ৩ জন যুবককে পালাতে দেখেন কিন্তু তাদের হাতে উদ্যত রিভলভার থাকায় কেউ সামনে যেতে সাহস করেনি।

তারা দ্রুত রাস্তায় উঠে বামনডাঙ্গা-নলডাঙ্গা সড়ক ধরে পালিয়ে যায়। ওই সময় অন্ধকার থাকায় কাউকে চেনা যায়নি।

এছাড়া এমপির বাড়িতে পৌঁছানোর পর থেকে হত্যাকাণ্ড চালিয়ে পালানোর সময় পর্যন্ত হামলাকারীরা মাথা থেকে হেলমেটও খোলেনি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তফা আহমেদ জানান, ‘জঙ্গিবাদ ও জামায়াত-শিবির বিরোধী অবস্থান নেয়ায় তিনি একটি মহলের রোষানলে পড়েন। তারাই লিটনকে হত্যা করেছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

এ ব্যাপারে আওয়ামী লীগ নেতা গাইবান্ধা পৌর মেয়র অ্যাড. শাহ মাসুদ জাহাঙ্গীর কবির মিলন বলেন, ‘সুন্দরগঞ্জের রাজনীতিতে মৌলবাদী চক্রের ধংসযজ্ঞের রাজনীতি মোকাবিলা করার ক্ষেত্রে লিটনের বিশাল ভূমিকা রয়েছে। সেই কারণেই আততায়ীরা তাকে টার্গেট করে হত্যা করেছে’।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু বকর সিদ্দিক জানান, ‘লিটনের মৃত্যুর খবর পেয়ে ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক ও সাংগঠনিক সম্পাদক বিএম মোজাম্মেল হক এমপির নেতৃত্বে একটি দল রবিবার গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে আসছেন জানা গেছে’।

গাইবান্ধার পুলিশ সুপার মো. আশরাফুল ইসলাম বলেন, ‘খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ঘটনাস্থল থেকে দুটি গুলির খোসা পাওয়া গেছে। বিস্তারিত তদন্ত করে এ সম্পর্কে জানানো যাবে। পুলিশ হত্যাকারীদের গ্রেপ্তার করতে সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে।

সংসদ সদস্য মঞ্জুরুল ইসলাম লিটনকে সন্ধ্যা পৌনে ৭টার দিকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X