মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:৪৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, June 13, 2017 12:09 am
A- A A+ Print

কাতারে সেনা পাঠাচ্ছে পাকিস্তান!

176547_1

ইসলামাবাদ: তুরস্কের পথ ধরে পাকিস্তানও কাতারে সামরিক কনটিনজেন্ট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই কনটিনজেন্টের অধীনে ২০ হাজার সেনা পাঠানো হতে পারে বলে তুরস্কের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত মিডিয়া গ্রুপ টিআরটি’র উর্দু পোর্টালের বরাত দিয়ে মিডিল ইস্ট অবজারভার খবর প্রকাশ করে। খবরে বলা হয়, কাতারে ২০ হাজার সেনা পাঠানোর একটি বিল পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ অনুমোদন করে। এই বিল পাসের পর পাকিস্তান মধ্যপ্রাচ্যের বিবাদমান পক্ষগুলোর প্রতি আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধান খুঁজে বের করার আহ্বান জানায়। তবে, চলমান সৌদি-কাতার বিরোধে পাকিস্তান সেনা পাঠিয়ে কোনো পক্ষে অবস্থান নেবে কিনা সে বিষয়ে অনেক পর্যবেক্ষক সন্দেহ প্রকাশ করেন বলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ইন্টারনেটভিত্তিক ফোরাম ডিফেন্স.পাক সন্দেহ প্রকাশ করে। অন্যদিকে, পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সিদ্ধান্ত সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটে পাকিস্তানের ভূমিকার ওপর কি প্রভাব পড়বে তাও পরিষ্কার নয়। এই জোটের নেতৃত্ব দিচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক সেনা প্রধান অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল রাহিল শরিফ। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পাকিস্তানের মিডিয়াগুলোতে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, এই জোটকে অন্যায্যভাবে ইরান ও অন্য কোনো মুসলিম দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার প্রচেষ্টা নিয়ে রাহিল শরিফ খুশি নন। তিনি দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন বলেও জল্পনা চলছে। সম্প্রতি সৌদি আরবে যুক্তরাষ্ট্র-সৌদি-ইসলামী সম্মেলনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শীতল ব্যবহার করে স্বাগতিকরা। তাকে এমনভাবে মূল্যায়ন করা হয় যেন তিনি ‘কেউ নন’ এবং তাকে সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে দেয়া হয়নি। অথচ এই বক্তব্য রাখার জন্য তিনি বেশ কয়েক ঘন্টা অনুশীল করেন বলেও সংবাদ মাধ্যমের সূত্রগুলো জানায়। কাতার সফরের পরিকল্পনা নওয়াজের এদিকে কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় অনুষ্ঠিত সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও)’র শীর্ষ সম্মেলন থেকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ মধ্যপ্রাচ্য সংকট নিরসন চেষ্টা অংশ হিসেবে কাতার ও কুয়েত সফর করবেন বলে জানা গেছে। এসসিও’র দুদিনব্যাপী সম্মেলন শুক্রবার (৯ জুন) শেষ হয়। আস্তানায় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যকালে শরিফ বলেন, সৌদি আরব, ইরান ও কাতারের সঙ্গে পাকিস্তানের সুসম্পর্ক রয়েছে। তাই আরব দেশগুলোর মধ্যে মতপার্থক্য নিরসনে আমরা আমাদের সবকিছু দিয়ে চেষ্টা করবো। এক্সপ্রেস ট্রিবিউন পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, আরব উপসাগরীয় অঞ্চলে সৃষ্ট কূটনৈতিক সঙ্কট নিরসনে মুসলিম বিশ্বকে ভূমিকা পালন করতে হবে বলে শরিফ উল্লেখ করেছেন। কাতারে সেনা মোতায়েন করবে তুরস্ক এর আগে ৮ জুন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান কাতারে সেনা মোতায়েনের ব্যাপারে দেশের পার্লামেন্টে পাস হওয়া বিল অনুমোদন করেছেন। ২০১৫ সালে কাতারের সঙ্গে তুরস্কের যে সামরিক ঘাঁটি কাঠামো চুক্তি স্বাক্ষর হয় তার আওতায় সেখানে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির পার্লামেন্ট। আল-জাজিরা লিখেছে, কাতারকে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিকভাবে বিচ্ছিন্ন করতে মধ্যপ্রচ্যের কয়েকটি বড় দেশের প্রচেষ্টার মুখে দোহাকে সমর্থন দানে তুরস্কের এই সিদ্ধান্তের প্রভাব হবে সুদূর প্রসারি। তুরস্কের প্রেসিডেন্ট কাতারকে একঘরে করতে আরব দেশগুলোর প্রচেষ্টার তীব্র সমালোচনা করেন। কাতারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে তা সমস্যার সমাধান করবে না বলে তিনি সতর্ক করে দেন। সংকট নিরসনে আঙ্কারা সম্ভাব্য সবকিছু করবে বলেও জানান তিনি। সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর

Comments

Comments!

 কাতারে সেনা পাঠাচ্ছে পাকিস্তান!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

কাতারে সেনা পাঠাচ্ছে পাকিস্তান!

