সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:৫৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, September 8, 2016 6:42 pm
A- A A+ Print

খাবারের খোঁজে এসে প্রাণটাই হারাতে বসেছে সজারু

top20160908183454

চট্টগ্রাম: খাবারের খোঁজে লোকালয়ে এসে মানুষের বর্বর আচরণের মুখোমুখি হয়েছে একটি বন্যপ্রাণী সজারু। বিভিন্ন বয়সী কয়েকজন লোক সজারুটিকে আটকে রশি দিয়ে বেঁধে পিটিয়ে, শরীরের কাঁটাগুলো তুলে নিয়ে আধমরা করেছে। মানুষের নির্মমতার শিকার হয়ে সজারুটি এখন জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। বৃহস্পতিবার (০৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে সীতাকুণ্ড উপজেলা থেকে দুজন রিক্সাচালক এসে সজারুটিকে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় দিয়ে গেছেন। চিড়িয়াখানার ডেপুটি কিউরেটর মো.মঞ্জুর মোর্শেদ সজারুটিকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন। মঞ্জুর মোর্শেদ বাংলানিউজকে বলেন, সীতাকুণ্ডের জঙ্গলে এখনও সজারু আছে। আমাদের চিড়িয়াখানায় পাঁচটি সজারু আছে, যার প্রত্যেকটিই সীতাকুণ্ড থেকে ধরে আনা হয়েছে। সীতাকুণ্ডে পাহাড়ের নিচে জমিতে খাবারের সংগ্রহে এসে সেগুলো ধরা পড়ে যায়। ‘আজ যেটি পাওয়া গেছে সেটিও খাবারের খোঁজেই এসেছিল। কিছু দুষ্ট লোক সজারুটিকে ধরে আহত করেছে। এখন যদি সেটিকে বাঁচাতে পারি তাহলে আমাদের চিড়িয়াখানায় ছয়টি সজারু হবে।’ বলেন মঞ্জুর মোর্শেদ। বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে সজারুটিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড উপজেলার জঙ্গলসলিমপুরের বরইতলায় দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন। স্থানীয় কয়েকজন যুবক সজারুটিকে ধরে নাইলনের রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে। রশি দিয়ে শক্ত করে বাঁধায় সজারুটির ঘাড়ে মারাত্মক জখম দেখা গেছে। সজারুটিকে চিড়িয়াখানায় যারা এনেছে তাদের বরাত দিয়ে মঞ্জুর মোর্শেদ বাংলানিউজকে বলেন, রশি দিয়ে বেঁধে সজারুটিকে প্রথমে পেটানো হয়েছে। এতে সজারুটির শক্তি কমে এলে তার শরীরের চার ভাগের তিন ভাগেরও বেশি কাঁটা তুলে ফেলা হয়েছে। এর মধ্যে রশিটি সজারুটির গলায় ফাঁসের মতো করে আটকে যায়। কাঁটা তুলে ফেলায় প্রচুর রক্তক্ষরণ এবং ঘাড়ে ফাঁস লাগার কারণে সজারুটির জীবন সংকটাপন্ন হয়ে গেছে। তিনি জানান, ঘটনাটি স্থানীয় একজন সাংবাদিক দেখে আহত সজারুটিকে তাদের কবল থেকে উদ্ধার করে। এরপর দুজন রিক্সাচালককে দিয়ে সেটি চিড়িয়াখানায় পাঠান ওই সাংবাদিক। চিড়িয়াখানায় নেয়ার পর সজারুটির চিকিৎসা শুরু হয়েছে। এর ক্ষতস্থানে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। রাতে সজারুটিকে স্যালাইন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডেপুটি কিউরেটর মঞ্জুর মোর্শেদ।

Comments

Comments!

