শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৮:৫৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Friday, July 29, 2016 10:47 pm | আপডেটঃ July 29, 2016 11:18 PM
A- A A+ Print

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সব বন্দি কেরাণীগঞ্জের নতুন জেলে স্থানান্তর

2

দুইশ বছরের পুরনো ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সাড়ে ছয় হাজার বন্দির সবাইকে নেওয়া হল নতুন চালু হওয়া কেরাণীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুর কারাগারে। শুক্রবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটে সর্বশেষ ছয়টি প্রিজন ভ্যানে ১৮৪জন কয়েদিকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নেওয়া হয়। এর মধ্য দিয়ে ঘটনাবহুল নাজিমউদ্দিন রোডের এই কারাগারের ইতি টানা হল। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জ্যেষ্ঠ জেল সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবির বলেন, “সারা দিনে ৬ হাজার ৫১১ জন কারাবন্দিকে নতুন কারাগারে স্থানান্তর করা হল।” “দুদিনে নেওয়ার কথা ছিল বন্দিদের। তবে আমাদের কাজের অগ্রগতি বেশি হওয়ায় আজকের মধ্যেই স্থানান্তর কাজ শেষ করে ফেললাম।” কারা অধিদপ্তরের ডিআইজি (প্রিজন) এ কে এম ফজলুল হক জানান, সকাল থেকেই কেরাণীগঞ্জের নতুন করাগারে বন্দিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ঊর্ধ্বতন কারা কর্মকর্তারা। যে কোনো নাশকতা এড়াতে পুলিশের নেতৃত্বে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন), ঢাকা জেলা পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) মোতায়েন করা হয়েছে কারাগারের এলাকা ঘিরে। বিভিন্ন পয়েন্টে বিজিবি সদস্যরা টহল দিচ্ছে। নাজিমউদ্দিন রোডের প্রবেশ পথ চাঁনখারপুল, বংশাল, চকবাজার, বেগম বাজারে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পথচারীদেরও এই পথ ব্যবহার করতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রতিটি ভবনের ছাদে নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন রয়েছে। রাজধানীর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরে নবনির্মিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আয়তন ও বন্দি ধারণক্ষমতার দিক থেকে এশিয়ার বৃহত্তম কারাগারটি ১৯৪.৪১ একর জমির ওপর নির্মিত।কারা অধিদপ্তরের ডিআইজি (প্রিজন) এ কে এম ফজলুল হক জানান, সকাল থেকেই কেরাণীগঞ্জের নতুন করাগারে বন্দিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ঊর্ধ্বতন কারা কর্মকর্তারা।ঢাকা থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে ঢাকা-মাওয়া সড়কের দক্ষিণে কেরানীগঞ্জে ৪ হাজার ৫৯০ বন্দি ধারণক্ষমতার নতুন কারাগার নির্মাণ করা হয়েছে ১৯৪ দশমিক ৪১ একর জমির উপর। এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ৪০৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। নতুন এ কারাগারের নির্মাণ শুরু হয় ২০০৭ সালে। ২ হাজার ৮২৬ বন্দি ধারণক্ষমতার পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগার নির্মিত হয়েছিল ১৭৮৮ সালে। সোয়া ২শ বছর আগে স্থাপিত পুরান ঢাকার এ কারাগারে বর্তমানে বন্দির সংখ্যা অনুমোদিত সীমার প্রায় তিনগুণ। সে কারণেই নির্মাণ করা হয়েছে নতুন কারাগার। 3 এ কারাগারের সব ভবনের নামকরণ করা হয়েছে নদী ও ফুলের সঙ্গে মিল রেখে। দেশের প্রধান প্রধান নদী পদ্মা, যমুনা, করতোয়া নামকরণ করা হয়েছে তিনটি ভবনের। বকুল, শাপলা ও চম্পাকলি রাখা হয়েছে অপর তিন ভবনের। 5 নতুন কারগারের পেরিমিটার দেয়ালের ভেতরে তিন হাজার বিচারাধীন আসামি ওয়ার্ড রয়েছে। পেরিমিটার দেয়ালের বাইরে ১২৩০ দশমিক ৯৬ আয়তনের একটি চার তলা ভিত্তির দুই তলার প্রশাসনিক ভবন রয়েছে। সাক্ষাৎকার ভবন রয়েছে একটি। এছাড়া বিভিন্ন আয়তনের ৯৮টি আবাসিক কোয়ার্টার ইউনিট রয়েছে। ৩৮৪ কারারক্ষী থাকার জন্য রয়েছে ব্যারাক। 6 সাজাপ্রাপ্ত বন্দি ওয়ার্ড রয়েছে এক হাজার। বিপজ্জনক বন্দি সেল রয়েছে ৪০০। কিশোর বন্দি ভবন রয়েছে একটি, যাতে একশ কিশোর বন্দি থাকার ব্যবস্থা আছে। এছাড়া একটি শ্রেণিপ্রাপ্ত বন্দি ভবন রয়েছে, যাতে থাকার ব্যবস্থা আছে ৬০ (ভিআইপি) বন্দির। এমআই ইউনিটে থাকতে পারবে ২০ বন্দি। 7 কারাগারের ভেতরে একটি অত্যাধুনিক ফাঁসির মঞ্চ রয়েছে। ওই মঞ্চে একসঙ্গে দুইজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির ফাঁসি কার্যকর করা যাবে। 8 এছাড়া একটি জেলা স্কুল অ্যান্ড লাইব্রেরি, আটটি রান্নাঘর, ১৬টি ডে-টাইম বাথিং, একটি ওয়ার্ক সেল, একটি সেলুন, একটি আটা তৈরির কল, একটি কেইস টেবিল, ১০টি পানির রিজার্ভার, ১০টি পাম্প হাউজ রয়েছে। পুরো কমপ্লেক্সের নিরাপত্তা নিশ্চিতে থাকছে ৪৮টি সিসিটিভি ক্যামেরা, ইলেকট্রনিক বারবেড ওয়ারফেন্সিং। ৪০০ কেভিএ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি জেনারেটরও রয়েছে। গোডাউন রয়েছে তিনটি। সাবস্টেশন ভবন একটি। অবজারভেশন টাওয়ার চারটি, ২টি সেন্ট্রি বক্স ও একটি মসজিদও রয়েছে নতুন কেন্দ্রীয় কারাগারে। গত ১০ এপ্রিল কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরে সাড়ে চার হাজার বন্দি ধারণ ক্ষমতার নতুন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তখনই বন্দিদের স্থানান্তরের কথা থাকলেও কিছু সমস্যার কারণে সম্ভব হয়নি। শুক্রবার (২৯ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে শুরু হয় স্থানান্তর। শুক্রবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটে সর্বশেষ ছয়টি প্রিজন ভ্যানে ১৮৪জন কয়েদিকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নেওয়া হয়। এর মধ্য দিয়ে ঘটনাবহুল নাজিমউদ্দিন রোডের এই কারাগারের ইতি টানা হল।

