সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৪১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, September 20, 2016 6:37 pm
A- A A+ Print

কে এই রাজীব গান্ধী?

244709_1

নব্য জেএমবি’র হামলা ও নাশকতায় দক্ষ জঙ্গি সরবরাহ করাই তার মূল দায়িত্ব। তার আগে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ ও বাসস্থানও নিশ্চিত করে সে। সংগঠনে তার নাম রাজীব গান্ধী ওরফে সুভাষ গান্ধী ওরফে গান্ধী ওরফে শান্ত ওরফে আদিল।গুলশান ও শোলাকিয়া হামলায় তিন জঙ্গিকে সে উত্তরাঞ্চল থেকে পাঠিয়েছিল। পুলিশ তাকে গ্রেফতারে হন্য হয়ে খুঁজছে।তার আসল পরিচয় কী? তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন,সে বাংলাদেশের উত্তারাঞ্চলে থাকতে পারে। কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান ও ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ‘রাজীব গান্ধী ওরফে সুভাষ গান্ধী ওরফে গান্ধী ওরফে আদিল ওরফে শান্ত নব্য জেএমবি’র উত্তরবঙ্গের কমান্ডার ছিল। গুলশান ও শোলাকিয়ার হামলায় সে সন্ত্রাসী পাঠিয়েছিল। যখন কোনও হামলায় দক্ষ সন্ত্রাসীর প্রয়োজন হয়, তখন সে তা সরবরাহ করে।’ তিনি বলেন, ‘গুলশানে দুজন এবং শোলাকিয়ায় একজন সন্ত্রাসী পাঠিয়েছিল এই গান্ধী। সে উত্তরাঞ্চলের কোথাও আত্মগোপন করে আছে বলে ধারণা করছি।’ রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একের পর এক অভিযানে জেএমবির কমান্ডার গ্রেফতার ও নিহত হওয়ার পর রাজীব গান্ধীর ওপরে ঢাকায় হামলা চালানোর দায়িত্ব আসে। গুলশান হামলার আগে একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনেও রাজীব গান্ধীর কথা বলা হয়েছিল। গত ২৭ জুন দেওয়া ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, উত্তরাঞ্চলের জঙ্গি অধ্যুষিত জেলায় পুলিশের টানা অভিযানে জেএমবির সদস্যরা ওই অঞ্চল ছাড়তে বাধ্য হয়। এসময় একটি গ্রুপ ঢাকা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ অঞ্চলে আশ্রয় নেয়।এই গ্রুপের দলনেতা রাজীব গান্ধী ওরফে শান্ত ওরফে সুভাষ ওরফে আদিল। গুলশান ও শোলাকিয়ার হামলা মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন,‘নুরুল ইসলাম মারজান জেএমবির সর্বকনিষ্ঠ কমান্ডার। বয়সে ছোট হলেও সংগঠনে তার আধিপত্য রয়েছে। সে সদস্য সংগ্রহ করে থাকে। অপরদিকে রাজীব গান্ধী সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। হামলার আগে সে নির্ধারণ করে দেয় কোন কোন প্রশিক্ষিত জঙ্গি অংশ নেবে। সে প্রশিক্ষিতদের সরবরাহ করে থাকে।’ রাজীব গান্ধী আর নুরুল ইসলাম মারজান দেশেই আছে বলে জানিয়েছেন মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘তারা হয়তো উত্তরাঞ্চলের কোথাও লুকিয়ে আছে। আমরা তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা করছি।’
উৎসঃ   বাংলা ট্রিবিউন

Comments

Comments!

 কে এই রাজীব গান্ধী?AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

কে এই রাজীব গান্ধী?

Tuesday, September 20, 2016 6:37 pm
244709_1

নব্য জেএমবি’র হামলা ও নাশকতায় দক্ষ জঙ্গি সরবরাহ করাই তার মূল দায়িত্ব। তার আগে জঙ্গিদের প্রশিক্ষণ ও বাসস্থানও নিশ্চিত করে সে। সংগঠনে তার নাম রাজীব গান্ধী ওরফে সুভাষ গান্ধী ওরফে গান্ধী ওরফে শান্ত ওরফে আদিল।গুলশান ও শোলাকিয়া হামলায় তিন জঙ্গিকে সে উত্তরাঞ্চল থেকে পাঠিয়েছিল। পুলিশ তাকে গ্রেফতারে হন্য হয়ে খুঁজছে।তার আসল পরিচয় কী? তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন,সে বাংলাদেশের উত্তারাঞ্চলে থাকতে পারে।

কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান ও ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ‘রাজীব গান্ধী ওরফে সুভাষ গান্ধী ওরফে গান্ধী ওরফে আদিল ওরফে শান্ত নব্য জেএমবি’র উত্তরবঙ্গের কমান্ডার ছিল। গুলশান ও শোলাকিয়ার হামলায় সে সন্ত্রাসী পাঠিয়েছিল। যখন কোনও হামলায় দক্ষ সন্ত্রাসীর প্রয়োজন হয়, তখন সে তা সরবরাহ করে।’

তিনি বলেন, ‘গুলশানে দুজন এবং শোলাকিয়ায় একজন সন্ত্রাসী পাঠিয়েছিল এই গান্ধী। সে উত্তরাঞ্চলের কোথাও আত্মগোপন করে আছে বলে ধারণা করছি।’

রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে পুলিশ ও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর একের পর এক অভিযানে জেএমবির কমান্ডার গ্রেফতার ও নিহত হওয়ার পর রাজীব গান্ধীর ওপরে ঢাকায় হামলা চালানোর দায়িত্ব আসে। গুলশান হামলার আগে একটি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনেও রাজীব গান্ধীর কথা বলা হয়েছিল।

গত ২৭ জুন দেওয়া ওই প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, উত্তরাঞ্চলের জঙ্গি অধ্যুষিত জেলায় পুলিশের টানা অভিযানে জেএমবির সদস্যরা ওই অঞ্চল ছাড়তে বাধ্য হয়। এসময় একটি গ্রুপ ঢাকা, টাঙ্গাইল ও ময়মনসিংহ অঞ্চলে আশ্রয় নেয়।এই গ্রুপের দলনেতা রাজীব গান্ধী ওরফে শান্ত ওরফে সুভাষ ওরফে আদিল।

গুলশান ও শোলাকিয়ার হামলা মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন,‘নুরুল ইসলাম মারজান জেএমবির সর্বকনিষ্ঠ কমান্ডার। বয়সে ছোট হলেও সংগঠনে তার আধিপত্য রয়েছে। সে সদস্য সংগ্রহ করে থাকে। অপরদিকে রাজীব গান্ধী সদস্যদের প্রশিক্ষণ দিয়ে থাকে। হামলার আগে সে নির্ধারণ করে দেয় কোন কোন প্রশিক্ষিত জঙ্গি অংশ নেবে। সে প্রশিক্ষিতদের সরবরাহ করে থাকে।’

রাজীব গান্ধী আর নুরুল ইসলাম মারজান দেশেই আছে বলে জানিয়েছেন মনিরুল ইসলাম। তিনি বলেন, ‘তারা হয়তো উত্তরাঞ্চলের কোথাও লুকিয়ে আছে। আমরা তাদের গ্রেফতারে চেষ্টা করছি।’

উৎসঃ   বাংলা ট্রিবিউন

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X