Tuesday, June 13, 2017 12:09 am
176547_1

ইসলামাবাদ: তুরস্কের পথ ধরে পাকিস্তানও কাতারে সামরিক কনটিনজেন্ট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এই কনটিনজেন্টের অধীনে ২০ হাজার সেনা পাঠানো হতে পারে বলে তুরস্কের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত মিডিয়া গ্রুপ টিআরটি’র উর্দু পোর্টালের বরাত দিয়ে মিডিল ইস্ট অবজারভার খবর প্রকাশ করে।

খবরে বলা হয়, কাতারে ২০ হাজার সেনা পাঠানোর একটি বিল পাকিস্তান জাতীয় পরিষদ অনুমোদন করে। এই বিল পাসের পর পাকিস্তান মধ্যপ্রাচ্যের বিবাদমান পক্ষগুলোর প্রতি আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধান খুঁজে বের করার আহ্বান জানায়।

তবে, চলমান সৌদি-কাতার বিরোধে পাকিস্তান সেনা পাঠিয়ে কোনো পক্ষে অবস্থান নেবে কিনা সে বিষয়ে অনেক পর্যবেক্ষক সন্দেহ প্রকাশ করেন বলে পাকিস্তান সেনাবাহিনীর ইন্টারনেটভিত্তিক ফোরাম ডিফেন্স.পাক সন্দেহ প্রকাশ করে।

অন্যদিকে, পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের সিদ্ধান্ত সৌদি নেতৃত্বাধীন সামরিক জোটে পাকিস্তানের ভূমিকার ওপর কি প্রভাব পড়বে তাও পরিষ্কার নয়। এই জোটের নেতৃত্ব দিচ্ছেন পাকিস্তানের সাবেক সেনা প্রধান অবসরপ্রাপ্ত জেনারেল রাহিল শরিফ।

গত কয়েক সপ্তাহ ধরে পাকিস্তানের মিডিয়াগুলোতে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, এই জোটকে অন্যায্যভাবে ইরান ও অন্য কোনো মুসলিম দেশের বিরুদ্ধে ব্যবহার প্রচেষ্টা নিয়ে রাহিল শরিফ খুশি নন। তিনি দায়িত্ব ছেড়ে দেবেন বলেও জল্পনা চলছে।

সম্প্রতি সৌদি আরবে যুক্তরাষ্ট্র-সৌদি-ইসলামী সম্মেলনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর প্রতি শীতল ব্যবহার করে স্বাগতিকরা। তাকে এমনভাবে মূল্যায়ন করা হয় যেন তিনি ‘কেউ নন’ এবং তাকে সম্মেলনে বক্তব্য রাখতে দেয়া হয়নি। অথচ এই বক্তব্য রাখার জন্য তিনি বেশ কয়েক ঘন্টা অনুশীল করেন বলেও সংবাদ মাধ্যমের সূত্রগুলো জানায়।

কাতার সফরের পরিকল্পনা নওয়াজের

এদিকে কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায় অনুষ্ঠিত সাংহাই কোঅপারেশন অর্গানাইজেশন (এসসিও)’র শীর্ষ সম্মেলন থেকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ মধ্যপ্রাচ্য সংকট নিরসন চেষ্টা অংশ হিসেবে কাতার ও কুয়েত সফর করবেন বলে জানা গেছে। এসসিও’র দুদিনব্যাপী সম্মেলন শুক্রবার (৯ জুন) শেষ হয়।

আস্তানায় সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বক্তব্যকালে শরিফ বলেন, সৌদি আরব, ইরান ও কাতারের সঙ্গে পাকিস্তানের সুসম্পর্ক রয়েছে। তাই আরব দেশগুলোর মধ্যে মতপার্থক্য নিরসনে আমরা আমাদের সবকিছু দিয়ে চেষ্টা করবো।

এক্সপ্রেস ট্রিবিউন পত্রিকার প্রতিবেদনে বলা হয়, আরব উপসাগরীয় অঞ্চলে সৃষ্ট কূটনৈতিক সঙ্কট নিরসনে মুসলিম বিশ্বকে ভূমিকা পালন করতে হবে বলে শরিফ উল্লেখ করেছেন।

কাতারে সেনা মোতায়েন করবে তুরস্ক

এর আগে ৮ জুন তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান কাতারে সেনা মোতায়েনের ব্যাপারে দেশের পার্লামেন্টে পাস হওয়া বিল অনুমোদন করেছেন।

২০১৫ সালে কাতারের সঙ্গে তুরস্কের যে সামরিক ঘাঁটি কাঠামো চুক্তি স্বাক্ষর হয় তার আওতায় সেখানে সেনা মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয় দেশটির পার্লামেন্ট।

আল-জাজিরা লিখেছে, কাতারকে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিকভাবে বিচ্ছিন্ন করতে মধ্যপ্রচ্যের কয়েকটি বড় দেশের প্রচেষ্টার মুখে দোহাকে সমর্থন দানে তুরস্কের এই সিদ্ধান্তের প্রভাব হবে সুদূর প্রসারি।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট কাতারকে একঘরে করতে আরব দেশগুলোর প্রচেষ্টার তীব্র সমালোচনা করেন। কাতারের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে তা সমস্যার সমাধান করবে না বলে তিনি সতর্ক করে দেন। সংকট নিরসনে আঙ্কারা সম্ভাব্য সবকিছু করবে বলেও জানান তিনি।

সূত্র: সাউথ এশিয়ান মনিটর

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X