Comments

Comments!

 ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সব বন্দি কেরাণীগঞ্জের নতুন জেলে স্থানান্তরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সব বন্দি কেরাণীগঞ্জের নতুন জেলে স্থানান্তর

Friday, July 29, 2016 10:47 pm | আপডেটঃ July 29, 2016 11:18 PM
2

দুইশ বছরের পুরনো ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের সাড়ে ছয় হাজার বন্দির সবাইকে নেওয়া হল নতুন চালু হওয়া কেরাণীগঞ্জের রাজেন্দ্রপুর কারাগারে।

শুক্রবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটে সর্বশেষ ছয়টি প্রিজন ভ্যানে ১৮৪জন কয়েদিকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নেওয়া হয়। এর মধ্য দিয়ে ঘটনাবহুল নাজিমউদ্দিন রোডের এই কারাগারের ইতি টানা হল।

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের জ্যেষ্ঠ জেল সুপার মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর কবির বলেন, “সারা দিনে ৬ হাজার ৫১১ জন কারাবন্দিকে নতুন কারাগারে স্থানান্তর করা হল।”

“দুদিনে নেওয়ার কথা ছিল বন্দিদের। তবে আমাদের কাজের অগ্রগতি বেশি হওয়ায় আজকের মধ্যেই স্থানান্তর কাজ শেষ করে ফেললাম।”

কারা অধিদপ্তরের ডিআইজি (প্রিজন) এ কে এম ফজলুল হক জানান, সকাল থেকেই কেরাণীগঞ্জের নতুন করাগারে বন্দিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ঊর্ধ্বতন কারা কর্মকর্তারা।

যে কোনো নাশকতা এড়াতে পুলিশের নেতৃত্বে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন), ঢাকা জেলা পুলিশ, র‌্যাব ও গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) মোতায়েন করা হয়েছে কারাগারের এলাকা ঘিরে। বিভিন্ন পয়েন্টে বিজিবি সদস্যরা টহল দিচ্ছে। নাজিমউদ্দিন রোডের প্রবেশ পথ চাঁনখারপুল, বংশাল, চকবাজার, বেগম বাজারে সব ধরনের যান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। পথচারীদেরও এই পথ ব্যবহার করতে দেওয়া হচ্ছে না। প্রতিটি ভবনের ছাদে নিরাপত্তা কর্মী মোতায়েন রয়েছে।

