বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৭:০৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, November 24, 2016 7:20 am
A- A A+ Print

গণভবনে সভা নির্বাচনী আচরণবিধির মধ্যে পড়ে না : না.গঞ্জে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত

4

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীসহ দলীয় নেতাদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে যে বৈঠক করেছেন তা নির্বাচনী আচরণবিধিতে পড়ে না বলে দাবি করেছেন সেখানকার বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান। গণভবনে বৈঠকে একদিন পর আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জে বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী যদিও গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত না। তারপরও রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী দেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত। কিন্তু গণভবন সরকারি একটি বাসভবন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী কোনো নির্দিষ্ট প্রার্থীকে নিয়ে আলাপ-আলোচনা করবে, সেটা আমি মনে করি নির্বাচনে একটি প্রভাব পড়ে। নির্বাচনী আচরণবিধির পর্যায়ে পড়ে না। সুতরাং এ ধরনের কর্মকাণ্ডে আমরা অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছি।’ গতকাল মঙ্গলবার রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের সাক্ষাৎ করেন মেয়র পদপ্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী, সংসদ সদস্য শামীম ওসমানসহ নারায়ণগঞ্জের কয়েকজন শীর্ষ নেতা। মূলত ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে সবাইকে কাজ করার জন্য এ বৈঠক হয়ে বলেই জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের। আজ নির্বাচন কার্যালয় থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবিও জানান। এখনো নারায়ণগঞ্জে ভোটের ‘লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড’ হয়নি, তারপরও উৎসবমুখর পরিবেশে নারায়ণগঞ্জের মানুষ ভোট দিতে পারবে এমনটা আশা করে বিএনপি প্রার্থী বলেন, ‘এই নির্বাচন কমিশন ও সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। কিন্তু মানুষের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। আমরা আশা করবো, ভোটাররা যাতে তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে নির্বাচন কমিশন ও সরকার সেটি প্রতিষ্ঠা করবে।’ এ সময় সাখাওয়াত হোসেন খান বৈধ অস্ত্র জমা নেওয়া, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবিও জানান। নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামীকাল ২৪ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই ও বাছাই করা হবে আগামী ২৬ ও ২৭ নভেম্বর। নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় আগামী ৪ ডিসেম্বর। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় নির্বাচন। ২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ ও কদমরসুল এ তিনটি পৌরসভা বিলুপ্ত করে ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। একই বছর ৩০ অক্টোবর প্রথমবারের মতো সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমানকে পরাজিত করে সিটির প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াৎ আইভি। তিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী যিনি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে আইভি বিলুপ্ত হওয়া নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।

Comments

Comments!

 গণভবনে সভা নির্বাচনী আচরণবিধির মধ্যে পড়ে না : না.গঞ্জে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াতAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

গণভবনে সভা নির্বাচনী আচরণবিধির মধ্যে পড়ে না : না.গঞ্জে বিএনপির প্রার্থী সাখাওয়াত

Thursday, November 24, 2016 7:20 am
4

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভীসহ দলীয় নেতাদের নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবনে যে বৈঠক করেছেন তা নির্বাচনী আচরণবিধিতে পড়ে না বলে দাবি করেছেন সেখানকার বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী অ্যাডভোকেট সাখাওয়াত হোসেন খান।

গণভবনে বৈঠকে একদিন পর আজ বুধবার নারায়ণগঞ্জে বিএনপির প্রার্থী বলেন, ‘আমাদের প্রধানমন্ত্রী যদিও গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত না। তারপরও রাষ্ট্রের প্রধানমন্ত্রী দেশের ১৬ কোটি মানুষের প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত। কিন্তু গণভবন সরকারি একটি বাসভবন। সেখানে প্রধানমন্ত্রী কোনো নির্দিষ্ট প্রার্থীকে নিয়ে আলাপ-আলোচনা করবে, সেটা আমি মনে করি নির্বাচনে একটি প্রভাব পড়ে। নির্বাচনী আচরণবিধির পর্যায়ে পড়ে না। সুতরাং এ ধরনের কর্মকাণ্ডে আমরা অত্যন্ত দুঃখ পেয়েছি।’

গতকাল মঙ্গলবার রাতে গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে নারায়ণগঞ্জের নেতাদের সাক্ষাৎ করেন মেয়র পদপ্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী, সংসদ সদস্য শামীম ওসমানসহ নারায়ণগঞ্জের কয়েকজন শীর্ষ নেতা।

মূলত ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মেয়র সেলিনা হায়াৎ আইভীর পক্ষে সবাইকে কাজ করার জন্য এ বৈঠক হয়ে বলেই জানান দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের।

আজ নির্বাচন কার্যালয় থেকে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করার পর মেয়র প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের দাবিও জানান।

এখনো নারায়ণগঞ্জে ভোটের ‘লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড’ হয়নি, তারপরও উৎসবমুখর পরিবেশে নারায়ণগঞ্জের মানুষ ভোট দিতে পারবে এমনটা আশা করে বিএনপি প্রার্থী বলেন, ‘এই নির্বাচন কমিশন ও সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি। কিন্তু মানুষের ভোটাধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য আমরা এই নির্বাচনে অংশগ্রহণ করছি। আমরা আশা করবো, ভোটাররা যাতে তাদের পছন্দসই প্রার্থীকে ভোট দিতে পারে নির্বাচন কমিশন ও সরকার সেটি প্রতিষ্ঠা করবে।’

এ সময় সাখাওয়াত হোসেন খান বৈধ অস্ত্র জমা নেওয়া, অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেপ্তারের দাবিও জানান।

নির্বাচন কমিশনের তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের নির্বাচন। মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ সময় আগামীকাল ২৪ নভেম্বর। মনোনয়নপত্র যাচাই ও বাছাই করা হবে আগামী ২৬ ও ২৭ নভেম্বর। নির্বাচনে মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ সময় আগামী ৪ ডিসেম্বর। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ইতিহাসে এটি দ্বিতীয় নির্বাচন।

২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ, সিদ্ধিরগঞ্জ ও কদমরসুল এ তিনটি পৌরসভা বিলুপ্ত করে ২৭টি ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত হয় নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন। একই বছর ৩০ অক্টোবর প্রথমবারের মতো সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামীম ওসমানকে পরাজিত করে সিটির প্রথম মেয়র নির্বাচিত হন সেলিনা হায়াৎ আইভি। তিনি বাংলাদেশের প্রথম নারী যিনি মেয়র হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এর আগে আইভি বিলুপ্ত হওয়া নারায়ণগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচিত চেয়ারম্যান ছিলেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X