সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:১৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, October 25, 2016 10:19 pm
A- A A+ Print

জিহাদের মৃত্যু : জামিন প্রশ্নে আসামিদের কারণ দর্শানোর নোটিশ

photo-1477410431

পাইপে পড়ে চার বছরের শিশু জিহাদের মৃত্যুর মামলায় ছয় আসামির জামিন কেন বাতিল করা হবে না তা জানাতে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। আজ মঙ্গলবার ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন। আদালত সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি মামলার পাঁচজন সাক্ষী আদালতের নির্দেশে সাক্ষ্য দিতে আদালতে উপস্থিত হন। এরপর তিনজন সাক্ষী অজ্ঞাত কারণে সাক্ষ্য না দিয়ে আদালত থেকে চলে যান। এ কারণে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী শওকত আলম দরখাস্ত দিয়ে আদালতকে জানান, জামিনে মুক্ত আসামিদের হস্তক্ষেপের কারণে আদালতে উপস্থিত সাক্ষীরা সাক্ষ্য না দিয়ে চলে গেছেন। পরে নথি পর্যালোচনায় বিচারক মনে করেন রাষ্ট্রপক্ষের ওই দরখাস্ত যৌক্তিক। তবে আসামিরা জামিন থাকায় এবং রাষ্ট্রপক্ষের ওই দরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন। জামিনে মুক্ত ছয় আসামির জামিন কেন বাতিল করা হবে না সে বিষয়ে আগামীকাল বুধবার লিখিতভাবে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আসামিরা হলেন- ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স এসআর হাউসের মালিক মো. শফিকুল ইসলাম ওরফে আব্দুস সালাম, বাংলাদেশ রেলওয়ের সিনিয়র সাব অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (নলকূপ পরিদর্শন) মো. জাহাঙ্গীর আলম, কমলাপুর রেলওয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. নাসির উদ্দিন, ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার আবু আহমেদ শাকি, সহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) দীপক কুমার ভৌমিক এবং সহকারী প্রকৌশলী-২ মো. সাইফুল ইসলাম। মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর শাহজাহানপুর কলোনির মাঠে খেলতে গিয়ে শিশু জিহাদ ওয়াসা ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের অরক্ষিত পাইপে পড়ে মারা যায়। দীর্ঘ ২৩ ঘণ্টা অভিযান চালানোর পরও ফায়ার সার্ভিস তাকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়। পরে সাধারণ লোকজন তাদের নিজস্ব যন্ত্রপাতি দিয়ে শিশু জিহাদের মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনায় জিহাদের বাবা ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর মামলা করেন। মামলা শেষে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপপরিদর্শক মিজানুর রহমান রেলওয়ের জ্যেষ্ঠ উপসহকারী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলমসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

Comments

Comments!

 জিহাদের মৃত্যু : জামিন প্রশ্নে আসামিদের কারণ দর্শানোর নোটিশAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

জিহাদের মৃত্যু : জামিন প্রশ্নে আসামিদের কারণ দর্শানোর নোটিশ

Tuesday, October 25, 2016 10:19 pm
photo-1477410431

পাইপে পড়ে চার বছরের শিশু জিহাদের মৃত্যুর মামলায় ছয় আসামির জামিন কেন বাতিল করা হবে না তা জানাতে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

আজ মঙ্গলবার ঢাকার পাঁচ নম্বর বিশেষ জজ ড. মো. আখতারুজ্জামান এ আদেশ দেন।

আদালত সূত্রে জানা যায়, সম্প্রতি মামলার পাঁচজন সাক্ষী আদালতের নির্দেশে সাক্ষ্য দিতে আদালতে উপস্থিত হন। এরপর তিনজন সাক্ষী অজ্ঞাত কারণে সাক্ষ্য না দিয়ে আদালত থেকে চলে যান।

এ কারণে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী শওকত আলম দরখাস্ত দিয়ে আদালতকে জানান, জামিনে মুক্ত আসামিদের হস্তক্ষেপের কারণে আদালতে উপস্থিত সাক্ষীরা সাক্ষ্য না দিয়ে চলে গেছেন। পরে নথি পর্যালোচনায় বিচারক মনে করেন রাষ্ট্রপক্ষের ওই দরখাস্ত যৌক্তিক।

তবে আসামিরা জামিন থাকায় এবং রাষ্ট্রপক্ষের ওই দরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে আসামিদের আত্মপক্ষ সমর্থনের সুযোগ দেওয়া প্রয়োজন।

জামিনে মুক্ত ছয় আসামির জামিন কেন বাতিল করা হবে না সে বিষয়ে আগামীকাল বুধবার লিখিতভাবে কারণ দর্শানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

আসামিরা হলেন- ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মেসার্স এসআর হাউসের মালিক মো. শফিকুল ইসলাম ওরফে আব্দুস সালাম, বাংলাদেশ রেলওয়ের সিনিয়র সাব অ্যাসিস্ট্যান্ট ইঞ্জিনিয়ার (নলকূপ পরিদর্শন) মো. জাহাঙ্গীর আলম, কমলাপুর রেলওয়ের সহকারী প্রকৌশলী মো. নাসির উদ্দিন, ইলেকট্রিক ইঞ্জিনিয়ার আবু আহমেদ শাকি, সহকারী প্রকৌশলী (বিদ্যুৎ) দীপক কুমার ভৌমিক এবং সহকারী প্রকৌশলী-২ মো. সাইফুল ইসলাম।

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০১৪ সালের ২৬ ডিসেম্বর শাহজাহানপুর কলোনির মাঠে খেলতে গিয়ে শিশু জিহাদ ওয়াসা ও রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের অরক্ষিত পাইপে পড়ে মারা যায়। দীর্ঘ ২৩ ঘণ্টা অভিযান চালানোর পরও ফায়ার সার্ভিস তাকে উদ্ধার করতে ব্যর্থ হয়। পরে সাধারণ লোকজন তাদের নিজস্ব যন্ত্রপাতি দিয়ে শিশু জিহাদের মরদেহ উদ্ধার করে।

এ ঘটনায় জিহাদের বাবা ২০১৪ সালের ২৮ ডিসেম্বর মামলা করেন।

মামলা শেষে ২০১৬ সালের ৩১ মার্চ পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) উপপরিদর্শক মিজানুর রহমান রেলওয়ের জ্যেষ্ঠ উপসহকারী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলমসহ ছয়জনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X