রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ২:০৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, January 2, 2017 6:24 pm
A- A A+ Print

চলতি বছরেই ফিলিস্তিনকে পূর্ণ স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে হবে : বিশ্বনেতাদের প্রতি মাহমুদ আব্বাস

17

পূর্ব জেরুজালেম: এ বছরই ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিতে বিশ্ব নেতৃত্বের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস। ফিলিস্তিনি ফাতাহ আন্দোলনের ৫২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে স্থানীয় সময় শনিবার রাতে পশ্চিম তীরের রামাল্লা শহরে এক অনুষ্ঠানে এমন আশা ব্যক্ত করেন তিনি। মাহমুদ আব্বাস বলেন, ‘আমরা ২০১৭ সালের মধ্যে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিতে বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। কারণ আরো বেশি স্বীকৃতি ‘দুই রাষ্ট্র সমাধান’ অর্জনের সম্ভাবনাকে জোরদার করবে এবং প্রকৃত শান্তি নিয়ে আসবে।’ রাষ্ট্রসত্তা অর্জনে সশস্ত্র সংগ্রামের পথে না গিয়ে মাহমুদ আব্বাস গত কয়েক বছর ধরে ফিলিস্তিনি নেতৃত্বের আন্তর্জাতিক কৌশল অবলম্বন করেছে। ২০১২ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ফিলিস্তিনকে পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের মর্যাদা দেয়। এখনো পর্যন্ত ১৩৬টি দেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিয়েছে। অনুষ্ঠানে আব্বাস বলেন, ‘ফিলিস্তিনের ভূমিতে বসতি নির্মাণ করায় আমাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নেই। ফিলিস্তিনের ভূমি দখল করে বসতি নির্মাণের কোনো অধিকার তাদের নেই।’ তিনি বলেন, 'অবৈধ বসতি নির্মাণের তৎপরতা থেকে ইসরাইলকে বিরত থাকতে হবে। এর পাশাপাশি অধিকৃত ভূমিতে ফিলিস্তিনি জনসংখ্যার পরিবর্তন ঘটানোর তৎপরতা থেকেও তেল আবিবকে বিরত থাকতে হবে।' জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাবটি উত্থাপনে আমেরিকার পক্ষ থেকে ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগ না করায় দেশটির প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন তিনি। গেল বছরের ২৩ ডিসেম্বর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ২৩৩৪ নং রেজল্যুশনে বলা হয়, বসতি নির্মাণের আইনগত কোনো বৈধতা ইসরাইলের নেই এবং এটি শান্তির পথে একটি বাধা। ফিলিস্তিনি নেতৃত্ব এই রেজল্যুশনকে স্বাগত জানায়। অন্যদিকে, ইসরাইলি নেতারা এটিকে ‘লজ্জাজনক’ বলে অভিহিত করে। এছাড়াও, আব্বাস তার বক্তৃতায় উল্লেখ করেন যে, ফিলিস্তিনি নেতৃত্ব নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গেও কাজ করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে। তিনি বলেন, ‘এ অঞ্চলে শান্তি অর্জনে ‘দুই রাষ্ট্র সমাধানে’ আন্তর্জাতিক সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ আমেরিকান প্রশাসনের সঙ্গে কাজ করার জন্য প্রস্তুত আছি।’ সূত্র: দ্য জেরুজালেম পোস্ট
 

Comments

Comments!

 চলতি বছরেই ফিলিস্তিনকে পূর্ণ স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে হবে : বিশ্বনেতাদের প্রতি মাহমুদ আব্বাসAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

চলতি বছরেই ফিলিস্তিনকে পূর্ণ স্বাধীন রাষ্ট্রের স্বীকৃতি দিতে হবে : বিশ্বনেতাদের প্রতি মাহমুদ আব্বাস

Monday, January 2, 2017 6:24 pm
17

পূর্ব জেরুজালেম: এ বছরই ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিতে বিশ্ব নেতৃত্বের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ফিলিস্তিনি কর্তৃপক্ষের প্রেসিডেন্ট মাহমুদ আব্বাস।

ফিলিস্তিনি ফাতাহ আন্দোলনের ৫২তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে স্থানীয় সময় শনিবার রাতে পশ্চিম তীরের রামাল্লা শহরে এক অনুষ্ঠানে এমন আশা ব্যক্ত করেন তিনি।

মাহমুদ আব্বাস বলেন, ‘আমরা ২০১৭ সালের মধ্যে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি দিতে বিশ্বের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। কারণ আরো বেশি স্বীকৃতি ‘দুই রাষ্ট্র সমাধান’ অর্জনের সম্ভাবনাকে জোরদার করবে এবং প্রকৃত শান্তি নিয়ে আসবে।’

রাষ্ট্রসত্তা অর্জনে সশস্ত্র সংগ্রামের পথে না গিয়ে মাহমুদ আব্বাস গত কয়েক বছর ধরে ফিলিস্তিনি নেতৃত্বের আন্তর্জাতিক কৌশল অবলম্বন করেছে।

২০১২ সালে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদ ফিলিস্তিনকে পর্যবেক্ষক রাষ্ট্রের মর্যাদা দেয়। এখনো পর্যন্ত ১৩৬টি দেশ ফিলিস্তিন রাষ্ট্রকে স্বীকৃতি দিয়েছে।

অনুষ্ঠানে আব্বাস বলেন, ‘ফিলিস্তিনের ভূমিতে বসতি নির্মাণ করায় আমাদের উজ্জ্বল ভবিষ্যৎ নেই। ফিলিস্তিনের ভূমি দখল করে বসতি নির্মাণের কোনো অধিকার তাদের নেই।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধ বসতি নির্মাণের তৎপরতা থেকে ইসরাইলকে বিরত থাকতে হবে। এর পাশাপাশি অধিকৃত ভূমিতে ফিলিস্তিনি জনসংখ্যার পরিবর্তন ঘটানোর তৎপরতা থেকেও তেল আবিবকে বিরত থাকতে হবে।’

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে প্রস্তাবটি উত্থাপনে আমেরিকার পক্ষ থেকে ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগ না করায় দেশটির প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন তিনি।

গেল বছরের ২৩ ডিসেম্বর জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের ২৩৩৪ নং রেজল্যুশনে বলা হয়, বসতি নির্মাণের আইনগত কোনো বৈধতা ইসরাইলের নেই এবং এটি শান্তির পথে একটি বাধা।

ফিলিস্তিনি নেতৃত্ব এই রেজল্যুশনকে স্বাগত জানায়। অন্যদিকে, ইসরাইলি নেতারা এটিকে ‘লজ্জাজনক’ বলে অভিহিত করে।

এছাড়াও, আব্বাস তার বক্তৃতায় উল্লেখ করেন যে, ফিলিস্তিনি নেতৃত্ব নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গেও কাজ করার জন্য প্রস্তুত রয়েছে।

তিনি বলেন, ‘এ অঞ্চলে শান্তি অর্জনে ‘দুই রাষ্ট্র সমাধানে’ আন্তর্জাতিক সিদ্ধান্তের প্রতি সম্মান জানিয়ে আমরা নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পসহ আমেরিকান প্রশাসনের সঙ্গে কাজ করার জন্য প্রস্তুত আছি।’

সূত্র: দ্য জেরুজালেম পোস্ট

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X