রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ২:১৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, September 21, 2016 7:36 am
A- A A+ Print

জঙ্গিবাদ বন্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়কে হতে হবে ঐক্যবদ্ধ : জাতিসংঘে ওবামার শেষ ভাষণ

obama_25543_1474411937

আমরা যদি সিদ্ধান্তই নিয়ে থাকি- ধর্মীয় বিভেদ, জঙ্গিবাদ এবং সংঘাত জিইয়ে রাখব তাহলে সহসা বা সহজে তা বন্ধ করা কঠিন। আর সত্যি বলতে কি; বিদেশী কোনো শক্তি জোর করে তা বন্ধ করতে পারবে না। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তা বন্ধে সহায়তা করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মঙ্গলবার এসব কথা বলেন। ওবামা আরও বলেন, যে বৈশ্বিক শক্তি আমাদের একত্রিত করেছে, সেটাই আবার গভীর স্খলনগুলোকে প্রকট করে তুলেছে। প্রেসিডেন্ট পদে দ্বিতীয় মেয়াদের একেবারে শেষপর্বে এসে জাতিসংঘে এটাই ওবামার শেষ ভাষণ। খবর ভয়েস অব আমেরিকা, সিএনএন ও এএফপির। মধ্যপ্রাচ্যের মৌলিক নিয়ম-রীতির ভাঙনের উল্লেখ করে ওবামা বলেন, আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় এখন অনিশ্চয়তা-অস্বস্তি বিরাজ করছে। একে অপরের ওপর প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করলে আমাদের উন্নতি হবে না। আমাদের ধর্ম যদি অন্য ধর্মের লোকদের শাস্তি দেয়ার বিধান দেয়, যদি আমরা মানুষদের জেলে ভরে রাখি, মেয়েদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিই, ধর্ম-বর্ণ জাতিভেদে যদি আমরা বৈষম্য করি, তবে আমাদের উন্নতি হবে না। নিরাপত্তাহীন বিশ্ববাস্তবতায় বিভিন্ন দেশের মধ্যে তাই সমন্বয় ও ঐক্য দরকার। এর আগে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন সাধারণ পরিষদ অধিবেশনের বিতর্ক আলোচনার সূচনা করতে গিয়ে সিরিয়া সংঘাতের অবসান ঘটানোর কথা বলেন। জাতিসংঘের এবারের অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের ১৩৫ জন সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধান যোগ দিয়েছেন। এতে তারা আলোচনা করবেন বিশ্বের নানা প্রান্তে চলমান সংঘাত, চরম দারিদ্র্য, ক্ষুধা, শরণার্থী সংকট ও জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বৈশ্বিক নানা চ্যালেঞ্জ নিয়ে। জাতিসংঘের অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বের সবচেয়ে মারাত্মক শরণার্থী সংকট এবং বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদের হুমকি মোকাবেলায় একটি নতুন কর্মপদ্ধতি গ্রহণ করা প্রয়োজন। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় অগ্রগতি এবং এ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টার ওপরও জোর দেন তিনি। তবে এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বিচ্যুতির কথাও স্বীকার করেন ওবামা। তিনি বলেন, ঠাণ্ডা যুদ্ধের অবসান হওয়ার পর আমরা একটি শতাব্দীর এক-চতুর্থাংশ সময় পার করেছি। আর বিভিন্ন দিক থেকে পৃথিবী এখন আগের চেয়ে কম সহিংস, বেশি সমৃদ্ধ। এ সময় ওবামা যুক্তরাষ্ট্রকে মানব ইতিহাসের এক বিরল পরাশক্তি হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নিজের সংকীর্ণ স্বার্থের বাইরে চিন্তা করতে সক্ষম হয়েছে। ভালো কিছুর জন্য বলপ্রয়োগ করেছে। এ মুহূর্তে বৈশ্বিক হুমকি হিসেবে পারমাণবিক অস্ত্রের বিস্তার এবং জিকা ভাইরাসের প্রতি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি। দক্ষিণ চীন সাগরের বিরোধপূর্ণ অঞ্চল নিয়ে ওবামা বলেন, এ সংক্রান্ত তর্ক-বিতর্কের চেয়ে এর শান্তিপূর্ণ সমাধান দরকার। রুশ জাতীয়তাবাদ এবং রাশিয়ার প্রতিবেশীদের ব্যাপারে মস্কোর হস্তক্ষেপের সমালোচনা করে ওবামা বলেন, এতে রাশিয়ার মর্যাদা খর্ব হবে। তার সীমানা কম নিরাপদ হবে।

Comments

Comments!

