মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১২:০২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, January 4, 2017 4:10 pm
A- A A+ Print

চলতি বছরেই বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া

47590_sss

২০১৭ সালের শেষের দিকে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) প্রধান নির্বাহি জেমস সাদারল্যান্ড এমন কথা জানালেন। তবে বিষয়টির শতভাগ নিশ্চয়তা দিলেন না তিনি। বাংলাদেশের নিরাপত্তার অবস্থা স্বাভাবিক থাকলে তবেই আগস্ট কিংবা সেপ্টেম্বরের দিকে বাংলাদেশ সফরে আসতে পারে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৫ সালের অক্টোবরে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু নিরাপত্তার অজুহাতে সে সফর স্থগিত করে। এরপর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে দল পাঠায়নি অস্ট্রেলিয়া। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র অস্ট্রেলিয়া ওই যুব বিশ্বকাপে অংশ নেয়নি। জাতীয় দল ও যুব দলকে বাংলাদেশে না পাঠানোর ব্যখ্যা দিলেন সাদারল্যান্ড। ‘এবিসি রেডিও’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, অস্ট্রেলিয়ার সরকারের কাছে তথ্য ছিল যে, বাংলাদেশ সফরে গেলে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ওপর জঙ্গীরা হামলা চালাবে। এটা তারা নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানতে পারেন। এ কারণে তারা জাতীয় দল ও যুব দলকে বাংলাদেশে পাঠাননি। কিন্তু তারা দল না পাঠালেও কোনো অসুবিধা ছাড়াই যুব বিশ্বকাপ শেষ হয়। এরপর গত বছর বাংলাদেশে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলে গেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। ইংল্যান্ড দলেরও বাংলাদেশ সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়। তবে শেষ পর্যন্ত তারা পূর্ণ নিরাপত্তার সঙ্গে বাংলাদেশ সফর শেষ করে। দলের অধিকাংশ খেলোয়াড় বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন। ইংল্যান্ড যখন বাংলাদেশ সফরে তখন অস্ট্রেলিয়া তাদের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটির প্রধান সিন ক্যারলকে বাংলাদেশে পাঠায়। তিনি ইংল্যান্ড দলের সঙ্গে হোটেল থেকে স্টেডিয়ামে যান। প্রায় ১০ দিন তিনি বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি দেশে ফিরে কী রিপোর্ট দিয়েছেন সেটা জানাননি সাদারল্যান্ড। তবে বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে ইতিবাচক কথা বললেন তিনি। বলেন, ‘কয়েকদিনের মধ্যে যে কোনো কিছু ঘটতে পারে। আমরা এখনও বাংলাদেশের নিরাপত্তা অবস্থার দিকে নজর রাখছি।  সেখানকার নিরাপত্তার ওপর ভিত্তি করেই আমাদের সিদ্ধান্ত আসবে। তবে বাংলাদেশ সরকার ও তাদের ক্রিকেট বোর্ড সম্প্রতি নিরাপত্তা বিষয়ে যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা স্বস্তিদায়ক। এতে এই মুহূর্তে বলতে পারছি যে, আমরা এ বছরই সেখানে দু’টি টেস্ট খেলতে যেতে পারি। তবে সবার আগে আমাদের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের নিরাপত্তার বিষয়। এই নিরাত্তার কারণেই আমরা আগে একটি সফর স্থগিত করি। এছাড়া একমাত্র দেশ হিসেবে সে দেশে হওয়া অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে আমাদের দল পাঠাইনি।’ বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ খেলে ২০০৬ সালে। সেটা ছিল বাংলাদেশেই। এরপর সর্বশেষ ২০১১ সালের এপ্রিলে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আসে তারা।

Comments

Comments!

