বুধবার, ২০শে সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ইং, ৫ই আশ্বিন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, July 16, 2017 10:01 pm
A- A A+ Print

টেন্ডার নিয়ে জবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত ৮

jnu_52321_1500218477

টেন্ডার জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে সাংবাদিকসহ ৮ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে। রোববার বেলা ১২টার দিকে ৭ লাখ টাকার টেন্ডার নিয়ে নতুন একাডেমিক ভবনে সংঘর্ষের সূচনা হয়। সংঘর্ষে গুরুতর আহত ৩ জন ঢাকা মেডিকেল এবং অপর একজন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ বর্ষের ডায়েরি ও ক্যালেন্ডার মুদ্রণ, বাঁধাই এবং সরবরাহ- সংক্রান্ত দরপত্র জমা দেয়ার নির্ধারিত সময় ছিল রোববার ১২টা পর্যন্ত। এ বিষয়ে সকাল ১০টার দিকে ময়মনসিংহ গ্রুপ হিসেবে পরিচিত তানভির রহমান, আনিসুর রহমান শিশির, জহির রায়হান আগুনের নেতৃত্বে একটি দরপত্র জমা দেওয়া হয়, তাদের সঙ্গে বরিশাল গ্রুপের ইব্রাহিম ফরাজিও যৌথভাবে একটি দরপত্র জমা দেন। দরপত্র জমা দিয়ে তাদের অনুসারীরা নতুন ভবনের সামনে মহড়া দিতে থাকে। পৌনে ১২টার দিকে সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের অনুসারী জুয়েল রানা 'সরকার ট্রের্ডাসের’ নামে একটি দরপত্র জমা দিতে গেলে ময়মনসিংহ গ্রুপের কর্মী নাদিমের নেতৃত্বে সিরাজুল ইসলামের অনুসারীদের ওপর হামলা চালানো হয়। সে সময় ঘটনার স্থিরচিত্র ধারল করতে গেলে একটি অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিক আব্দুল ওহাবকে মারধর করে নাদিমসহ আরো কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী। একপর্যায়ে আব্দুল ওহাব মাটিতে পড়ে গেলে নাদিম ও তার সাথে থাকা ময়মনসিংহ গ্রুপের কর্মীরা তাকে লাথি ও ঘুষি মারতে থাকে। এতে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে তার সহপাঠীরা তাকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। এসময় তার হাতে থাকা দামি মোবাইল ফোনও কেড়ে নেয়া হয়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র ক্যাম্পাসে উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করতে থাকে। এসময় শাখা ছাত্রলীগের বিভিন্ন উপ-গ্রুপ পুরো ক্যাম্পাসে শোডাউন দিতে থাকে। এক পর্যায়ে বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে সাবেক সভাপতি শরিফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের গ্রুপের কর্মীরা যৌথভাবে মহড়া দেন। এসময় তাদের অনুসারী মোমেন, ফয়সাল, প্রীতিজ রাজ, পোগেজ স্কুলের ছাত্রলীগে সভাপতি নুহাস মিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ময়মনয়সিংহ গ্রুপ আগুনের কর্মী শান্তকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় এলোপাতাড়ি কুপায়। আহত অবস্থায় তাকে ন্যাশনাল মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে তার অবস্থা আরও অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। এছাড়াও আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ইমারজেন্সি বিভাগের সামনে আনিসুর রহমান শিশির ও জহির রায়হান আগুনের নেতৃত্বে সিরাজ গ্রুপের কর্মীদের ওপর আরেক দফা অতর্কিত হামলা করা হয়। এসময় সম্রাট, তৌকির, ফয়সাল আহত হন। গুরুতর আহত সম্রাটকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, এখনো জবি শাখায় ছাত্রলীগের কোন কমিটি দেয়া হয়নি। যারা ক্যাম্পাসে মারামারি করেছে তারা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির কেউ নয়। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ  যুগান্তরকে বলেন, ক্যাম্পাসে মারামারির ঘটনা শুনেছি। এখনো কোনও ধরণের লিখিত অভিযোগ পাইনি। যদি কেউ অভিযোগ করে তাহলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নেব। তবে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দফতরে আগামী ১৯ জুলাই দুপুর তিনটার দিকে ৫৪ লাখ টাকার টেন্ডার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এই টেন্ডার বাগিয়ে নেয়ার জন্য ছাত্রলীগে এক ধরণের উত্তেজনা কাজ করছে।

Comments

Comments!

