রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:৪৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, October 25, 2016 9:42 pm
A- A A+ Print

কাজের কথা বলে কিডনি নেওয়ার চেষ্টা, বাবা-ছেলেকে গণপিটুনি

photo-1477402043

মেহেরপুরের গাংনী পৌরশহরে গণপিটুনির শিকার সিরাজুল ইসলাম ভেকু (বাঁয়ে) ও তাঁর ছেলে হজরত আলী।
কাজ দেওয়ার কথা বলে মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার মানসিক প্রতিবন্ধী দুই ব্যক্তির কিডনি নেওয়ার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক বাবা ও তাঁর ছেলেকে পিটুনি দিয়েছে স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাঁদের উদ্ধার করে। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে এই ঘটনা ঘটে। গণপিটুনির শিকার দুজন হলেন গাংনী পৌরসভার গাড়াডোব হঠাৎপাড়ার সিরাজুল ইসলাম ভেকু (৫৮) ও তাঁর ছেলে হজরত আলী (৩৬)। স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হজরত আলী ও তাঁর বাবা সিরাজুল মিলে গাংনী শহরের বাজারপাড়ার গোলাম হোসেন ও শিশিরপাড়ার আতিয়ার রহমানকে প্রলোভন দেখান তাঁদের কাছে ছোট একটি কাজ আছে। কাজটি করলে দেড় হাজার টাকা, এক বস্তা চাল ও একটি করে লুঙ্গি পাওয়া যাবে। এই বলে গতকাল সকালে তাঁদের চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হাটবোয়ালিয়ায় নিয়ে যান। সেখান থেকে আলমডাঙ্গা ট্রেন স্টেশন থেকে গতকাল বিকেলে কৌশলে ট্রেনে করে তাঁদের রাজশাহী মহানগরে নেওয়া হয়। পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে আজ সকালে মহানগরের বর্ণালির মোড় এলাকায় ক্লিনিক সদৃশ একটি বাড়ি থেকে তাঁদের উদ্ধার করে এবং বাবা ও ছেলেকে গাংনীতে নিয়ে এসে পিটুনি দেয়। গোলাম হোসেনের বড় ভাই শ্যামলী পরিবহনের বাসচালক আবদুল মালেক জানান, গোলাম হোসেন ও আতিয়ার রহমান হালকা মানসিক প্রতিবন্ধী। তাঁদের ফুঁসলিয়ে কাজ দেওয়ার কথা বলে প্রথমে আলমডাঙ্গায় নেওয়া হয়। এরপর রাজশাহী নেওয়া হয়। তিনি গতকল রাতে রাজশাহীতে পৌঁছান। এরপর অন্যান্য পরিবহন শ্রমিকদের সহায়তায় আজ সকালে জানতে পারেন বর্ণালি মোড়ের একটি বাসায় তাঁর ভাই রয়েছেন। তিনি লোকজন নিয়ে সেখানে গিয়ে দেখতে পান, ভেতরে একটি ক্লিনিকের মতো আসবাবপত্র ও অস্ত্রোপচার কক্ষ। অথচ বাইরে কোনো সাইনবোর্ড বা চিহ্ন নেই। কেউ বুঝতেও পারবে না এখানে একটি ক্লিনিক আছে। তিনি সেখান থেকে তাঁর ভাই গোলাম হোসেন, আতিয়ার রহমান এবং বাবা-ছেলেকে নিয়ে বিকেলে গাংনী চলে আসেন। বিকেল ৪টার দিকে গাংনীতে বাস থেকে নামার পর পরই লোকজন সিরাজুল ও তাঁর ছেলেকে উত্তম-মধ্যম দেওয়া শুরু করে। খবর পেয়ে ছুটে আসেন পুলিশ সদস্যরা। আলমডাঙ্গায় কাজ দেওয়ার কথা বলে দুজনকে রাজশাহীর ক্লিনিকে নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে সিরাজুল ইসলাম ভেকু বলেন, এ ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। তাঁর ছেলে হজরত আলী সব জানে। হজরত আলী মারধরে আহত হওয়ায় কথা বলতে পারেননি। এ ব্যাপারে গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, দুজনকে কিডনি বিক্রির জন্য নেওয়া হয়েছিল না অন্যকিছু তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রকৃত ঘটনা বের করার চেষ্টা চলছে।

Comments

Comments!

