শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১০:১৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, September 9, 2016 3:19 pm
A- A A+ Print

ওয়ানডেতে যেসব পরিবর্তন আসতে পারে

945905c85e8489fa42ec67cbd84a713f-icc

কয়েক দিন আগেই একটা সাক্ষাৎকারে ওয়ানডে নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন রিকি পন্টিং। সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক সোজাসাপটাই বলে দিয়েছিলেন, পাঁচ ম্যাচের দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজের কোনো যৌক্তিকতা দেখেন না। বিশেষ করে যেখানে শেষের ম্যাচগুলো শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। বিষয়টি ভাবছে আইসিসিও। ওয়ানডে ক্রিকেটের বর্তমান পদ্ধতিটাও ঢেলে সাজানোর একটা উদ্যোগ নিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাত ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে নিশ্চিত করেছেন এসব। নতুন নিয়মে দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলো হবে ২০২৩ বিশ্বকাপের জন্য অলিখিত একটা বাছাইপর্ব। আইসিসির ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়া ১৩টি দেশ তিন বছরে একে অন্যের মুখোমুখি হবে। সবাই সবার সঙ্গে অন্তত একটা করে সিরিজ খেলবে। শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপে কারা খেলবে সেটা ঠিক হবে এই সিরিজগুলোর ফলের হিসেবে। আর শেষ বছরে যেসব দল বিশ্বকাপে সরাসরি অংশ নিতে পারবে না, তারা নিজেদের মধ্যে প্লে-অফ খেলবে। শুধু ওয়ানডে নয়, টি-টোয়েন্টিতেও একই ধরনের পদ্ধতি চালু হতে পারে। যার মানে বাংলাদেশের জন্য আরও বেশি সীমিত ওভারের ক্রিকেট থাকতে পারে। শুধু বাংলাদেশ নয়, তথাকথিত বড় দলগুলো যাদের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে আগ্রহী হয় না; তাদের বিপক্ষেও এখন অন্তত একটি সিরিজ খেলতেই হবে। বাংলাদেশই যেমন তিন বছরে ১২টি দলের বিপক্ষে খেলবে সিরিজ। অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডের মতো দলগুলোর বিপক্ষে নিয়​মিত খেলার সুযোগ পাবে। এখনকার সিরিজগুলোতে কটি ম্যাচ হবে তারও ঠিক নেই। তবে আইসিসি নিয়ম করে দিচ্ছে, প্রতিটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের করে। টেস্টে আইসিসির দুই স্তরের ক্রিকেটের পরিকল্পনা ভেস্তে গেলেও ওয়ানডেতে কাঠামোগত বেশ কিছু পরিবর্তন আসছে। আইসিসির নতুন প্রস্তাবে এখনকার ‘এফটিপিই’ থাকছে। অবশ্য বর্তমান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও একটি পরিবর্তন আসছে। দুই বছর পর পর র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দুই দেশ মুখোমুখি হবে। সেখান থেকেই নির্ধারণ করা হবে চ্যাম্পিয়ন। সেটি নিরপেক্ষ ভেন্যুতেই হওয়ার জন্য প্রস্তাব দিয়েছে আইসিসি। ২০১৯ সালের দিকে নতুন এই সংস্করণ শুরু হতে পারে।

Comments

Comments!

 ওয়ানডেতে যেসব পরিবর্তন আসতে পারেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ওয়ানডেতে যেসব পরিবর্তন আসতে পারে

Friday, September 9, 2016 3:19 pm
945905c85e8489fa42ec67cbd84a713f-icc

কয়েক দিন আগেই একটা সাক্ষাৎকারে ওয়ানডে নিয়ে শঙ্কার কথা জানিয়েছিলেন রিকি পন্টিং। সাবেক অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক সোজাসাপটাই বলে দিয়েছিলেন, পাঁচ ম্যাচের দ্বিপাক্ষিক ওয়ানডে সিরিজের কোনো যৌক্তিকতা দেখেন না। বিশেষ করে যেখানে শেষের ম্যাচগুলো শুধুই আনুষ্ঠানিকতা। বিষয়টি ভাবছে আইসিসিও। ওয়ানডে ক্রিকেটের বর্তমান পদ্ধতিটাও ঢেলে সাজানোর একটা উদ্যোগ নিয়েছে। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান নির্বাহী হারুন লরগাত ইএসপিএন ক্রিকইনফোকে নিশ্চিত করেছেন এসব।

নতুন নিয়মে দ্বিপাক্ষিক সিরিজগুলো হবে ২০২৩ বিশ্বকাপের জন্য অলিখিত একটা বাছাইপর্ব। আইসিসির ওয়ানডে স্ট্যাটাস পাওয়া ১৩টি দেশ তিন বছরে একে অন্যের মুখোমুখি হবে। সবাই সবার সঙ্গে অন্তত একটা করে সিরিজ খেলবে। শেষ পর্যন্ত বিশ্বকাপে কারা খেলবে সেটা ঠিক হবে এই সিরিজগুলোর ফলের হিসেবে। আর শেষ বছরে যেসব দল বিশ্বকাপে সরাসরি অংশ নিতে পারবে না, তারা নিজেদের মধ্যে প্লে-অফ খেলবে।
শুধু ওয়ানডে নয়, টি-টোয়েন্টিতেও একই ধরনের পদ্ধতি চালু হতে পারে। যার মানে বাংলাদেশের জন্য আরও বেশি সীমিত ওভারের ক্রিকেট থাকতে পারে। শুধু বাংলাদেশ নয়, তথাকথিত বড় দলগুলো যাদের বিপক্ষে সিরিজ খেলতে আগ্রহী হয় না; তাদের বিপক্ষেও এখন অন্তত একটি সিরিজ খেলতেই হবে। বাংলাদেশই যেমন তিন বছরে ১২টি দলের বিপক্ষে খেলবে সিরিজ। অস্ট্রেলিয়া, দক্ষিণ আফ্রিকা, নিউজিল্যান্ড, ইংল্যান্ডের মতো দলগুলোর বিপক্ষে নিয়​মিত খেলার সুযোগ পাবে। এখনকার সিরিজগুলোতে কটি ম্যাচ হবে তারও ঠিক নেই। তবে আইসিসি নিয়ম করে দিচ্ছে, প্রতিটি ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি সিরিজ হবে তিন ম্যাচের করে।
টেস্টে আইসিসির দুই স্তরের ক্রিকেটের পরিকল্পনা ভেস্তে গেলেও ওয়ানডেতে কাঠামোগত বেশ কিছু পরিবর্তন আসছে। আইসিসির নতুন প্রস্তাবে এখনকার ‘এফটিপিই’ থাকছে। অবশ্য বর্তমান টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপেও একটি পরিবর্তন আসছে। দুই বছর পর পর র‍্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষ দুই দেশ মুখোমুখি হবে। সেখান থেকেই নির্ধারণ করা হবে চ্যাম্পিয়ন। সেটি নিরপেক্ষ ভেন্যুতেই হওয়ার জন্য প্রস্তাব দিয়েছে আইসিসি। ২০১৯ সালের দিকে নতুন এই সংস্করণ শুরু হতে পারে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X