রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৫৬
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, May 8, 2017 1:20 pm
A- A A+ Print

খাবার প্রতিযোগিতায় মর্মান্তিক মৃত্যু

3

বিশ্বে নানারকম প্রতিযোগিতা রয়েছে। তার মধ্যে খাবার প্রতিযোগিতা অন্যতম জনপ্রিয়। এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে পেটপুরে যেমন খাওয়া তেমনি আবার বিজয়ী হলে মোটা অঙ্কের অর্থ পাওয়া যায়। তবে নানারকম খাবার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনার সংখ্যাও বিশ্বে কম নয়। এ প্রতিবেদনে ৬টি মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা তুলে ধরা হল। * যুক্তরাষ্ট্রের ডেনভারের বাসিন্দা ৪২ বছর বয়সি ট্র্যাভিস ম্যালোফ ডোনাট চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে মৃত্যুবরণ করেন। এ বছরের ৫ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতার শর্ত ছিল- একজন প্রতিযোগীকে ৬টি ডোনাটের সমান বেহমোথ কেক ৮০ সেকেন্ডের মধ্যে খেতে হবে। এজন্য ভুডু ডোনাট নামের প্রতিষ্ঠানটি প্রতিযোগীকে খাবার ও মোটা অংকের টাকা দেবে। কিন্তু এই দুর্ঘটনার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি জনপ্রিয় এই প্রতিযোগিতা বন্ধ করে দেয়। * মা-মেয়ে ডেবরা ও জেসিকা হারব্যাক। ২০১৬ সালে মেক্সিকোর সান্তা ফে’র ‘ফায়ার অ্যান্ড আইস ক্লাব’- নামক নাইট ক্লাবে মদ পানের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছিলেন তারা। উপলক্ষ্য- ২২ বছর বয়সি জেসিকার জন্মদিন পালন। এ সময় ৫৬ বছর বয়সি ডেবরা খুব মাতাল ছিলেন। এ অবস্থায় তিনি কর্ণ ডগ খাওয়ার প্রতিযোগিতায় অংশ নেন (প্রতিযোগিতার নিয়ম হচ্ছে, নারী প্রতিযোগিদেরকে হাঁটু গেড়ে পুরুষদের স্পর্শকাতর স্থানের কাছাকাছি আটকে রাখা কর্ণ ডগ খেতে হবে)। এ সময় তিনি খাদ্য জটিলতায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। কয়েকদিন পর ডেবরা মৃত্যুবরণ করেন। ডেবরার পরিবার ওই ক্লাবের বিরুদ্ধে মৃত্যুর দায় চাপিয়ে মামলা দায়ের করে। ক্লাবের কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, ডেবরাকে অতিরিক্ত মদ সরবরাহ এবং চিকিৎসা ব্যবস্থা না রেখেই এই খাবার প্রতিযোগিতার আয়োজন করার জন্য। এ ঘটনায় ক্লাবটি আপাতত নিস্ক্রিয় রাখা হয়েছে। * যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির কলেজ শিক্ষার্থী কাইটলিন ন্যালসন। ২০ বছর বয়সি এই তরুণী এ বছরের মার্চ মাসে তার কলেজে গ্রিক লাইফ ফুড ইটিং চ্যারিটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এ সময় তিনি একাধিক প্যানকেক খান। খাওয়ার পর তার শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। গুরুতর অবস্থায় নেলসনকে হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর তাকে ম্যানহাটনের কলম্বিয়া-প্রিসবায়টারিয়ান হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। চিকিৎসকরা জানান, খাদ্য আটকে শ্বাসরোধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে। * ৩২ বছর বয়সি যুবক অ্যাডওয়ার্ড। ফ্লোরিডার বাসিন্দা তিনি। কীটপতঙ্গ খাওয়ার এক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। ২০১২ সালের ৫ অক্টোবর, ফ্লোরিডার বেন সিয়েগেল রেপটাইল দোকান কর্তৃক আয়োজিত প্রতিযোগিতায় কয়েক ডজন জীবন্ত তেলাপোকা ও কৃমি খেয়ে বিজয়ী হওয়ার কিছুক্ষণ পর তিনি দোকানের সামনে পড়েছিলেন। তার মৃত্যুর প্রাথমিক কারণ হিসেবে ধারণা করা হয়েছিল তোলাপোকার অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া। কিন্তু ময়নাতদন্তের পর জানা যায়, যেসব জীবন্ত কীটপতঙ্গ তিনি খেয়েছিলেন তা তার শ্বাসনালীতে আশ্রয় নিয়েছিল, ফলে শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু ঘটে। * ২০১৪ সালে মদ পানের প্রতিযোগিতার আয়োজন করে চীনের হেনান অ্যালকোহল অ্যাসোসিয়েশন। এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ীর পরিবারকে বিশাল আয়তনে বসতি স্থাপন করে দেয় এই সংগঠনটি। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন কিয়াং নামের এক ব্যক্তি। প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তিনি ‘অ্যা থন’ নামে মদ পান করেন। তারপর তিনি অদ্ভুত অনুভূতি বোধ করেন। এরপর তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তিনি  মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে কিয়াংয়ের পরিবারকে ৭০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দেয় আদালত। * ২০১৬ সালের নভেম্বরে জাপানের শিকা প্রিফেকচারের হিকোনে অনুষ্ঠিত হয় রাইস বল খাওয়া প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় ১৫ জন অংশ নিয়েছিল। প্রতিযোগিতার শর্ত ছিল, ৩ মিনিটের মধ্যে ৫টি রাইস বল খেতে হবে। এ সময় ২৮ বছর বয়সী এক যুবক শেষ রাইস বল খাওয়ার সময় তার শ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। তাৎক্ষণিকভাবে একজন ডাক্তার ও একজন নার্স তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে স্থানীয় ফার্মের কিছু পণ্যের প্রমোশন করত একটি সংগঠন।

