শনিবার, ২৪শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১১:৩৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, May 2, 2017 4:12 pm
A- A A+ Print

গ্রেপ্তার হওয়া আশফাক মেজর জিয়ার ঘনিষ্ঠ সহযোগী: মনিরুল

ashfaq20170502155938

সোমবার রাজধানীর ভাটারা থানার নর্দ্দা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সামরিক শাখার প্রধান পলাতক মেজর সৈয়দ মো. জিয়াউল হকের ঘনিষ্ঠ সহযোগী বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম। পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ভাটারা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) আইটি প্রধান আশফাকুর রহমান পলাতক মেজর (বরখাস্ত) জিয়ার ঘনিষ্ঠ। আশফাক দুই মাস আগে জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বলে গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য আছে। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আশফাক আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সক্রিয় সদস্য ও আইটি বিশেষজ্ঞ। হজরত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্সের শিক্ষার্থী ছিল সে। বছর দেড়েক আগে সংগঠনে যুক্ত হয়ে সে সামরিক প্রশিক্ষণ নিয়েছিল। এসব কারণে মেজর (বরখাস্ত) জিয়ার সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। জিয়াকে নানা ধরনের তথ্য দিত সে। জিয়া কোথায় আছে তা তার কাছ থেকে জানার চেষ্টা করা হবে।’ সিটিটিসির প্রধান আরো বলেন, ‘সে জঙ্গি সংগঠনের প্রকাশনা ও প্রচারণার দায়িত্বে ছিল। এবিটি যেসব লেখক-ব্লগারকে টার্গেট করত, আশফাক তাদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে সব ধরনের তথ্য সংগ্রহ করত।’ মনিরুল ইসলাম বলেন, আশফাকের কাছ থেকে ল্যাপটপ, মোবাইল সেট, আল-কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেনের জিহাদি প্রবন্ধ, আল-কায়েদা আরব উপদ্বীপের নেতা ইয়েমেনের আনোয়ার আল আওলাকির বক্তব্য ও ব্লগার হত্যার প্রশিক্ষণের বিষয়বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে। কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান বলেন, আশফাককে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগে অধ্যয়নের সময় এবিটিতে যোগ দেন। ২০১৫ সালে সংগঠনের সামরিক বিভাগের আইটি শাখার প্রধান হন। ২০১৫ সালের মে মাসে এবিটিকে নিষিদ্ধ করে সরকার। সন্ত্রাসবিরোধী আইন অনুযায়ী সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করা হয়।
 

Comments

Comments!

 গ্রেপ্তার হওয়া আশফাক মেজর জিয়ার ঘনিষ্ঠ সহযোগী: মনিরুলAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

গ্রেপ্তার হওয়া আশফাক মেজর জিয়ার ঘনিষ্ঠ সহযোগী: মনিরুল

Tuesday, May 2, 2017 4:12 pm
ashfaq20170502155938

সোমবার রাজধানীর ভাটারা থানার নর্দ্দা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া ব্যক্তি নিষিদ্ধ জঙ্গি সংগঠন আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের সামরিক শাখার প্রধান পলাতক মেজর সৈয়দ মো. জিয়াউল হকের ঘনিষ্ঠ সহযোগী বলে জানিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম।

পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিটের প্রধান মনিরুল ইসলাম বলেছেন, ভাটারা থেকে গ্রেপ্তার হওয়া আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) আইটি প্রধান আশফাকুর রহমান পলাতক মেজর (বরখাস্ত) জিয়ার ঘনিষ্ঠ। আশফাক দুই মাস আগে জিয়ার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে বলে গোয়েন্দাদের কাছে তথ্য আছে।

মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

মনিরুল ইসলাম বলেন, ‘আশফাক আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের (এবিটি) সক্রিয় সদস্য ও আইটি বিশেষজ্ঞ। হজরত শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্সের শিক্ষার্থী ছিল সে। বছর দেড়েক আগে সংগঠনে যুক্ত হয়ে সে সামরিক প্রশিক্ষণ নিয়েছিল। এসব কারণে মেজর (বরখাস্ত) জিয়ার সঙ্গে তার ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। জিয়াকে নানা ধরনের তথ্য দিত সে। জিয়া কোথায় আছে তা তার কাছ থেকে জানার চেষ্টা করা হবে।’

সিটিটিসির প্রধান আরো বলেন, ‘সে জঙ্গি সংগঠনের প্রকাশনা ও প্রচারণার দায়িত্বে ছিল। এবিটি যেসব লেখক-ব্লগারকে টার্গেট করত, আশফাক তাদের ফেসবুক আইডি হ্যাক করে সব ধরনের তথ্য সংগ্রহ করত।’

মনিরুল ইসলাম বলেন, আশফাকের কাছ থেকে ল্যাপটপ, মোবাইল সেট, আল-কায়েদার প্রতিষ্ঠাতা ওসামা বিন লাদেনের জিহাদি প্রবন্ধ, আল-কায়েদা আরব উপদ্বীপের নেতা ইয়েমেনের আনোয়ার আল আওলাকির বক্তব্য ও ব্লগার হত্যার প্রশিক্ষণের বিষয়বস্তু উদ্ধার করা হয়েছে।

কাউন্টার টেররিজম ইউনিটের প্রধান বলেন, আশফাককে প্রাথমিকভাবে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগে অধ্যয়নের সময় এবিটিতে যোগ দেন। ২০১৫ সালে সংগঠনের সামরিক বিভাগের আইটি শাখার প্রধান হন।

২০১৫ সালের মে মাসে এবিটিকে নিষিদ্ধ করে সরকার। সন্ত্রাসবিরোধী আইন অনুযায়ী সংগঠনটিকে নিষিদ্ধ করা হয়।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X