 কাজের কথা বলে কিডনি নেওয়ার চেষ্টা, বাবা-ছেলেকে গণপিটুনিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

কাজের কথা বলে কিডনি নেওয়ার চেষ্টা, বাবা-ছেলেকে গণপিটুনি

Tuesday, October 25, 2016 9:42 pm
photo-1477402043

মেহেরপুরের গাংনী পৌরশহরে গণপিটুনির শিকার সিরাজুল ইসলাম ভেকু (বাঁয়ে) ও তাঁর ছেলে হজরত আলী।

কাজ দেওয়ার কথা বলে মেহেরপুরের গাংনী পৌরসভার মানসিক প্রতিবন্ধী দুই ব্যক্তির কিডনি নেওয়ার চেষ্টা করেছে দুর্বৃত্তরা। এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে এক বাবা ও তাঁর ছেলেকে পিটুনি দিয়েছে স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ এসে তাঁদের উদ্ধার করে। আজ মঙ্গলবার বিকেল ৪টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।

গণপিটুনির শিকার দুজন হলেন গাংনী পৌরসভার গাড়াডোব হঠাৎপাড়ার সিরাজুল ইসলাম ভেকু (৫৮) ও তাঁর ছেলে হজরত আলী (৩৬)।

স্থানীয় একাধিক ব্যক্তির সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, হজরত আলী ও তাঁর বাবা সিরাজুল মিলে গাংনী শহরের বাজারপাড়ার গোলাম হোসেন ও শিশিরপাড়ার আতিয়ার রহমানকে প্রলোভন দেখান তাঁদের কাছে ছোট একটি কাজ আছে। কাজটি করলে দেড় হাজার টাকা, এক বস্তা চাল ও একটি করে লুঙ্গি পাওয়া যাবে। এই বলে গতকাল সকালে তাঁদের চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হাটবোয়ালিয়ায় নিয়ে যান। সেখান থেকে আলমডাঙ্গা ট্রেন স্টেশন থেকে গতকাল বিকেলে কৌশলে ট্রেনে করে তাঁদের রাজশাহী মহানগরে নেওয়া হয়। পরিবারের লোকজন খবর পেয়ে আজ সকালে মহানগরের বর্ণালির মোড় এলাকায় ক্লিনিক সদৃশ একটি বাড়ি থেকে তাঁদের উদ্ধার করে এবং বাবা ও ছেলেকে গাংনীতে নিয়ে এসে পিটুনি দেয়।

গোলাম হোসেনের বড় ভাই শ্যামলী পরিবহনের বাসচালক আবদুল মালেক জানান, গোলাম হোসেন ও আতিয়ার রহমান হালকা মানসিক প্রতিবন্ধী। তাঁদের ফুঁসলিয়ে কাজ দেওয়ার কথা বলে প্রথমে আলমডাঙ্গায় নেওয়া হয়। এরপর রাজশাহী নেওয়া হয়। তিনি গতকল রাতে রাজশাহীতে পৌঁছান। এরপর অন্যান্য পরিবহন শ্রমিকদের সহায়তায় আজ সকালে জানতে পারেন বর্ণালি মোড়ের একটি বাসায় তাঁর ভাই রয়েছেন। তিনি লোকজন নিয়ে সেখানে গিয়ে দেখতে পান, ভেতরে একটি ক্লিনিকের মতো আসবাবপত্র ও অস্ত্রোপচার কক্ষ। অথচ বাইরে কোনো সাইনবোর্ড বা চিহ্ন নেই। কেউ বুঝতেও পারবে না এখানে একটি ক্লিনিক আছে। তিনি সেখান থেকে তাঁর ভাই গোলাম হোসেন, আতিয়ার রহমান এবং বাবা-ছেলেকে নিয়ে বিকেলে গাংনী চলে আসেন।

বিকেল ৪টার দিকে গাংনীতে বাস থেকে নামার পর পরই লোকজন সিরাজুল ও তাঁর ছেলেকে উত্তম-মধ্যম দেওয়া শুরু করে। খবর পেয়ে ছুটে আসেন পুলিশ সদস্যরা।

আলমডাঙ্গায় কাজ দেওয়ার কথা বলে দুজনকে রাজশাহীর ক্লিনিকে নেওয়ার কারণ জানতে চাইলে সিরাজুল ইসলাম ভেকু বলেন, এ ব্যাপারে তিনি কিছু জানেন না। তাঁর ছেলে হজরত আলী সব জানে।

হজরত আলী মারধরে আহত হওয়ায় কথা বলতে পারেননি।

এ ব্যাপারে গাংনী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন জানান, দুজনকে কিডনি বিক্রির জন্য নেওয়া হয়েছিল না অন্যকিছু তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করে প্রকৃত ঘটনা বের করার চেষ্টা চলছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X