শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:১০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, November 12, 2016 11:15 am
A- A A+ Print

কী ভাবছেন ট্রাম্পের স্ত্রীর বন্ধুরা

160853_1

ওয়াশিংটন: যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে তিনি দায়িত্ব নেবেন জানুয়ারি মাস থেকে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া পাবেন ফার্স্ট লেডির মর্যাদা। মেলানিয়ার জন্ম স্লোভেনিয়ায়। ট্রাম্পের স্ত্রী হওয়ার আগে তার নাম ছিলো মেলানিয়া নেভস। তিনি ছিলেন স্লোভেনিয়ার শেভনিকার বাসিন্দা। তখন অবশ্য দেশটির নাম ছিলো যুগোশ্লাভিয়া। ২০০৫ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বিয়ে হয় এই প্রাক্তন মডেলের। নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পরপরই নিজ শহর শেভনিকা আনন্দনগরীতে রূপান্তরিত হয়। এই শহরেই বড় হয়েছেন মেলানিয়া। তাই এখানকার বাসিন্দাদের আনন্দটা একটু বেশি ছিল। ফার্স্ট লেডি হওয়ার খবরে এখানে অনেকেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে মেলানিয়ার শৈশবের বন্ধুরাও ছিল সেই তালিকায়। তো মেলানিয়ার বন্ধুরা কী ভাবছেন ফার্স্ট লেডি হওয়ার খবরে। এ নিয়েই এ আয়োজন। মিরজানা, প্রতিবেশী মেলানিয়ার বাল্যবন্ধু। এখন সে একটি স্কুলের অধ্যক্ষ। সেদিন বিজয় উৎসবে মিরজানাও যোগ দিয়েছিলেন। মিরজানা বলেন, ‘আমি তার জন্য (মেলানিয়া) খুবই হ্যাপি। সে আমার খুব ভালো বন্ধু। দুঃখজনক হলেও সত্য তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। কিন্তু আমি আশা করব, আবার আমাদের মধ্যে যোগাযোগ শুরু হবে। মেলানিয়া খুবই ভালো ব্যক্তি। বিনয়ী, জ্ঞানী। সে ট্রেডিশনাল ও শিক্ষিত।’ জলাতা, প্রতিবেশী মেলানিয়ার সৌন্দর্য অসাধারণ, ঠিক শিশুরা যেমন সুন্দর। মেলানিয়া ঠিক মডেলের মতো। মেলানিয়ার মায়ের বয়স এখন ৭৩ বছর, কিন্তু এখনো দেখতে সুন্দরী। ট্রাম্প যখন এখানে আসবেন ঠিক তখন ওয়াইন ও সসেজ খাওয়া উচিত। এখানকার ওয়াইন আর সসেজ যে কত সুন্দর তা মার্কিন প্রেসিডেন্টের জানা দরকার। আমার ধারণা, শেভনিকায় পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। জনগণ অবশেষে জানবে যে শেভনিকা স্লোভাকিয়া নয়।’ নিনা বেদেক, শিক্ষক ও শিল্পী তার জয় আমি চেয়েছিলাম। সত্যিই তিনি (ট্রাম্প) জিতেছেন। তার জন্য আমি খুবই খুশি। মেলানিয়া আমার একজন ভালো বন্ধু ছিল। আমি আজ স্কুলে এসেছিলাম, বাচ্চারা জিজ্ঞেস করল, আমি টিভিতে দেখেছি কিনা, আমি আশা করি সে (মেলানিয়া) আমাদের সম্পর্ক ভুলবে না। রেনাতা কুহার, স্থানীয় পর্যটক গাইড আমি বিস্মিত কারণ, প্রচার অভিযানের কারণে তিনি জিতবেন আমি আশাই করিনি। আমি মেলানিয়ার জন্য খুশী। জীবনে প্রথমবারের মতো সকাল ৬টায় উঠেছিলাম সেদিন। আমি আশা করি পৃথিবীর মানুষ আমাদের এখানে আসবে, পরিদর্শন করবে। ডেভিড কজিঙ্ক, ওয়াইন বিক্রেতা আমাদের জন্য ইহা খুবই ভালো খবর, মেলানিয়ার জন্যও। আমাদের শহরটাও খুব সুন্দর, ওয়াইনও ভালো। ট্রাম্পের জন্য আমরা সম্ভবত ওয়াইন তৈরি করতে পারব। ইহা খুবই ভালো যে মানুষ জানবে শেভনিকা কত সুন্দর শহর। রোমান স্মিড, ট্রেন কন্ডাকটর মেলানিয়া যেন শেভনিকার রাস্তা ভুলে না যায়। আমি ক্লিনটনের চেয়ে ট্রাম্পকে বেশি পছন্দ করি। আমি আশা করব তিনি শেভনিকার উন্নয়ন করবে, বেশি পর্যটক এখানে আসবে। মেলানিয়া যেন হোয়াইট হাউসে বসে শেভনিকার কথা ভুলে না যায়। তাতজনা সিনকোভেক, স্থানীয় জুতা কারিগর মেলানিয়ার জন্য আমরা গর্বিত। আশা করি সে অনেক সাফল্য পাবে। আমি অলরেডি মেলানিয়ার জন্য নতুন জুতার ডিজাইন করেছি। যে জুতা পায়ে দিয়ে সে হোয়াইট হাউসে যাবে।
 

Comments

Comments!