Comments

Comments!

 খাবার প্রতিযোগিতায় মর্মান্তিক মৃত্যুAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

খাবার প্রতিযোগিতায় মর্মান্তিক মৃত্যু

Monday, May 8, 2017 1:20 pm
3

বিশ্বে নানারকম প্রতিযোগিতা রয়েছে। তার মধ্যে খাবার প্রতিযোগিতা অন্যতম জনপ্রিয়।

এ প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে পেটপুরে যেমন খাওয়া তেমনি আবার বিজয়ী হলে মোটা অঙ্কের অর্থ পাওয়া যায়। তবে নানারকম খাবার প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনার সংখ্যাও বিশ্বে কম নয়।

এ প্রতিবেদনে ৬টি মর্মান্তিক মৃত্যুর ঘটনা তুলে ধরা হল।

* যুক্তরাষ্ট্রের ডেনভারের বাসিন্দা ৪২ বছর বয়সি ট্র্যাভিস ম্যালোফ ডোনাট চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করে মৃত্যুবরণ করেন। এ বছরের ৫ এপ্রিল অনুষ্ঠিত এই প্রতিযোগিতার শর্ত ছিল- একজন প্রতিযোগীকে ৬টি ডোনাটের সমান বেহমোথ কেক ৮০ সেকেন্ডের মধ্যে খেতে হবে। এজন্য ভুডু ডোনাট নামের প্রতিষ্ঠানটি প্রতিযোগীকে খাবার ও মোটা অংকের টাকা দেবে। কিন্তু এই দুর্ঘটনার পর থেকে প্রতিষ্ঠানটি জনপ্রিয় এই প্রতিযোগিতা বন্ধ করে দেয়।

* মা-মেয়ে ডেবরা ও জেসিকা হারব্যাক। ২০১৬ সালে মেক্সিকোর সান্তা ফে’র ‘ফায়ার অ্যান্ড আইস ক্লাব’- নামক নাইট ক্লাবে মদ পানের সঙ্গে সময় কাটাচ্ছিলেন তারা। উপলক্ষ্য- ২২ বছর বয়সি জেসিকার জন্মদিন পালন। এ সময় ৫৬ বছর বয়সি ডেবরা খুব মাতাল ছিলেন। এ অবস্থায় তিনি কর্ণ ডগ খাওয়ার প্রতিযোগিতায় অংশ নেন (প্রতিযোগিতার নিয়ম হচ্ছে, নারী প্রতিযোগিদেরকে হাঁটু গেড়ে পুরুষদের স্পর্শকাতর স্থানের কাছাকাছি আটকে রাখা কর্ণ ডগ খেতে হবে)। এ সময় তিনি খাদ্য জটিলতায় গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন। তারপর দ্রুত তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। কয়েকদিন পর ডেবরা মৃত্যুবরণ করেন। ডেবরার পরিবার ওই ক্লাবের বিরুদ্ধে মৃত্যুর দায় চাপিয়ে মামলা দায়ের করে। ক্লাবের কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয়, ডেবরাকে অতিরিক্ত মদ সরবরাহ এবং চিকিৎসা ব্যবস্থা না রেখেই এই খাবার প্রতিযোগিতার আয়োজন করার জন্য। এ ঘটনায় ক্লাবটি আপাতত নিস্ক্রিয় রাখা হয়েছে।