রাজধানীর দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরে নবনির্মিত ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আয়তন ও বন্দি ধারণক্ষমতার দিক থেকে এশিয়ার বৃহত্তম কারাগারটি ১৯৪.৪১ একর জমির ওপর নির্মিত।কারা অধিদপ্তরের ডিআইজি (প্রিজন) এ কে এম ফজলুল হক জানান, সকাল থেকেই কেরাণীগঞ্জের নতুন করাগারে বন্দিদের ফুল দিয়ে বরণ করে নেন ঊর্ধ্বতন কারা কর্মকর্তারা।ঢাকা থেকে ৮ কিলোমিটার দূরে ঢাকা-মাওয়া সড়কের দক্ষিণে কেরানীগঞ্জে ৪ হাজার ৫৯০ বন্দি ধারণক্ষমতার নতুন কারাগার নির্মাণ করা হয়েছে ১৯৪ দশমিক ৪১ একর জমির উপর। এ প্রকল্পের মোট ব্যয় ৪০৬ কোটি ৩৫ লাখ টাকা। নতুন এ কারাগারের নির্মাণ শুরু হয় ২০০৭ সালে। ২ হাজার ৮২৬ বন্দি ধারণক্ষমতার পুরান ঢাকার নাজিমউদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগার নির্মিত হয়েছিল ১৭৮৮ সালে। সোয়া ২শ বছর আগে স্থাপিত পুরান ঢাকার এ কারাগারে বর্তমানে বন্দির সংখ্যা অনুমোদিত সীমার প্রায় তিনগুণ। সে কারণেই নির্মাণ করা হয়েছে নতুন কারাগার। 3 এ কারাগারের সব ভবনের নামকরণ করা হয়েছে নদী ও ফুলের সঙ্গে মিল রেখে। দেশের প্রধান প্রধান নদী পদ্মা, যমুনা, করতোয়া নামকরণ করা হয়েছে তিনটি ভবনের। বকুল, শাপলা ও চম্পাকলি রাখা হয়েছে অপর তিন ভবনের। 5 নতুন কারগারের পেরিমিটার দেয়ালের ভেতরে তিন হাজার বিচারাধীন আসামি ওয়ার্ড রয়েছে। পেরিমিটার দেয়ালের বাইরে ১২৩০ দশমিক ৯৬ আয়তনের একটি চার তলা ভিত্তির দুই তলার প্রশাসনিক ভবন রয়েছে। সাক্ষাৎকার ভবন রয়েছে একটি। এছাড়া বিভিন্ন আয়তনের ৯৮টি আবাসিক কোয়ার্টার ইউনিট রয়েছে। ৩৮৪ কারারক্ষী থাকার জন্য রয়েছে ব্যারাক। 6 সাজাপ্রাপ্ত বন্দি ওয়ার্ড রয়েছে এক হাজার। বিপজ্জনক বন্দি সেল রয়েছে ৪০০। কিশোর বন্দি ভবন রয়েছে একটি, যাতে একশ কিশোর বন্দি থাকার ব্যবস্থা আছে। এছাড়া একটি শ্রেণিপ্রাপ্ত বন্দি ভবন রয়েছে, যাতে থাকার ব্যবস্থা আছে ৬০ (ভিআইপি) বন্দির। এমআই ইউনিটে থাকতে পারবে ২০ বন্দি। 7 কারাগারের ভেতরে একটি অত্যাধুনিক ফাঁসির মঞ্চ রয়েছে। ওই মঞ্চে একসঙ্গে দুইজন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামির ফাঁসি কার্যকর করা যাবে। 8 এছাড়া একটি জেলা স্কুল অ্যান্ড লাইব্রেরি, আটটি রান্নাঘর, ১৬টি ডে-টাইম বাথিং, একটি ওয়ার্ক সেল, একটি সেলুন, একটি আটা তৈরির কল, একটি কেইস টেবিল, ১০টি পানির রিজার্ভার, ১০টি পাম্প হাউজ রয়েছে। পুরো কমপ্লেক্সের নিরাপত্তা নিশ্চিতে থাকছে ৪৮টি সিসিটিভি ক্যামেরা, ইলেকট্রনিক বারবেড ওয়ারফেন্সিং। ৪০০ কেভিএ ক্ষমতাসম্পন্ন একটি জেনারেটরও রয়েছে। গোডাউন রয়েছে তিনটি। সাবস্টেশন ভবন একটি। অবজারভেশন টাওয়ার চারটি, ২টি সেন্ট্রি বক্স ও একটি মসজিদও রয়েছে নতুন কেন্দ্রীয় কারাগারে। গত ১০ এপ্রিল কেরানীগঞ্জের তেঘরিয়া ইউনিয়নের রাজেন্দ্রপুরে সাড়ে চার হাজার বন্দি ধারণ ক্ষমতার নতুন ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তখনই বন্দিদের স্থানান্তরের কথা থাকলেও কিছু সমস্যার কারণে সম্ভব হয়নি। শুক্রবার (২৯ জুলাই) সকাল ৬টা থেকে শুরু হয় স্থানান্তর।
শুক্রবার রাত ৯টা ৫০ মিনিটে সর্বশেষ ছয়টি প্রিজন ভ্যানে ১৮৪জন কয়েদিকে কেন্দ্রীয় কারাগার থেকে নেওয়া হয়। এর মধ্য দিয়ে ঘটনাবহুল নাজিমউদ্দিন রোডের এই কারাগারের ইতি টানা হল।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X