রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৭:৩৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, January 10, 2017 9:34 pm
A- A A+ Print

ছেলেদের সঙ্গেই মুসলমান মেয়েদের সাঁতার শিখতে হবে

29

সুইজারল্যান্ডে স্কুলে মুসলমান মেয়েদেরকে ছেলেদের সঙ্গেই সুইমিং পুলে সাঁতার শিখতে হবে। ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালত (ইসিএইচআর) এ রায় দিয়েছে বলে মঙ্গলবার বিবিসি জানিয়েছে। স্কুলের ছেলে-মেয়েদের একই সুইমিং পুলে সাঁতার শেখাতে পাঠানোর বিরুদ্ধে সুইজারল্যান্ডের এক মুসলমান দম্পতি ইসিএইচআরে মামলা করেছিলেন। বাসেল শহরে বসবাসরত তুর্কি বংশোদ্ভূত ওই দম্পতি তাদের কিশোরী দুই মেয়েকে ছেলেদের সঙ্গে সাঁতার শেখানোর ক্লাশে না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এ ঘটনার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিভাবকত্বের দায়িত্ব পালনে অবহেলার অভিযোগে তাদের ১ হাজার ৩৮০ মার্কিন ডলার জরিমানা করে। সুইস কর্তৃপক্ষের দাবি, যেসব মুসলমান মেয়ে বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছেছে তাদের ক্ষেত্রেই ছেলেদের সঙ্গে একই সুইমিং পুলে সাঁতার না কাটার বিষয়টি বিবেচনা করা যায়। কিন্তু ওই দম্পতির মেয়েরা তখনও সেই বয়সে পৌঁছেনি। স্কুল কর্তৃপক্ষ ব্যক্তিগত চিন্তাভাবনা ও ধর্মীয় বিধান লঙ্ঘন করছে যুক্তি তুলে ধরে বিষয়টি নিয়ে সুইস আদালতের শরণাপন্ন হন ওই দম্পতি। পরে মামলাটি ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালতে পাঠানো হয়। আদালত সুইস কোর্টের সিদ্ধান্তই বহাল রেখেছে। ইউরোপীয় আদালতের বিচারকরা সুইস স্কুল কর্তৃপক্ষের নীতি ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর এক ধরনের হস্তক্ষেপ বলে স্বীকার করে নিয়েছেন। তবে এক্ষেত্রে ধর্মীয় অধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে বলে মনে করেন নি বিচারকরা। তারা বলেছেন, সমাজে অন্য সবার সঙ্গে মিলেমিশে থাকার শিশুদের শিক্ষার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে অভিবাসী শিশুদের জন্য। সুইস কর্তৃপক্ষের তাদের পছন্দমত নিজেদের শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনা করার অধিকার আছে।

Comments

Comments!

 ছেলেদের সঙ্গেই মুসলমান মেয়েদের সাঁতার শিখতে হবেAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ছেলেদের সঙ্গেই মুসলমান মেয়েদের সাঁতার শিখতে হবে

Tuesday, January 10, 2017 9:34 pm
29

সুইজারল্যান্ডে স্কুলে মুসলমান মেয়েদেরকে ছেলেদের সঙ্গেই সুইমিং পুলে সাঁতার শিখতে হবে। ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালত (ইসিএইচআর) এ রায় দিয়েছে বলে মঙ্গলবার বিবিসি জানিয়েছে।

স্কুলের ছেলে-মেয়েদের একই সুইমিং পুলে সাঁতার শেখাতে পাঠানোর বিরুদ্ধে সুইজারল্যান্ডের এক মুসলমান দম্পতি ইসিএইচআরে মামলা করেছিলেন। বাসেল শহরে বসবাসরত তুর্কি বংশোদ্ভূত ওই দম্পতি তাদের কিশোরী দুই মেয়েকে ছেলেদের সঙ্গে সাঁতার শেখানোর ক্লাশে না পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। এ ঘটনার পর স্কুল কর্তৃপক্ষ অভিভাবকত্বের দায়িত্ব পালনে অবহেলার অভিযোগে তাদের ১ হাজার ৩৮০ মার্কিন ডলার জরিমানা করে।

সুইস কর্তৃপক্ষের দাবি, যেসব মুসলমান মেয়ে বয়ঃসন্ধিতে পৌঁছেছে তাদের ক্ষেত্রেই ছেলেদের সঙ্গে একই সুইমিং পুলে সাঁতার না কাটার বিষয়টি বিবেচনা করা যায়। কিন্তু ওই দম্পতির মেয়েরা তখনও সেই বয়সে পৌঁছেনি।

স্কুল কর্তৃপক্ষ ব্যক্তিগত চিন্তাভাবনা ও ধর্মীয় বিধান লঙ্ঘন করছে যুক্তি তুলে ধরে বিষয়টি নিয়ে সুইস আদালতের শরণাপন্ন হন ওই দম্পতি। পরে মামলাটি ইউরোপীয় মানবাধিকার আদালতে পাঠানো হয়। আদালত সুইস কোর্টের সিদ্ধান্তই বহাল রেখেছে।

ইউরোপীয় আদালতের বিচারকরা সুইস স্কুল কর্তৃপক্ষের নীতি ধর্মীয় স্বাধীনতার ওপর এক ধরনের হস্তক্ষেপ বলে স্বীকার করে নিয়েছেন। তবে এক্ষেত্রে ধর্মীয় অধিকার লঙ্ঘিত হয়েছে বলে মনে করেন নি বিচারকরা।

তারা বলেছেন, সমাজে অন্য সবার সঙ্গে মিলেমিশে থাকার শিশুদের শিক্ষার জন্য গুরুত্বপূর্ণ। বিশেষ করে অভিবাসী শিশুদের জন্য। সুইস কর্তৃপক্ষের তাদের পছন্দমত নিজেদের শিক্ষা ব্যবস্থা পরিচালনা করার অধিকার আছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X