* যুক্তরাষ্ট্রের নিউ জার্সির কলেজ শিক্ষার্থী কাইটলিন ন্যালসন। ২০ বছর বয়সি এই তরুণী এ বছরের মার্চ মাসে তার কলেজে গ্রিক লাইফ ফুড ইটিং চ্যারিটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেন। এ সময় তিনি একাধিক প্যানকেক খান। খাওয়ার পর তার শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। গুরুতর অবস্থায় নেলসনকে হাসপাতালে নেয়া হয়। এরপর তাকে ম্যানহাটনের কলম্বিয়া-প্রিসবায়টারিয়ান হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। চিকিৎসকরা জানান, খাদ্য আটকে শ্বাসরোধ হয়ে তার মৃত্যু হয়েছে।

* ৩২ বছর বয়সি যুবক অ্যাডওয়ার্ড। ফ্লোরিডার বাসিন্দা তিনি। কীটপতঙ্গ খাওয়ার এক প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে মৃত্যুবরণ করেন তিনি। ২০১২ সালের ৫ অক্টোবর, ফ্লোরিডার বেন সিয়েগেল রেপটাইল দোকান কর্তৃক আয়োজিত প্রতিযোগিতায় কয়েক ডজন জীবন্ত তেলাপোকা ও কৃমি খেয়ে বিজয়ী হওয়ার কিছুক্ষণ পর তিনি দোকানের সামনে পড়েছিলেন। তার মৃত্যুর প্রাথমিক কারণ হিসেবে ধারণা করা হয়েছিল তোলাপোকার অ্যালার্জিক প্রতিক্রিয়া। কিন্তু ময়নাতদন্তের পর জানা যায়, যেসব জীবন্ত কীটপতঙ্গ তিনি খেয়েছিলেন তা তার শ্বাসনালীতে আশ্রয় নিয়েছিল, ফলে শ্বাস প্রশ্বাস বন্ধ হয়ে তার মৃত্যু ঘটে।

* ২০১৪ সালে মদ পানের প্রতিযোগিতার আয়োজন করে চীনের হেনান অ্যালকোহল অ্যাসোসিয়েশন। এই প্রতিযোগিতায় বিজয়ীর পরিবারকে বিশাল আয়তনে বসতি স্থাপন করে দেয় এই সংগঠনটি। এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করেছিলেন কিয়াং নামের এক ব্যক্তি। প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়ে তিনি ‘অ্যা থন’ নামে মদ পান করেন। তারপর তিনি অদ্ভুত অনুভূতি বোধ করেন। এরপর তাকে হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখানে তিনি  মৃত্যুবরণ করেন। এ ঘটনায় দায়ের করা মামলার রায়ে কিয়াংয়ের পরিবারকে ৭০ হাজার ডলার ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দেয় আদালত।

* ২০১৬ সালের নভেম্বরে জাপানের শিকা প্রিফেকচারের হিকোনে অনুষ্ঠিত হয় রাইস বল খাওয়া প্রতিযোগিতা। এ প্রতিযোগিতায় ১৫ জন অংশ নিয়েছিল। প্রতিযোগিতার শর্ত ছিল, ৩ মিনিটের মধ্যে ৫টি রাইস বল খেতে হবে। এ সময় ২৮ বছর বয়সী এক যুবক শেষ রাইস বল খাওয়ার সময় তার শ্বাস বন্ধ হয়ে যায়। তাৎক্ষণিকভাবে একজন ডাক্তার ও একজন নার্স তাকে বাঁচানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। এই প্রতিযোগিতার মাধ্যমে স্থানীয় ফার্মের কিছু পণ্যের প্রমোশন করত একটি সংগঠন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X