রবিবার, ১৮ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৬ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:৪৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, December 3, 2016 7:19 pm
A- A A+ Print

জেলা পরিষদ নির্বাচন : আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর ওপর হামলা, গুলি

%e0%a7%aa%e0%a7%a6

খুলনায় আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী অজয় সরকার হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অজয়ের দাবি, এ সময় তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে দুটি গুলি ছোড়া হয় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে দিয়ে তাঁর পেটে আঘাত করা হয়। শনিবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে মনোনয়নপত্র বাছাই প্রক্রিয়া শেষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। অজয় সরকারের অভিযোগ, জেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শেখ হারুনুর রশীদের অনুসারীরা এই হামলা চালিয়েছেন। অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে কামরুজ্জামান জামাল বলেন, ‘এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। বরং তিনি (অজয়) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে কটূক্তি করছেন। এরপর দলীয় নেতা-কর্মীরা তাঁকে গালিগালাজ করছে বলে আমি শুনেছি।’ অজয় সরকার নিজেই গুলি ছুড়েছেন বলে দাবি করেন তিনি। অজয় সরকার বলেন, ‘বেলা দেড়টার দিকে খবর পাই, আমার কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা হচ্ছে। বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ কমিশনারকে জানাই। তিনি আশ্বস্ত করার পর দুইটার আগেই আমি রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে যাই। সেখানে জেলা প্রশাসককেও নিরাপত্তাহীনতার বিষয়টি জানাই। আমার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণার পর পুলিশের নিরাপত্তায় নিচে নামছিলাম। এ সময় জামালের নেতৃত্বে হারুনুর রশীদের অনুসারীরা নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার হুমকি দিয়ে চরম মূল্য দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেন। একপর্যায়ে গাড়িতে ওঠার সময় পেছন থেকে তাঁরা হামলা চালান। তাঁরা আমাকে একাধিকবার কোপ দেওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশ ঘিরে রাখায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছি; একটি কোপ পেটের বাম পাশে লেগেছে।’ প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়ার কথা জানালেও কোথায় আছেন তা জানাতে চাননি অজয়। অজয় সরকার বলেন, ‘হামলার পর দ্রুত হাসপাতালে যাওয়ার সময় আমার গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। গুলি দুটি গাড়ির পেছনে লাগে। এ সময় আমার চালক দ্রুত আমাকে নিরাপদে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হবে।’ নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও খুলনার জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান বেলা তিনটার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, আজ প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শুরু হয়েছে। সকাল থেকে কিছুটা উত্তেজনাও ছিল। বাছাইয়ের সময় উপস্থিত হয়ে অজয় সরকার তাঁর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্নের কথা জানান। পরিবেশ অন্যরকম দেখে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) অতিরিক্ত পুলিশ আনতে বলা হয়। সেই মোতাবেক অতিরিক্ত পুলিশ আসার পর প্রার্থী নিজের ইচ্ছাতেই নিচে নেমে যান। পরের ঘটনা আর কিছু শোনা হয়নি। হামলা ও দুটি গুলি ছাড়ার সত্যতা নিশ্চিত করে খুলনা সদর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments

Comments!

 জেলা পরিষদ নির্বাচন : আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর ওপর হামলা, গুলিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

জেলা পরিষদ নির্বাচন : আ. লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীর ওপর হামলা, গুলি

Saturday, December 3, 2016 7:19 pm
%e0%a7%aa%e0%a7%a6

খুলনায় আসন্ন জেলা পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী অজয় সরকার হামলার শিকার হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। অজয়ের দাবি, এ সময় তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে দুটি গুলি ছোড়া হয় ও ধারালো অস্ত্র দিয়ে দিয়ে তাঁর পেটে আঘাত করা হয়।

শনিবার বেলা পৌনে তিনটার দিকে মনোনয়নপত্র বাছাই প্রক্রিয়া শেষে জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয় চত্বরে এ ঘটনা ঘটে।

অজয় সরকারের অভিযোগ, জেলা যুবলীগের সভাপতি ও জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল এবং আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শেখ হারুনুর রশীদের অনুসারীরা এই হামলা চালিয়েছেন।

অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করে কামরুজ্জামান জামাল বলেন, ‘এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। বরং তিনি (অজয়) প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সম্পর্কে কটূক্তি করছেন। এরপর দলীয় নেতা-কর্মীরা তাঁকে গালিগালাজ করছে বলে আমি শুনেছি।’ অজয় সরকার নিজেই গুলি ছুড়েছেন বলে দাবি করেন তিনি।

অজয় সরকার বলেন, ‘বেলা দেড়টার দিকে খবর পাই, আমার কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা হচ্ছে। বিষয়টি সঙ্গে সঙ্গেই পুলিশ কমিশনারকে জানাই। তিনি আশ্বস্ত করার পর দুইটার আগেই আমি রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে যাই। সেখানে জেলা প্রশাসককেও নিরাপত্তাহীনতার বিষয়টি জানাই। আমার মনোনয়নপত্র বৈধ ঘোষণার পর পুলিশের নিরাপত্তায় নিচে নামছিলাম। এ সময় জামালের নেতৃত্বে হারুনুর রশীদের অনুসারীরা নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার হুমকি দিয়ে চরম মূল্য দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকতে বলেন। একপর্যায়ে গাড়িতে ওঠার সময় পেছন থেকে তাঁরা হামলা চালান। তাঁরা আমাকে একাধিকবার কোপ দেওয়ার চেষ্টা করে। পুলিশ ঘিরে রাখায় অল্পের জন্য রক্ষা পেয়েছি; একটি কোপ পেটের বাম পাশে লেগেছে।’ প্রাথমিক চিকিৎসা নেওয়ার কথা জানালেও কোথায় আছেন তা জানাতে চাননি অজয়।

অজয় সরকার বলেন, ‘হামলার পর দ্রুত হাসপাতালে যাওয়ার সময় আমার গাড়ি লক্ষ্য করে গুলি ছোড়া হয়। গুলি দুটি গাড়ির পেছনে লাগে। এ সময় আমার চালক দ্রুত আমাকে নিরাপদে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে পুলিশের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হবে।’

নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও খুলনার জেলা প্রশাসক নাজমুল আহসান বেলা তিনটার দিকে প্রথম আলোকে বলেন, আজ প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শুরু হয়েছে। সকাল থেকে কিছুটা উত্তেজনাও ছিল। বাছাইয়ের সময় উপস্থিত হয়ে অজয় সরকার তাঁর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্নের কথা জানান। পরিবেশ অন্যরকম দেখে সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) অতিরিক্ত পুলিশ আনতে বলা হয়। সেই মোতাবেক অতিরিক্ত পুলিশ আসার পর প্রার্থী নিজের ইচ্ছাতেই নিচে নেমে যান। পরের ঘটনা আর কিছু শোনা হয়নি।

হামলা ও দুটি গুলি ছাড়ার সত্যতা নিশ্চিত করে খুলনা সদর থানার ওসি শফিকুল ইসলাম বলেন, অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X