 জঙ্গিবাদ বন্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়কে হতে হবে ঐক্যবদ্ধ : জাতিসংঘে ওবামার শেষ ভাষণAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

জঙ্গিবাদ বন্ধে বিশ্ব সম্প্রদায়কে হতে হবে ঐক্যবদ্ধ : জাতিসংঘে ওবামার শেষ ভাষণ

Wednesday, September 21, 2016 7:36 am
obama_25543_1474411937

আমরা যদি সিদ্ধান্তই নিয়ে থাকি- ধর্মীয় বিভেদ, জঙ্গিবাদ এবং সংঘাত জিইয়ে রাখব তাহলে সহসা বা সহজে তা বন্ধ করা কঠিন। আর সত্যি বলতে কি; বিদেশী কোনো শক্তি জোর করে তা বন্ধ করতে পারবে না। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হয়ে তা বন্ধে সহায়তা করতে হবে। যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭১তম অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মঙ্গলবার এসব কথা বলেন।

ওবামা আরও বলেন, যে বৈশ্বিক শক্তি আমাদের একত্রিত করেছে, সেটাই আবার গভীর স্খলনগুলোকে প্রকট করে তুলেছে। প্রেসিডেন্ট পদে দ্বিতীয় মেয়াদের একেবারে শেষপর্বে এসে জাতিসংঘে এটাই ওবামার শেষ ভাষণ। খবর ভয়েস অব আমেরিকা, সিএনএন ও এএফপির।

মধ্যপ্রাচ্যের মৌলিক নিয়ম-রীতির ভাঙনের উল্লেখ করে ওবামা বলেন, আমাদের সমাজ ব্যবস্থায় এখন অনিশ্চয়তা-অস্বস্তি বিরাজ করছে। একে অপরের ওপর প্রভাব বিস্তার করার চেষ্টা করলে আমাদের উন্নতি হবে না। আমাদের ধর্ম যদি অন্য ধর্মের লোকদের শাস্তি দেয়ার বিধান দেয়, যদি আমরা মানুষদের জেলে ভরে রাখি, মেয়েদের স্কুলে যাওয়া বন্ধ করে দিই, ধর্ম-বর্ণ জাতিভেদে যদি আমরা বৈষম্য করি, তবে আমাদের উন্নতি হবে না। নিরাপত্তাহীন বিশ্ববাস্তবতায় বিভিন্ন দেশের মধ্যে তাই সমন্বয় ও ঐক্য দরকার।

এর আগে জাতিসংঘ মহাসচিব বান কি মুন সাধারণ পরিষদ অধিবেশনের বিতর্ক আলোচনার সূচনা করতে গিয়ে সিরিয়া সংঘাতের অবসান ঘটানোর কথা বলেন। জাতিসংঘের এবারের অধিবেশনে বিভিন্ন দেশের ১৩৫ জন সরকার ও রাষ্ট্রপ্রধান যোগ দিয়েছেন। এতে তারা আলোচনা করবেন বিশ্বের নানা প্রান্তে চলমান সংঘাত, চরম দারিদ্র্য, ক্ষুধা, শরণার্থী সংকট ও জলবায়ু পরিবর্তনের মতো বৈশ্বিক নানা চ্যালেঞ্জ নিয়ে।

জাতিসংঘের অধিবেশনে মার্কিন প্রেসিডেন্ট আরও বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বের সবচেয়ে মারাত্মক শরণার্থী সংকট এবং বিশ্বব্যাপী সন্ত্রাসবাদের হুমকি মোকাবেলায় একটি নতুন কর্মপদ্ধতি গ্রহণ করা প্রয়োজন। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় অগ্রগতি এবং এ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টার ওপরও জোর দেন তিনি। তবে এক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের বিচ্যুতির কথাও স্বীকার করেন ওবামা।

তিনি বলেন, ঠাণ্ডা যুদ্ধের অবসান হওয়ার পর আমরা একটি শতাব্দীর এক-চতুর্থাংশ সময় পার করেছি। আর বিভিন্ন দিক থেকে পৃথিবী এখন আগের চেয়ে কম সহিংস, বেশি সমৃদ্ধ। এ সময় ওবামা যুক্তরাষ্ট্রকে মানব ইতিহাসের এক বিরল পরাশক্তি হিসেবে উল্লেখ করে বলেন, যুক্তরাষ্ট্র নিজের সংকীর্ণ স্বার্থের বাইরে চিন্তা করতে সক্ষম হয়েছে। ভালো কিছুর জন্য বলপ্রয়োগ করেছে। এ মুহূর্তে বৈশ্বিক হুমকি হিসেবে পারমাণবিক অস্ত্রের বিস্তার এবং জিকা ভাইরাসের প্রতি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন তিনি।

দক্ষিণ চীন সাগরের বিরোধপূর্ণ অঞ্চল নিয়ে ওবামা বলেন, এ সংক্রান্ত তর্ক-বিতর্কের চেয়ে এর শান্তিপূর্ণ সমাধান দরকার। রুশ জাতীয়তাবাদ এবং রাশিয়ার প্রতিবেশীদের ব্যাপারে মস্কোর হস্তক্ষেপের সমালোচনা করে ওবামা বলেন, এতে রাশিয়ার মর্যাদা খর্ব হবে। তার সীমানা কম নিরাপদ হবে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X