মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৫৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, May 5, 2017 12:02 am
A- A A+ Print

ওবামাকে না বলেছিলেন শিলা

64164_b3

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিয়ের প্রস্তাবে না বলেছিলেন শিলা মিয়োশি জ্যাগার নামের এক নারী। তাদের মধ্যে বেশ কিছুদিন সম্পর্কও ছিল। মিশেলের সঙ্গে প্রেম-বিয়ের আগে ওবামার পুরনো এই প্রেমের গল্প নতুন করে উঠে এসেছে সদ্যপ্রকাশিত একটি বইয়ে। ‘রাইজিং স্টার: মেকিং অব বারাক ওবামা’ শীর্ষক ওই বইটি লিখেছেন ডেভিড গ্যারো। এতে উঠে এসেছে ওবামা-শিলার প্রেমের গল্প। সময়টা আশির দশকের মাঝামাঝি। ওবামা সেসময় ছিলেন শিকাগোতে। সামাজিক নানা কাজকর্মে জড়িত ছিলেন। তখনই ওবামার হৃদয়ে কড়া নাড়ে প্রেম। ডাচ্‌ ও জাপানি বংশোদ্ভূত শিলা মিয়োশি জ্যাগারের প্রতি অনুরক্ত হয়ে পড়েন তিনি। ভালোলাগাটা এতো বেশি ছিল যে, সম্পর্কের শুরুর দিকেই বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন ওবামা। কিন্তু সেই প্রস্তাবে না বলে দেন শিলা। ওবামার প্রস্তাবে সায় দিলে তিনিই হতে পারতেন মার্কিন ফার্স্টলেডি। বিবিসি’র খবরে বলা হয়, ডেভিড গ্যারোর লেখা বইটি বারাক ওবামার নতুন এক জীবনীগ্রন্থ। এর অংশবিশেষ গতকাল বৃটেন ও আমেরিকার নানা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়। ওবামাকে শিলা কেন প্রত্যাখ্যান করেছিলেন, সে প্রশ্নের জবাবে শিলা জানান, তখন তার বয়স ছিল মাত্র ২৩। এতো অল্প বয়সে তার বিয়ে হোক এটা তার পিতা-মাতা চান নি। প্রথমবারের বিয়ের প্রস্তাব শিলা নাকচ করে দিলেও তাদের মধ্যে সম্পর্ক বিদ্যমান ছিল আরো কিছু সময়। পরবর্তীতে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে পড়াশোনার জন্য ভর্তি হন ওবামা। তখন দ্বিতীয় বারের মতো শিলাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। কিন্তু এবারও না করে দেন শিলা। দ্বিতীয় বার না করার কারণ ব্যাখ্যা করে শিলা বলেন, ততদিনে তাদের সম্পর্কের উষ্ণতা পড়তির দিকে। সে কারণে বিয়ের উৎসাহটা পান নি। তখনকার বারাক ওবামাকে নিয়ে শিলা বলেন, রাজনীতি নিয়ে অত্যন্ত উচ্চাভিলাষী ছিলেন ওবামা। প্রেসিডেন্ট হওয়ার বাসনাটাও তখনই তৈরি হয়েছিল তার মধ্যে। পরবর্তীতে এক পর্যায়ে দুজনের সম্পর্কের ইতি ঘটে। তার কয়েক মাস পর ওবামার সঙ্গে দেখা হয় তার ভবিষ্যৎ স্ত্রী মিশেলের সঙ্গে। ডেভিড গ্যারোর বইয়ের তথ্য অনুযায়ী, মিশেলের সঙ্গে সম্পর্ক শুরুর কয়েক পছর পর পর্যন্ত শিলার সঙ্গে যোগাযোগ ছিল ওবামার। আর বিয়ের আগে ওবামা তার জীবনের শিলা অধ্যায় নিয়ে মুখ খোলেন নি। ৫৩ বছর বয়সী শিলা এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন।

Comments

Comments!