 চলতি বছরেই বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়াAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

চলতি বছরেই বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া

Wednesday, January 4, 2017 4:10 pm
47590_sss

২০১৭ সালের শেষের দিকে দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলতে বাংলাদেশ সফরে আসবে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দল। ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়ার (সিএ) প্রধান নির্বাহি জেমস সাদারল্যান্ড এমন কথা জানালেন। তবে বিষয়টির শতভাগ নিশ্চয়তা দিলেন না তিনি। বাংলাদেশের নিরাপত্তার অবস্থা স্বাভাবিক থাকলে তবেই আগস্ট কিংবা সেপ্টেম্বরের দিকে বাংলাদেশ সফরে আসতে পারে অস্ট্রেলিয়া। ২০১৫ সালের অক্টোবরে বাংলাদেশে আসার কথা ছিল অস্ট্রেলিয়া। কিন্তু নিরাপত্তার অজুহাতে সে সফর স্থগিত করে। এরপর বাংলাদেশে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে দল পাঠায়নি অস্ট্রেলিয়া। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) পূর্ণ সদস্য দেশগুলোর মধ্যে একমাত্র অস্ট্রেলিয়া ওই যুব বিশ্বকাপে অংশ নেয়নি। জাতীয় দল ও যুব দলকে বাংলাদেশে না পাঠানোর ব্যখ্যা দিলেন সাদারল্যান্ড। ‘এবিসি রেডিও’কে দেয়া সাক্ষাৎকারে তিনি জানান, অস্ট্রেলিয়ার সরকারের কাছে তথ্য ছিল যে, বাংলাদেশ সফরে গেলে অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেট দলের ওপর জঙ্গীরা হামলা চালাবে। এটা তারা নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানতে পারেন। এ কারণে তারা জাতীয় দল ও যুব দলকে বাংলাদেশে পাঠাননি। কিন্তু তারা দল না পাঠালেও কোনো অসুবিধা ছাড়াই যুব বিশ্বকাপ শেষ হয়। এরপর গত বছর বাংলাদেশে তিন ম্যাচের ওয়ানডে ও দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজ খেলে গেছে ইংল্যান্ড ক্রিকেট দল। ইংল্যান্ড দলেরও বাংলাদেশ সফর নিয়ে অনিশ্চয়তা সৃষ্টি হয়। তবে শেষ পর্যন্ত তারা পূর্ণ নিরাপত্তার সঙ্গে বাংলাদেশ সফর শেষ করে। দলের অধিকাংশ খেলোয়াড় বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেন। ইংল্যান্ড যখন বাংলাদেশ সফরে তখন অস্ট্রেলিয়া তাদের নিরাপত্তা পর্যবেক্ষক কমিটির প্রধান সিন ক্যারলকে বাংলাদেশে পাঠায়। তিনি ইংল্যান্ড দলের সঙ্গে হোটেল থেকে স্টেডিয়ামে যান। প্রায় ১০ দিন তিনি বাংলাদেশের নিরাপত্তা ব্যবস্থা পর্যবেক্ষণ করেন। তিনি দেশে ফিরে কী রিপোর্ট দিয়েছেন সেটা জানাননি সাদারল্যান্ড। তবে বাংলাদেশ সফরের ব্যাপারে ইতিবাচক কথা বললেন তিনি। বলেন, ‘কয়েকদিনের মধ্যে যে কোনো কিছু ঘটতে পারে। আমরা এখনও বাংলাদেশের নিরাপত্তা অবস্থার দিকে নজর রাখছি।  সেখানকার নিরাপত্তার ওপর ভিত্তি করেই আমাদের সিদ্ধান্ত আসবে। তবে বাংলাদেশ সরকার ও তাদের ক্রিকেট বোর্ড সম্প্রতি নিরাপত্তা বিষয়ে যে পদক্ষেপ নিয়েছে তা স্বস্তিদায়ক। এতে এই মুহূর্তে বলতে পারছি যে, আমরা এ বছরই সেখানে দু’টি টেস্ট খেলতে যেতে পারি। তবে সবার আগে আমাদের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের নিরাপত্তার বিষয়। এই নিরাত্তার কারণেই আমরা আগে একটি সফর স্থগিত করি। এছাড়া একমাত্র দেশ হিসেবে সে দেশে হওয়া অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে আমাদের দল পাঠাইনি।’ বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়া সর্বশেষ টেস্ট সিরিজ খেলে ২০০৬ সালে। সেটা ছিল বাংলাদেশেই। এরপর সর্বশেষ ২০১১ সালের এপ্রিলে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ খেলতে আসে তারা।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X