 খাবারের খোঁজে এসে প্রাণটাই হারাতে বসেছে সজারুAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

খাবারের খোঁজে এসে প্রাণটাই হারাতে বসেছে সজারু

Thursday, September 8, 2016 6:42 pm
top20160908183454

চট্টগ্রাম: খাবারের খোঁজে লোকালয়ে এসে মানুষের বর্বর আচরণের মুখোমুখি হয়েছে একটি বন্যপ্রাণী সজারু। বিভিন্ন বয়সী কয়েকজন লোক সজারুটিকে আটকে রশি দিয়ে বেঁধে পিটিয়ে, শরীরের কাঁটাগুলো তুলে নিয়ে আধমরা করেছে। মানুষের নির্মমতার শিকার হয়ে সজারুটি এখন জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে।

বৃহস্পতিবার (০৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল তিনটার দিকে সীতাকুণ্ড উপজেলা থেকে দুজন রিক্সাচালক এসে সজারুটিকে চট্টগ্রাম চিড়িয়াখানায় দিয়ে গেছেন। চিড়িয়াখানার ডেপুটি কিউরেটর মো.মঞ্জুর মোর্শেদ সজারুটিকে বাঁচানোর আপ্রাণ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন।

মঞ্জুর মোর্শেদ বাংলানিউজকে বলেন, সীতাকুণ্ডের জঙ্গলে এখনও সজারু আছে। আমাদের চিড়িয়াখানায় পাঁচটি সজারু আছে, যার প্রত্যেকটিই সীতাকুণ্ড থেকে ধরে আনা হয়েছে। সীতাকুণ্ডে পাহাড়ের নিচে জমিতে খাবারের সংগ্রহে এসে সেগুলো ধরা পড়ে যায়।

‘আজ যেটি পাওয়া গেছে সেটিও খাবারের খোঁজেই এসেছিল। কিছু দুষ্ট লোক সজারুটিকে ধরে আহত করেছে। এখন যদি সেটিকে বাঁচাতে পারি তাহলে আমাদের চিড়িয়াখানায় ছয়টি সজারু হবে।’ বলেন মঞ্জুর মোর্শেদ।

বৃহস্পতিবার দুপুর ১টার দিকে সজারুটিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের সীতাকুণ্ড উপজেলার জঙ্গলসলিমপুরের বরইতলায় দেখতে পায় স্থানীয় লোকজন।

স্থানীয় কয়েকজন যুবক সজারুটিকে ধরে নাইলনের রশি দিয়ে বেঁধে ফেলে। রশি দিয়ে শক্ত করে বাঁধায় সজারুটির ঘাড়ে মারাত্মক জখম দেখা গেছে।

সজারুটিকে চিড়িয়াখানায় যারা এনেছে তাদের বরাত দিয়ে মঞ্জুর মোর্শেদ বাংলানিউজকে বলেন, রশি দিয়ে বেঁধে সজারুটিকে প্রথমে পেটানো হয়েছে। এতে সজারুটির শক্তি কমে এলে তার শরীরের চার ভাগের তিন ভাগেরও বেশি কাঁটা তুলে ফেলা হয়েছে। এর মধ্যে রশিটি সজারুটির গলায় ফাঁসের মতো করে আটকে যায়। কাঁটা তুলে ফেলায় প্রচুর রক্তক্ষরণ এবং ঘাড়ে ফাঁস লাগার কারণে সজারুটির জীবন সংকটাপন্ন হয়ে গেছে।

তিনি জানান, ঘটনাটি স্থানীয় একজন সাংবাদিক দেখে আহত সজারুটিকে তাদের কবল থেকে উদ্ধার করে। এরপর দুজন রিক্সাচালককে দিয়ে সেটি চিড়িয়াখানায় পাঠান ওই সাংবাদিক।

চিড়িয়াখানায় নেয়ার পর সজারুটির চিকিৎসা শুরু হয়েছে। এর ক্ষতস্থানে ওষুধ দেয়া হচ্ছে। রাতে সজারুটিকে স্যালাইন দেয়া হবে বলে জানিয়েছেন ডেপুটি কিউরেটর মঞ্জুর মোর্শেদ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X