 ওবামাকে না বলেছিলেন শিলাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ওবামাকে না বলেছিলেন শিলা

Friday, May 5, 2017 12:02 am
64164_b3

সাবেক মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার বিয়ের প্রস্তাবে না বলেছিলেন শিলা মিয়োশি জ্যাগার নামের এক নারী। তাদের মধ্যে বেশ কিছুদিন সম্পর্কও ছিল। মিশেলের সঙ্গে প্রেম-বিয়ের আগে ওবামার পুরনো এই প্রেমের গল্প নতুন করে উঠে এসেছে সদ্যপ্রকাশিত একটি বইয়ে। ‘রাইজিং স্টার: মেকিং অব বারাক ওবামা’ শীর্ষক ওই বইটি লিখেছেন ডেভিড গ্যারো। এতে উঠে এসেছে ওবামা-শিলার প্রেমের গল্প। সময়টা আশির দশকের মাঝামাঝি। ওবামা সেসময় ছিলেন শিকাগোতে। সামাজিক নানা কাজকর্মে জড়িত ছিলেন। তখনই ওবামার হৃদয়ে কড়া নাড়ে প্রেম। ডাচ্‌ ও জাপানি বংশোদ্ভূত শিলা মিয়োশি জ্যাগারের প্রতি অনুরক্ত হয়ে পড়েন তিনি। ভালোলাগাটা এতো বেশি ছিল যে, সম্পর্কের শুরুর দিকেই বিয়ের প্রস্তাব দিয়ে বসেন ওবামা। কিন্তু সেই প্রস্তাবে না বলে দেন শিলা। ওবামার প্রস্তাবে সায় দিলে তিনিই হতে পারতেন মার্কিন ফার্স্টলেডি। বিবিসি’র খবরে বলা হয়, ডেভিড গ্যারোর লেখা বইটি বারাক ওবামার নতুন এক জীবনীগ্রন্থ। এর অংশবিশেষ গতকাল বৃটেন ও আমেরিকার নানা গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়।
ওবামাকে শিলা কেন প্রত্যাখ্যান করেছিলেন, সে প্রশ্নের জবাবে শিলা জানান, তখন তার বয়স ছিল মাত্র ২৩। এতো অল্প বয়সে তার বিয়ে হোক এটা তার পিতা-মাতা চান নি। প্রথমবারের বিয়ের প্রস্তাব শিলা নাকচ করে দিলেও তাদের মধ্যে সম্পর্ক বিদ্যমান ছিল আরো কিছু সময়। পরবর্তীতে হার্ভার্ড ইউনিভার্সিটিতে আইন বিষয়ে পড়াশোনার জন্য ভর্তি হন ওবামা। তখন দ্বিতীয় বারের মতো শিলাকে বিয়ের প্রস্তাব দেন। কিন্তু এবারও না করে দেন শিলা। দ্বিতীয় বার না করার কারণ ব্যাখ্যা করে শিলা বলেন, ততদিনে তাদের সম্পর্কের উষ্ণতা পড়তির দিকে। সে কারণে বিয়ের উৎসাহটা পান নি। তখনকার বারাক ওবামাকে নিয়ে শিলা বলেন, রাজনীতি নিয়ে অত্যন্ত উচ্চাভিলাষী ছিলেন ওবামা। প্রেসিডেন্ট হওয়ার বাসনাটাও তখনই তৈরি হয়েছিল তার মধ্যে। পরবর্তীতে এক পর্যায়ে দুজনের সম্পর্কের ইতি ঘটে। তার কয়েক মাস পর ওবামার সঙ্গে দেখা হয় তার ভবিষ্যৎ স্ত্রী মিশেলের সঙ্গে। ডেভিড গ্যারোর বইয়ের তথ্য অনুযায়ী, মিশেলের সঙ্গে সম্পর্ক শুরুর কয়েক পছর পর পর্যন্ত শিলার সঙ্গে যোগাযোগ ছিল ওবামার। আর বিয়ের আগে ওবামা তার জীবনের শিলা অধ্যায় নিয়ে মুখ খোলেন নি।
৫৩ বছর বয়সী শিলা এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X