 টেন্ডার নিয়ে জবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত ৮AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

টেন্ডার নিয়ে জবিতে ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, সাংবাদিকসহ আহত ৮

Sunday, July 16, 2017 10:01 pm
jnu_52321_1500218477

টেন্ডার জমা দেয়াকে কেন্দ্র করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শাখা ছাত্রলীগের দু’গ্রুপের দফায় দফায় সংঘর্ষে সাংবাদিকসহ ৮ শিক্ষার্থী আহত হয়েছে।

রোববার বেলা ১২টার দিকে ৭ লাখ টাকার টেন্ডার নিয়ে নতুন একাডেমিক ভবনে সংঘর্ষের সূচনা হয়।

সংঘর্ষে গুরুতর আহত ৩ জন ঢাকা মেডিকেল এবং অপর একজন বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০১৭-১৮ বর্ষের ডায়েরি ও ক্যালেন্ডার মুদ্রণ, বাঁধাই এবং সরবরাহ- সংক্রান্ত দরপত্র জমা দেয়ার নির্ধারিত সময় ছিল রোববার ১২টা পর্যন্ত।

এ বিষয়ে সকাল ১০টার দিকে ময়মনসিংহ গ্রুপ হিসেবে পরিচিত তানভির রহমান, আনিসুর রহমান শিশির, জহির রায়হান আগুনের নেতৃত্বে একটি দরপত্র জমা দেওয়া হয়, তাদের সঙ্গে বরিশাল গ্রুপের ইব্রাহিম ফরাজিও যৌথভাবে একটি দরপত্র জমা দেন।

দরপত্র জমা দিয়ে তাদের অনুসারীরা নতুন ভবনের সামনে মহড়া দিতে থাকে। পৌনে ১২টার দিকে সদ্য সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের অনুসারী জুয়েল রানা ‘সরকার ট্রের্ডাসের’ নামে একটি দরপত্র জমা দিতে গেলে ময়মনসিংহ গ্রুপের কর্মী নাদিমের নেতৃত্বে সিরাজুল ইসলামের অনুসারীদের ওপর হামলা চালানো হয়।

সে সময় ঘটনার স্থিরচিত্র ধারল করতে গেলে একটি অনলাইন পোর্টালের সাংবাদিক আব্দুল ওহাবকে মারধর করে নাদিমসহ আরো কয়েকজন ছাত্রলীগ কর্মী।

একপর্যায়ে আব্দুল ওহাব মাটিতে পড়ে গেলে নাদিম ও তার সাথে থাকা ময়মনসিংহ গ্রুপের কর্মীরা তাকে লাথি ও ঘুষি মারতে থাকে। এতে সে অজ্ঞান হয়ে পড়লে তার সহপাঠীরা তাকে উদ্ধার করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে প্রাথমিক চিকিৎসা দেন। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেলে পাঠানো হয়। এসময় তার হাতে থাকা দামি মোবাইল ফোনও কেড়ে নেয়া হয়।

এই ঘটনাকে কেন্দ্র ক্যাম্পাসে উত্তপ্ত পরিস্থিতি বিরাজ করতে থাকে। এসময় শাখা ছাত্রলীগের বিভিন্ন উপ-গ্রুপ পুরো ক্যাম্পাসে শোডাউন দিতে থাকে।

এক পর্যায়ে বিকাল সাড়ে তিনটার দিকে সাবেক সভাপতি শরিফুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলামের গ্রুপের কর্মীরা যৌথভাবে মহড়া দেন।

এসময় তাদের অনুসারী মোমেন, ফয়সাল, প্রীতিজ রাজ, পোগেজ স্কুলের ছাত্রলীগে সভাপতি নুহাস মিলে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে ময়মনয়সিংহ গ্রুপ আগুনের কর্মী শান্তকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে মাথায় এলোপাতাড়ি কুপায়।

আহত অবস্থায় তাকে ন্যাশনাল মেডিকেলে নেয়া হয়। পরে তার অবস্থা আরও অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়।

এছাড়াও আহতদের ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে গেলে ইমারজেন্সি বিভাগের সামনে আনিসুর রহমান শিশির ও জহির রায়হান আগুনের নেতৃত্বে সিরাজ গ্রুপের কর্মীদের ওপর আরেক দফা অতর্কিত হামলা করা হয়।

এসময় সম্রাট, তৌকির, ফয়সাল আহত হন। গুরুতর আহত সম্রাটকে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে সাইফুর রহমান সোহাগ বলেন, এখনো জবি শাখায় ছাত্রলীগের কোন কমিটি দেয়া হয়নি। যারা ক্যাম্পাসে মারামারি করেছে তারা ছাত্রলীগের বর্তমান কমিটির কেউ নয়। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেছি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. নূর মোহাম্মদ  যুগান্তরকে বলেন, ক্যাম্পাসে মারামারির ঘটনা শুনেছি। এখনো কোনও ধরণের লিখিত অভিযোগ পাইনি। যদি কেউ অভিযোগ করে তাহলে আমরা যথাযথ ব্যবস্থা নেব। তবে ক্যাম্পাসের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এছাড়াও পরীক্ষা নিয়ন্ত্রণ দফতরে আগামী ১৯ জুলাই দুপুর তিনটার দিকে ৫৪ লাখ টাকার টেন্ডার দরপত্র আহ্বান করা হয়েছে। এই টেন্ডার বাগিয়ে নেয়ার জন্য ছাত্রলীগে এক ধরণের উত্তেজনা কাজ করছে।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X