বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৬:৩৯
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, July 26, 2016 1:39 am
A- A A+ Print

জামায়াতহীন নতুন ‘বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম’ শুরুর নীতিগত সিদ্ধান্ত বিএনপির

1462810133

ডেস্ক রিপোর্ট: ‘বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম’ গঠনের আনুষ্ঠানিক কাজ শিগগিরই শুরু করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। তবে এই প্ল্যাটফর্ম হবে জামায়াত সহ বিএনপি জোটের বর্তমান শরিকেরা। আওয়ামী লীগ ও তার নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক দলগুলোকেও এই প্ল্যাটফর্মে রাখা হবে না বলে জানা গেছে। মূলত বিএনপির জোটসঙ্গী জামায়াতে ইসলামীকে এই প্রক্রিয়ার বাইরে রাখতে অন্য শরিকদেরও আমন্ত্রণ না জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির শুভাকাঙ্ক্ষী বুদ্ধিজীবী এমাজউদ্দীন আহমদ ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী গতকাল রোববার রাতে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় জাতীয় ঐক্য বা বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম গঠনের লক্ষ্যে শিগগিরই বিএনপির সমমনা বিভিন্ন দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে। বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর লন্ডন থেকে গত শনিবার দেশে ফেরেন। তাঁর ফেরার পর ঐক্য গঠনের প্রক্রিয়া নিয়ে তৎপরতা শুরু হয়। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, এমন একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সম্ভবত এ সপ্তাহেই খালেদা জিয়া বিভিন্ন দলকে আমন্ত্রণ জানাবেন। গতকালের আলোচনায় মনে হয়েছে, জামায়াতে ইসলামীকে এই প্রক্রিয়ার বাইরে রাখা হবে। এটি এমনও হতে পারে যে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটে যারা আছে, তাদের কাউকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। অথবা শুধু জামায়াতে ইসলামীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। বিএনপির সূত্র জানায়, বিএনপি মূলত জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে একমত, এমন দলগুলোকে নিয়ে একটি বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম গঠন করতে চায়। ড. কামাল হোসেনের গণফোরাম, এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন বিকল্প ধারা, কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন কৃষক-শ্রমিক-জনতা লীগ, আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বাধীন জেএসডি, সিপিবি, বাসদকে চায়ের আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। এ জন্য অনানুষ্ঠানিক আলোচনাও চলছে। বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান সোমবার এক আলোচনা সভায় বলেন, “আমরা জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি, কাজ চলছে। দল-মত নির্বিশেষে সকলের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করছি।” বিএনপি মনে করছে সরকারের জনপ্রিয়তা বর্তমানে তলানিতে ঠেকেছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান সোমবার এক আলোচনা সভায় বলেন, অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে এখন যারাই আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে দাঁড়াবে, তারাই ভোটে জিতবে। তবে জামায়াতসহ ইসলামী দলগুলো জোটে থাকায় সরকারবিরোধী অন্য দলগুলোকে পাশে পাওয়া যাচ্ছে না বলে বিএনপির অনেক নেতার মূল্যায়ন। পাশাপাশি বিএনপি-ঘনিষ্ঠ পেশাজীবীদের মধ্য থেকেও জামায়াতের সঙ্গ ছেড়ে অন্য দলগুলোকে পাশে নিয়ে আন্দোলনের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। সম্প্রতি ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ, জাফরুল্লাহ চৌধুরীও জামায়াতকে বাদ দিয়ে অন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে ‘জাতীয় ঐক্যে’ শরিক করার উদ্যোগ নিতে বিএনপিকে পরামর্শ দেন। স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতের সংশ্লিষ্টতা ধরে আওয়ামী লীগের বাক-আক্রমণে চাপে থাকা বিএনপি তার পরিপ্রেক্ষিতে আপাতত ২০ দলকে নিষ্ক্রিয় রেখে নতুন উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে বলে দলটি নেতাদের কথায় স্পষ্ট।    

Comments

Comments!

