রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৭:৪০
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, January 29, 2017 7:32 am
A- A A+ Print

ট্রাম্পের শাসনে ঘনিয়ে আসছে ‘কেয়ামত’

১১

কেয়ামতের ঘণ্টা বাজতে আর মাত্র আড়াই মিনিট বাকি। দৈনন্দিন সময় গণনার কোনো ঘড়ির সময় নয় এটি। বৈশ্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের সময়সীমা পর্যালোচনায় নির্মিত ‘ডুমসডে ক্লক’ (কেয়ামতের ঘড়ি) অনুযায়ী এখন সময় রাত ১১টা ৫৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ড অর্থাৎ মধ্যরাত (১২টা) হতে আড়াই মিনিট বাকি। তার মানে পৃথিবী ধ্বংস হতে আড়াই মিনিট বাকি। এ বিপজ্জনক পরিস্থিতির জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গত বছরজুড়ে বিভিন্ন বিষয়ে উদ্বেগজনক বক্তব্যকে দায়ী করেছে ঘড়িটির দেখভালকারী দ্য বুলেটিন অব দ্য অ্যটমিক সায়েন্সেস (বিপিএ)। বিপিএ প্রধান র‌্যাচেল ব্রসনান এক বিবৃতিতে উত্তেজনা এড়িয়ে শান্ত থাকার জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। পৃথিবী ধ্বংসের চিত্র প্রতীকীভাবে তুলে ধরতে ১৯৪৭ সালে ‘ডুমসডে ক্লক’ চালু করেন একদল বিজ্ঞানী। ৬৪ বছরের মধ্যে তার কাঁটা এখন চরম ক্ষণের সবচেয়ে কাছাকাছি। ২০১৫ সালের বৈশ্বিক ঘটনাবলীর পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো ইউনিভার্সিটির দেয়ালে স্থাপিত ঘড়িটির কাঁটা ৩০ সেকেন্ড এগিয়ে আনা হয়েছে। এখন চরম সময় অর্থাৎ মধ্যরাতের আড়াই মিনিট আগে রয়েছে কাঁটাটির অবস্থান। এর আগে ঘড়ির কাঁটা ছিল রাত ১১টা ৫৭ মিনিটে। ১৯৪৫ সালে হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে বোমা ফেলার পর শিকাগোর কিছু পরমাণু বিজ্ঞানী বিপিএ নিউজলেটার বের করেন- যার মাধ্যমে বিশ্ব পরিস্থিতির প্রতীকী সময়সীমা দেখানো হয়। এ সময়সীমা বিশ্বের ভারসাম্যতার ওপর নির্ভর করে কমে ও বাড়ে। ১৯৪৭ সালে ঘড়ির আঙ্গিকে বৈশ্বিক দুর্যোগ পরিস্থিতি পরিচালনা করতে প্রতীকী ‘কেয়ামত ঘড়ি’র রূপ দেয়া হয়। স্নায়ুযুদ্ধ শুরুর পর ১৯৫৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র হাইড্রোজেন বোমা ফাটালে এ ঘড়ির কাঁটা চরম সময়ের ২ মিনিট আগে আনা হয়। এরপর নানা ঘটনায় বিভিন্ন সময়ে আগ-পিছ করে ২০১৫ সালে ঘড়ির কাঁটাটি ১৯৫৩ সালের অবস্থানের চেয়ে এক মিনিট (চরম সময় মধ্যরাতের চেয়ে তিন মিনিট) পিছিয়ে অবস্থান নেয়। তারপর দুই বছর ওই অবস্থানেই ছিল কাঁটাটি। ২০১৭ সালে এসে কাঁটাটি ৩০ সেকেন্ড এগিয়ে আনা হল। তবে কাঁটাটি পুরো এক মিনিট না এগিয়ে তার অর্ধেক এগিয়ে আনার কারণ ব্যাখ্যায় বিপিএ জানায়, ট্রাম্প যেহেতু মাত্রই ক্ষমতায় বসেছেন এবং তার প্রশাসন এখনও সাজাননি, তাই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ট্রাম্পের পাশাপাশি ইরানের পরমাণু চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তা, সাইবার নিরাপত্তায় হুমকি এবং ভুয়া সংবাদ সরবরাহের প্রবণতা বেড়ে যাওয়াকেও ঘড়িটির কাঁটা এগিয়ে আনার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে। সারাবিশ্ব থেকে পদার্থবিদ ও পরিবেশ বিজ্ঞানীদের নিয়ে গঠিত বিপিএ’র ‘বোর্ড অব স্পন্সর’ সদস্যদের মধ্যে ১৮ জন নোবেলজয়ী রয়েছেন। এ বোর্ডের সদস্যদের সিদ্ধান্তে ঘড়িটির কাঁটা আগ-পিছ করা হয়। এ পর্যন্ত ২২ বার কাঁটাটি স্থান পরিবর্তন করেছে। ওয়াশিংটন পোস্ট

Comments

Comments!