 কী ভাবছেন ট্রাম্পের স্ত্রীর বন্ধুরাAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

কী ভাবছেন ট্রাম্পের স্ত্রীর বন্ধুরা

Saturday, November 12, 2016 11:15 am
160853_1

ওয়াশিংটন: যুক্তরাষ্ট্রের ৪৫তম প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন রিপাবলিকান পার্টির প্রার্থী ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে তিনি দায়িত্ব নেবেন জানুয়ারি মাস থেকে। ডোনাল্ড ট্রাম্পের স্ত্রী মেলানিয়া পাবেন ফার্স্ট লেডির মর্যাদা।

মেলানিয়ার জন্ম স্লোভেনিয়ায়। ট্রাম্পের স্ত্রী হওয়ার আগে তার নাম ছিলো মেলানিয়া নেভস। তিনি ছিলেন স্লোভেনিয়ার শেভনিকার বাসিন্দা। তখন অবশ্য দেশটির নাম ছিলো যুগোশ্লাভিয়া।

২০০৫ সালে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বিয়ে হয় এই প্রাক্তন মডেলের। নির্বাচনে বিজয়ী হওয়ার পরপরই নিজ শহর শেভনিকা আনন্দনগরীতে রূপান্তরিত হয়। এই শহরেই বড় হয়েছেন মেলানিয়া। তাই এখানকার বাসিন্দাদের আনন্দটা একটু বেশি ছিল। ফার্স্ট লেডি হওয়ার খবরে এখানে অনেকেই উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছেন। বিশেষ করে মেলানিয়ার শৈশবের বন্ধুরাও ছিল সেই তালিকায়। তো মেলানিয়ার বন্ধুরা কী ভাবছেন ফার্স্ট লেডি হওয়ার খবরে। এ নিয়েই এ আয়োজন।

মিরজানা, প্রতিবেশী

মেলানিয়ার বাল্যবন্ধু। এখন সে একটি স্কুলের অধ্যক্ষ। সেদিন বিজয় উৎসবে মিরজানাও যোগ দিয়েছিলেন। মিরজানা বলেন, ‘আমি তার জন্য (মেলানিয়া) খুবই হ্যাপি। সে আমার খুব ভালো বন্ধু। দুঃখজনক হলেও সত্য তার সঙ্গে আমার যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। কিন্তু আমি আশা করব, আবার আমাদের মধ্যে যোগাযোগ শুরু হবে। মেলানিয়া খুবই ভালো ব্যক্তি। বিনয়ী, জ্ঞানী। সে ট্রেডিশনাল ও শিক্ষিত।’

জলাতা, প্রতিবেশী

মেলানিয়ার সৌন্দর্য অসাধারণ, ঠিক শিশুরা যেমন সুন্দর। মেলানিয়া ঠিক মডেলের মতো। মেলানিয়ার মায়ের বয়স এখন ৭৩ বছর, কিন্তু এখনো দেখতে সুন্দরী। ট্রাম্প যখন এখানে আসবেন ঠিক তখন ওয়াইন ও সসেজ খাওয়া উচিত। এখানকার ওয়াইন আর সসেজ যে কত সুন্দর তা মার্কিন প্রেসিডেন্টের জানা দরকার। আমার ধারণা, শেভনিকায় পর্যটকদের কাছে আরো আকর্ষণীয় হয়ে উঠবে। জনগণ অবশেষে জানবে যে শেভনিকা স্লোভাকিয়া নয়।’

নিনা বেদেক, শিক্ষক ও শিল্পী

তার জয় আমি চেয়েছিলাম। সত্যিই তিনি (ট্রাম্প) জিতেছেন। তার জন্য আমি খুবই খুশি। মেলানিয়া আমার একজন ভালো বন্ধু ছিল। আমি আজ স্কুলে এসেছিলাম, বাচ্চারা জিজ্ঞেস করল, আমি টিভিতে দেখেছি কিনা, আমি আশা করি সে (মেলানিয়া) আমাদের সম্পর্ক ভুলবে না।

রেনাতা কুহার, স্থানীয় পর্যটক গাইড

আমি বিস্মিত কারণ, প্রচার অভিযানের কারণে তিনি জিতবেন আমি আশাই করিনি। আমি মেলানিয়ার জন্য খুশী। জীবনে প্রথমবারের মতো সকাল ৬টায় উঠেছিলাম সেদিন। আমি আশা করি পৃথিবীর মানুষ আমাদের এখানে আসবে, পরিদর্শন করবে।

ডেভিড কজিঙ্ক, ওয়াইন বিক্রেতা

আমাদের জন্য ইহা খুবই ভালো খবর, মেলানিয়ার জন্যও। আমাদের শহরটাও খুব সুন্দর, ওয়াইনও ভালো। ট্রাম্পের জন্য আমরা সম্ভবত ওয়াইন তৈরি করতে পারব। ইহা খুবই ভালো যে মানুষ জানবে শেভনিকা কত সুন্দর শহর।

রোমান স্মিড, ট্রেন কন্ডাকটর

মেলানিয়া যেন শেভনিকার রাস্তা ভুলে না যায়। আমি ক্লিনটনের চেয়ে ট্রাম্পকে বেশি পছন্দ করি। আমি আশা করব তিনি শেভনিকার উন্নয়ন করবে, বেশি পর্যটক এখানে আসবে। মেলানিয়া যেন হোয়াইট হাউসে বসে শেভনিকার কথা ভুলে না যায়।

তাতজনা সিনকোভেক, স্থানীয় জুতা কারিগর

মেলানিয়ার জন্য আমরা গর্বিত। আশা করি সে অনেক সাফল্য পাবে। আমি অলরেডি মেলানিয়ার জন্য নতুন জুতার ডিজাইন করেছি। যে জুতা পায়ে দিয়ে সে হোয়াইট হাউসে যাবে।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X