রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ১০:০০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, January 28, 2017 7:17 pm
A- A A+ Print

‘জনগণকে নিয়ে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলন চলবে’

50

তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ বলেছেন, রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প থেকে সরে আসা না পর্যন্ত  জনগণকে নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। সরকার যুক্তিতে না পেরে শক্তি প্রদর্শনের পথ বেছে নিচ্ছে। এর পরিণাম মোটেই শুভ হবে না। তিনি বলেন, সুন্দরবন বাংলাদেশের প্রাণ। রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হলে সুন্দরবন আর সুন্দর থাকবে না। সুন্দরবন আমাদের অক্সিজেন না দিয়ে কার্বন ড্রাই অক্সাইডের বিষাক্ত ধোঁয়া ছড়াবে। ১৬ কোটি মানুষ সুন্দরবন বাঁচানোর পক্ষে রয়েছে। প্রকল্প বাতিল না হওয়া পর্যন্ত জনগণকে নিয়ে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হরতালে পুলিশি হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন। আনু মুহাম্মদ বলেন, রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার বাগেরহাটে স্থানীয় এক সংসদ সদস্যের নেতৃত্বে দীর্ঘ ছয় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র চাই শ্লোগানে খুলনা-মংলা মহসড়কের মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। ২০ হাজারের বেশি লোক অংশ নিয়েছে বলে একটি টেলিভিশনে সরসারি প্রচার করা হয়েছে। রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে সরকার যদি মানববন্ধন করতে দেয় তাহলে মানববন্ধনটি কয়েক’শ কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ হবে। কয়েক কোটি মানুষ উপস্থিত হয়ে রামপাল প্রকল্পের বিরোধিতা করবেন। তিনি বলেন, কিছু ব্যক্তি তাদের মুনাফার জন্য দেশ ও জনগণের ক্ষতি জেনেও সুন্দরবনের কাছে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সরকারকে উৎসাহিত করছে। পাশাপাশি একটি দেশ তাদের ব্যবসায়িক স্বার্থে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে উৎসাহিত করছে। তিনি আরো বলেন, ‘সরকারকে সাত বছর ধরে রামপাল বন্ধের আহ্বান জানানো হয়েছে। কিন্তু সরকার আমাদের দাবি উপেক্ষা করায় বাধ্য হয়ে হরতাল কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে। সরকার যতক্ষণ না পর্যন্ত রামপাল কয়লা প্রকল্পসহ সুন্দরবনবিনাশী প্রকল্প বাতিল না করবে ততদিন পর্যন্ত আন্দোলন চলবে। এ সময় বক্তব্য রাখেন বজলুর রশিদ ফিরোজ, সাইফুল হক, শুভ্রাংশু চক্রবর্তী, জোনায়েদ সাকী, মোশরেফা মিশু, মোশাররফ হোসেন নান্নু, নাসির উদ্দিন নসু, শওকত হোসেন, শামসুল আলম প্রমুখ।

Comments

Comments!

 ‘জনগণকে নিয়ে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলন চলবে’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘জনগণকে নিয়ে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলন চলবে’

Saturday, January 28, 2017 7:17 pm
50

তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির সদস্য সচিব আনু মুহাম্মদ বলেছেন, রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প থেকে সরে আসা না পর্যন্ত  জনগণকে নিয়ে আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে। সরকার যুক্তিতে না পেরে শক্তি প্রদর্শনের পথ বেছে নিচ্ছে। এর পরিণাম মোটেই শুভ হবে না।

তিনি বলেন, সুন্দরবন বাংলাদেশের প্রাণ। রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ হলে সুন্দরবন আর সুন্দর থাকবে না। সুন্দরবন আমাদের অক্সিজেন না দিয়ে কার্বন ড্রাই অক্সাইডের বিষাক্ত ধোঁয়া ছড়াবে। ১৬ কোটি মানুষ সুন্দরবন বাঁচানোর পক্ষে রয়েছে। প্রকল্প বাতিল না হওয়া পর্যন্ত জনগণকে নিয়ে সুন্দরবন রক্ষার আন্দোলন চালিয়ে যাওয়া হবে।

শনিবার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে হরতালে পুলিশি হামলা ও নির্যাতনের প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে তিনি এসব কথা বলেন।

আনু মুহাম্মদ বলেন, রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র প্রকল্প দ্রুত বাস্তবায়নের দাবিতে গত বৃহস্পতিবার বাগেরহাটে স্থানীয় এক সংসদ সদস্যের নেতৃত্বে দীর্ঘ ছয় কিলোমিটার এলাকাজুড়ে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। রামপালে বিদ্যুৎকেন্দ্র চাই শ্লোগানে খুলনা-মংলা মহসড়কের মানববন্ধন করেছে এলাকাবাসী। ২০ হাজারের বেশি লোক অংশ নিয়েছে বলে একটি টেলিভিশনে সরসারি প্রচার করা হয়েছে। রামপাল কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ প্রকল্প বাতিলের দাবিতে সরকার যদি মানববন্ধন করতে দেয় তাহলে মানববন্ধনটি কয়েক’শ কিলোমিটারের বেশি দীর্ঘ হবে। কয়েক কোটি মানুষ উপস্থিত হয়ে রামপাল প্রকল্পের বিরোধিতা করবেন।

তিনি বলেন, কিছু ব্যক্তি তাদের মুনাফার জন্য দেশ ও জনগণের ক্ষতি জেনেও সুন্দরবনের কাছে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে সরকারকে উৎসাহিত করছে। পাশাপাশি একটি দেশ তাদের ব্যবসায়িক স্বার্থে রামপালে কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণে উৎসাহিত করছে।

তিনি আরো বলেন, ‘সরকারকে সাত বছর ধরে রামপাল বন্ধের আহ্বান জানানো হয়েছে। কিন্তু সরকার আমাদের দাবি উপেক্ষা করায় বাধ্য হয়ে হরতাল কর্মসূচি দেওয়া হয়েছে। সরকার যতক্ষণ না পর্যন্ত রামপাল কয়লা প্রকল্পসহ সুন্দরবনবিনাশী প্রকল্প বাতিল না করবে ততদিন পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।

এ সময় বক্তব্য রাখেন বজলুর রশিদ ফিরোজ, সাইফুল হক, শুভ্রাংশু চক্রবর্তী, জোনায়েদ সাকী, মোশরেফা মিশু, মোশাররফ হোসেন নান্নু, নাসির উদ্দিন নসু, শওকত হোসেন, শামসুল আলম প্রমুখ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X