 ট্রাম্পের শাসনে ঘনিয়ে আসছে ‘কেয়ামত’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ট্রাম্পের শাসনে ঘনিয়ে আসছে ‘কেয়ামত’

Sunday, January 29, 2017 7:32 am
১১

কেয়ামতের ঘণ্টা বাজতে আর মাত্র আড়াই মিনিট বাকি। দৈনন্দিন সময় গণনার কোনো ঘড়ির সময় নয় এটি। বৈশ্বিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের সময়সীমা পর্যালোচনায় নির্মিত ‘ডুমসডে ক্লক’ (কেয়ামতের ঘড়ি) অনুযায়ী এখন সময় রাত ১১টা ৫৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ড অর্থাৎ মধ্যরাত (১২টা) হতে আড়াই মিনিট বাকি।

তার মানে পৃথিবী ধ্বংস হতে আড়াই মিনিট বাকি। এ বিপজ্জনক পরিস্থিতির জন্য মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের গত বছরজুড়ে বিভিন্ন বিষয়ে উদ্বেগজনক বক্তব্যকে দায়ী করেছে ঘড়িটির দেখভালকারী দ্য বুলেটিন অব দ্য অ্যটমিক সায়েন্সেস (বিপিএ)। বিপিএ প্রধান র‌্যাচেল ব্রসনান এক বিবৃতিতে উত্তেজনা এড়িয়ে শান্ত থাকার জন্য বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

পৃথিবী ধ্বংসের চিত্র প্রতীকীভাবে তুলে ধরতে ১৯৪৭ সালে ‘ডুমসডে ক্লক’ চালু করেন একদল বিজ্ঞানী। ৬৪ বছরের মধ্যে তার কাঁটা এখন চরম ক্ষণের সবচেয়ে কাছাকাছি। ২০১৫ সালের বৈশ্বিক ঘটনাবলীর পরিপ্রেক্ষিতে যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো ইউনিভার্সিটির দেয়ালে স্থাপিত ঘড়িটির কাঁটা ৩০ সেকেন্ড এগিয়ে আনা হয়েছে। এখন চরম সময় অর্থাৎ মধ্যরাতের আড়াই মিনিট আগে রয়েছে কাঁটাটির অবস্থান। এর আগে ঘড়ির কাঁটা ছিল রাত ১১টা ৫৭ মিনিটে।

১৯৪৫ সালে হিরোশিমা ও নাগাসাকিতে বোমা ফেলার পর শিকাগোর কিছু পরমাণু বিজ্ঞানী বিপিএ নিউজলেটার বের করেন- যার মাধ্যমে বিশ্ব পরিস্থিতির প্রতীকী সময়সীমা দেখানো হয়। এ সময়সীমা বিশ্বের ভারসাম্যতার ওপর নির্ভর করে কমে ও বাড়ে। ১৯৪৭ সালে ঘড়ির আঙ্গিকে বৈশ্বিক দুর্যোগ পরিস্থিতি পরিচালনা করতে প্রতীকী ‘কেয়ামত ঘড়ি’র রূপ দেয়া হয়।

স্নায়ুযুদ্ধ শুরুর পর ১৯৫৩ সালে যুক্তরাষ্ট্র হাইড্রোজেন বোমা ফাটালে এ ঘড়ির কাঁটা চরম সময়ের ২ মিনিট আগে আনা হয়। এরপর নানা ঘটনায় বিভিন্ন সময়ে আগ-পিছ করে ২০১৫ সালে ঘড়ির কাঁটাটি ১৯৫৩ সালের অবস্থানের চেয়ে এক মিনিট (চরম সময় মধ্যরাতের চেয়ে তিন মিনিট) পিছিয়ে অবস্থান নেয়। তারপর দুই বছর ওই অবস্থানেই ছিল কাঁটাটি। ২০১৭ সালে এসে কাঁটাটি ৩০ সেকেন্ড এগিয়ে আনা হল।

তবে কাঁটাটি পুরো এক মিনিট না এগিয়ে তার অর্ধেক এগিয়ে আনার কারণ ব্যাখ্যায় বিপিএ জানায়, ট্রাম্প যেহেতু মাত্রই ক্ষমতায় বসেছেন এবং তার প্রশাসন এখনও সাজাননি, তাই পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ট্রাম্পের পাশাপাশি ইরানের পরমাণু চুক্তির ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তা, সাইবার নিরাপত্তায় হুমকি এবং ভুয়া সংবাদ সরবরাহের প্রবণতা বেড়ে যাওয়াকেও ঘড়িটির কাঁটা এগিয়ে আনার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।

সারাবিশ্ব থেকে পদার্থবিদ ও পরিবেশ বিজ্ঞানীদের নিয়ে গঠিত বিপিএ’র ‘বোর্ড অব স্পন্সর’ সদস্যদের মধ্যে ১৮ জন নোবেলজয়ী রয়েছেন। এ বোর্ডের সদস্যদের সিদ্ধান্তে ঘড়িটির কাঁটা আগ-পিছ করা হয়। এ পর্যন্ত ২২ বার কাঁটাটি স্থান পরিবর্তন করেছে। ওয়াশিংটন পোস্ট

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X