সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৩:৪১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, October 23, 2016 7:32 pm
A- A A+ Print

ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের রাস্তা পারাপার, দেখার কেউ নেই

157423_1

   
জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রান্তিক ও ডেইরি গেটের সামনের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের স্পীডব্রেকার সরিয়ে ফেলায় ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপারে বাধ্য হচ্ছে জাবির শিক্ষার্থীরা। ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হলেও এটা যেন দেখার কেউ নেই। নেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনেরও কোনো মাথাব্যাথা। আর এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে এখানকার শিক্ষার্থীদের মধ্যে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৫ অক্টোবর চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং রাষ্ট্রীয় সফরের অংশ হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। তার স্মৃতিসৌধে আসার ফলে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের ২২টি স্পিডব্রেকার সরিয়ে ফেলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এর অংশ হিসেবে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেইরি গেট (মূল ফটক) এবং প্রান্তিক গেটের স্পিডব্রেকারও সরিয়ে ফেলা হয়।   সরেজমিনে দেখা যায়, ডেইরি গেটে একটি ওভারব্রীজ থাকলেও প্রান্তিক গেটে কোনো ওভারব্রীজ নেই। ফলে ডেইরি গেটে শিক্ষার্থীরা ওভারব্রীজের মাধ্যমে রাস্তা পারাপার হলেও প্রান্তিক গেটে শিক্ষার্থীরা তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে। ফলে এখানে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।
এ বিষয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী মোশতাক আরমান সাকিফ বলেন, আগে স্পীডব্রেকার থাকলেও এখানে কয়েকটি বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটেছে। স্পীডব্রেকার থাকার পরেও যেখানে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে সেখানে স্পীডব্রেকার না থাকলে কি হতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান তিনি।   এদিকে সচেতন শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে তাদের ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ও আশংকার কথা জানিয়ে বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য করছেন। নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী রাজীব রাজ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের গ্রুপে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে লিখেছেন- ‘বুঝলাম না, প্রান্তিক গেটের স্পীডব্রেকার নিয়ে প্রশাসনের কোনো মাথা ব্যাথা নেই কেন? কোনো দুর্ঘটনা না ঘটার আগে মনে হয় প্রশাসনের টনক নড়বে না।’ নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়াসির আরাফাত মুন্না মরতে মরতে বেঁচে গেছে উল্লেখ করে লিখেছেন- ‘স্পিডবেকার থাকার পরও প্রান্তিক গেটের রাস্তা পার হওয়াটা বেশ ঝুঁকির। ওভারব্রিজের ব্যবস্থা করার সামর্থও দেখাচ্ছে না প্রশাসন। তার ওপর আবার স্পীডব্রেকার তুলে দিয়েছে। আমি নিজেও এর ভুক্তভোগী, মরতে মরতে বেঁচে গেছি।’ আইবিএর শিক্ষার্থী মুশফিক আবদুল্লাহ তার টাইমলাইনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে  লিখেছেন- ‘আগে স্পিডব্রেকারের জন্য একটু হলেও ধীরে চলা গাড়িগুলো এখন ডেইরি গেট আর প্রান্তিকে যেন গাড়ি থাকে না, জেট বিমান না হলেও অন্তত জেট বিমানের চাচাতো ভাই হয়ে যায়। যেকোনো মুহূর্তে যেকোনো ছাত্রছাত্রী ‘মেধাবী’ হয়ে যেতে পারে।’ তিনি আরও লিখেছেন- ‘বেশিদিন আগের কথা না। স্পিডব্রেকার থাকা স্বত্ত্বেও ৪১ ব্যাচের স্বপ্না সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনেই মারা যায়। আবারো যদি ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়, দায়দায়িত্ব আসলে কার? দায়দায়িত্ব যারই হোক, একটি পরিবারের আজীবনের কান্না কিন্তু আর ঠেকানো যাবে না। অবিলম্বে আবার স্পিডব্রেকার স্থাপন করার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানাই।’ এদিকে ডেপুটি রেজিস্টার (প্রশাসন-১) রহিমা কানিজ সাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রতিটি হলে দেয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং রাষ্ট্রীয় সফরের অংশ হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। এর ফলে ডেইরি গেট (মূল ফটক) এবং প্রান্তিক গেটের স্পিডব্রেকারও সরিয়ে ফেলা হয়েছে। স্পীডব্রেকার প্রতিস্থাপনে সড়ক ও জনপদ বিভাগকে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. তপন কুমার সাহা বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে এ বিষয়ে প্রশাসনকে জানিয়েছি এবং তারা সড়ক ও জনপদ বিভাগকে জানিয়েছে। আশা করছি অতি দ্রুতই তারা স্পীডব্রেকার প্রতিস্থাপন করবে।’

Comments

Comments!

 ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের রাস্তা পারাপার, দেখার কেউ নেইAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষার্থীদের রাস্তা পারাপার, দেখার কেউ নেই

Sunday, October 23, 2016 7:32 pm
157423_1

 

 

জাবি: জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) প্রান্তিক ও ডেইরি গেটের সামনের ঢাকা-আরিচা মহাসড়কের স্পীডব্রেকার সরিয়ে ফেলায় ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপারে বাধ্য হচ্ছে জাবির শিক্ষার্থীরা। ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হলেও এটা যেন দেখার কেউ নেই। নেই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনেরও কোনো মাথাব্যাথা। আর এ নিয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে এখানকার শিক্ষার্থীদের মধ্যে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত ১৫ অক্টোবর চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং রাষ্ট্রীয় সফরের অংশ হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। তার স্মৃতিসৌধে আসার ফলে ঢাকা আরিচা মহাসড়কের ২২টি স্পিডব্রেকার সরিয়ে ফেলে সড়ক ও জনপথ বিভাগ। এর অংশ হিসেবে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ডেইরি গেট (মূল ফটক) এবং প্রান্তিক গেটের স্পিডব্রেকারও সরিয়ে ফেলা হয়।

 

সরেজমিনে দেখা যায়, ডেইরি গেটে একটি ওভারব্রীজ থাকলেও প্রান্তিক গেটে কোনো ওভারব্রীজ নেই। ফলে ডেইরি গেটে শিক্ষার্থীরা ওভারব্রীজের মাধ্যমে রাস্তা পারাপার হলেও প্রান্তিক গেটে শিক্ষার্থীরা তাদের জীবনের ঝুঁকি নিয়ে রাস্তা পারাপার হচ্ছে। ফলে এখানে যেকোনো সময় ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দুর্ঘটনা।

এ বিষয়ে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের ৩য় বর্ষের শিক্ষার্থী মোশতাক আরমান সাকিফ বলেন, আগে স্পীডব্রেকার থাকলেও এখানে কয়েকটি বড় ধরণের দুর্ঘটনা ঘটেছে। স্পীডব্রেকার থাকার পরেও যেখানে বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে সেখানে স্পীডব্রেকার না থাকলে কি হতে পারে তা সহজেই অনুমেয়। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহবান জানান তিনি।

 

এদিকে সচেতন শিক্ষার্থীরা সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম ফেসবুকে তাদের ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ও আশংকার কথা জানিয়ে বিভিন্ন ধরণের মন্তব্য করছেন।

নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগের শিক্ষার্থী রাজীব রাজ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসক্লাবের গ্রুপে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে লিখেছেন- ‘বুঝলাম না, প্রান্তিক গেটের স্পীডব্রেকার নিয়ে প্রশাসনের কোনো মাথা ব্যাথা নেই কেন? কোনো দুর্ঘটনা না ঘটার আগে মনে হয় প্রশাসনের টনক নড়বে না।’

নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ইয়াসির আরাফাত মুন্না মরতে মরতে বেঁচে গেছে উল্লেখ করে লিখেছেন- ‘স্পিডবেকার থাকার পরও প্রান্তিক গেটের রাস্তা পার হওয়াটা বেশ ঝুঁকির। ওভারব্রিজের ব্যবস্থা করার সামর্থও দেখাচ্ছে না প্রশাসন। তার ওপর আবার স্পীডব্রেকার তুলে দিয়েছে। আমি নিজেও এর ভুক্তভোগী, মরতে মরতে বেঁচে গেছি।’

আইবিএর শিক্ষার্থী মুশফিক আবদুল্লাহ তার টাইমলাইনে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে  লিখেছেন- ‘আগে স্পিডব্রেকারের জন্য একটু হলেও ধীরে চলা গাড়িগুলো এখন ডেইরি গেট আর প্রান্তিকে যেন গাড়ি থাকে না, জেট বিমান না হলেও অন্তত জেট বিমানের চাচাতো ভাই হয়ে যায়। যেকোনো মুহূর্তে যেকোনো ছাত্রছাত্রী ‘মেধাবী’ হয়ে যেতে পারে।’

তিনি আরও লিখেছেন- ‘বেশিদিন আগের কথা না। স্পিডব্রেকার থাকা স্বত্ত্বেও ৪১ ব্যাচের স্বপ্না সড়ক দুর্ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনেই মারা যায়। আবারো যদি ঘটনার পুনরাবৃত্তি হয়, দায়দায়িত্ব আসলে কার? দায়দায়িত্ব যারই হোক, একটি পরিবারের আজীবনের কান্না কিন্তু আর ঠেকানো যাবে না। অবিলম্বে আবার স্পিডব্রেকার স্থাপন করার জন্য কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানাই।’

এদিকে ডেপুটি রেজিস্টার (প্রশাসন-১) রহিমা কানিজ সাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রতিটি হলে দেয়া হয়েছে। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং রাষ্ট্রীয় সফরের অংশ হিসেবে জাতীয় স্মৃতিসৌধে মুক্তিযুদ্ধের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। এর ফলে ডেইরি গেট (মূল ফটক) এবং প্রান্তিক গেটের স্পিডব্রেকারও সরিয়ে ফেলা হয়েছে। স্পীডব্রেকার প্রতিস্থাপনে সড়ক ও জনপদ বিভাগকে জানানো হয়েছে।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. তপন কুমার সাহা বলেন, ‘আমরা ইতোমধ্যে এ বিষয়ে প্রশাসনকে জানিয়েছি এবং তারা সড়ক ও জনপদ বিভাগকে জানিয়েছে। আশা করছি অতি দ্রুতই তারা স্পীডব্রেকার প্রতিস্থাপন করবে।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X