 জামায়াতহীন নতুন ‘বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম’ শুরুর নীতিগত সিদ্ধান্ত বিএনপিরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

জামায়াতহীন নতুন ‘বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম’ শুরুর নীতিগত সিদ্ধান্ত বিএনপির

Tuesday, July 26, 2016 1:39 am
1462810133

ডেস্ক রিপোর্ট: ‘বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম’ গঠনের আনুষ্ঠানিক কাজ শিগগিরই শুরু করার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিএনপি। তবে এই প্ল্যাটফর্ম হবে জামায়াত সহ বিএনপি জোটের বর্তমান শরিকেরা। আওয়ামী লীগ ও তার নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক দলগুলোকেও এই প্ল্যাটফর্মে রাখা হবে না বলে জানা গেছে।

মূলত বিএনপির জোটসঙ্গী জামায়াতে ইসলামীকে এই প্রক্রিয়ার বাইরে রাখতে অন্য শরিকদেরও আমন্ত্রণ না জানানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া, মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, বিএনপির শুভাকাঙ্ক্ষী বুদ্ধিজীবী এমাজউদ্দীন আহমদ ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা জাফরুল্লাহ চৌধুরী গতকাল রোববার রাতে গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় জাতীয় ঐক্য বা বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম গঠনের লক্ষ্যে শিগগিরই বিএনপির সমমনা বিভিন্ন দলকে আমন্ত্রণ জানানো হবে।
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর লন্ডন থেকে গত শনিবার দেশে ফেরেন। তাঁর ফেরার পর ঐক্য গঠনের প্রক্রিয়া নিয়ে তৎপরতা শুরু হয়।

বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, এমন একজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, সম্ভবত এ সপ্তাহেই খালেদা জিয়া বিভিন্ন দলকে আমন্ত্রণ জানাবেন। গতকালের আলোচনায় মনে হয়েছে, জামায়াতে ইসলামীকে এই প্রক্রিয়ার বাইরে রাখা হবে। এটি এমনও হতে পারে যে বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০-দলীয় জোটে যারা আছে, তাদের কাউকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না। অথবা শুধু জামায়াতে ইসলামীকে আমন্ত্রণ জানানো হবে না।

বিএনপির সূত্র জানায়, বিএনপি মূলত জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে একমত, এমন দলগুলোকে নিয়ে একটি বৃহত্তর প্ল্যাটফর্ম গঠন করতে চায়। ড. কামাল হোসেনের গণফোরাম, এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন বিকল্প ধারা, কাদের সিদ্দিকীর নেতৃত্বাধীন কৃষক-শ্রমিক-জনতা লীগ, আ স ম আবদুর রবের নেতৃত্বাধীন জেএসডি, সিপিবি, বাসদকে চায়ের আমন্ত্রণ জানানো হতে পারে। এ জন্য অনানুষ্ঠানিক আলোচনাও চলছে।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান সোমবার এক আলোচনা সভায় বলেন, “আমরা জাতীয় ঐক্য প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ গ্রহণ করেছি, কাজ চলছে। দল-মত নির্বিশেষে সকলের সঙ্গে আমরা যোগাযোগ করছি।”

বিএনপি মনে করছে সরকারের জনপ্রিয়তা বর্তমানে তলানিতে ঠেকেছে। দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান সোমবার এক আলোচনা সভায় বলেন, অবস্থা এমন দাঁড়িয়েছে যে এখন যারাই আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে দাঁড়াবে, তারাই ভোটে জিতবে। তবে জামায়াতসহ ইসলামী দলগুলো জোটে থাকায় সরকারবিরোধী অন্য দলগুলোকে পাশে পাওয়া যাচ্ছে না বলে বিএনপির অনেক নেতার মূল্যায়ন।

পাশাপাশি বিএনপি-ঘনিষ্ঠ পেশাজীবীদের মধ্য থেকেও জামায়াতের সঙ্গ ছেড়ে অন্য দলগুলোকে পাশে নিয়ে আন্দোলনের পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে।

সম্প্রতি ব্যারিস্টার রফিক-উল হক, অধ্যাপক এমাজউদ্দীন আহমদ, জাফরুল্লাহ চৌধুরীও জামায়াতকে বাদ দিয়ে অন্য রাজনৈতিক দলগুলোকে ‘জাতীয় ঐক্যে’ শরিক করার উদ্যোগ নিতে বিএনপিকে পরামর্শ দেন।

স্বাধীনতার বিরোধিতাকারী দল জামায়াতের সংশ্লিষ্টতা ধরে আওয়ামী লীগের বাক-আক্রমণে চাপে থাকা বিএনপি তার পরিপ্রেক্ষিতে আপাতত ২০ দলকে নিষ্ক্রিয় রেখে নতুন উদ্যোগ নিতে যাচ্ছে বলে দলটি নেতাদের কথায় স্পষ্ট।

 

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X