সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:১২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Saturday, July 29, 2017 10:23 pm
A- A A+ Print

ঢাবির সিনেট সভায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ধস্তাধস্তি

du-class_53620_1501343395

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ সিনেট অধিবেশনের আগে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে। শনিবার বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়। বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত শিক্ষকদের সাদা দল এই অধিবেশন বর্জন ও আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শিক্ষকদের নীল দলের একটি অংশ সিনেট অধিবেশনের বিরোধিতা করে আসছিল। অধিবেশন শুরুর আগেই মল চত্বরের পাশে সিনেট ভবনের ফটকে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের কয়েকজন শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়ে ডাকসুর দাবি জানাতে থাকেন। ছাত্র প্রতিনিধি ছাড়া এ নির্বাচনকে অনৈতিক বলে ঘোষণা দেন তারা। বেলা সাড়ে তিনটার দিকে শিক্ষার্থীরা জড়ো হলে এই পথটি বন্ধ হয়ে যায়। ফটকে আগে থেকেই তালা লাগানো ছিল। সিনেট সদস্যরা আসলে এটি খুলে দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু শিক্ষার্থীরা আসলে ভেতরে কয়েকজন শিক্ষক অবস্থান নিয়ে ফটক বন্ধ করে দেন। বিকাল পৌনে চারটার দিকে শিক্ষার্থীরা ফটক ভেঙে ভেতরে ঢুকে যান। এ সময় শিক্ষকেরা বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক রবিউল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক সেখানে ছিলেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষককেও দেখা গেছে ঘটনাস্থলে। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় বসে পড়েন এবং প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। এসময় তাদের সঙ্গে শিক্ষকদের কয়েক দফায় ধ্বস্তাধ্বস্তি হয়। প্রতিবাদকারী শিক্ষার্থীদের ফেস্টুনে লেখা ছিল- সিনেটে শিক্ষার্থী প্রতিনিধি কোথায়? আগে ডাকসু পরে ভিসি, ছাত্রপ্রতিনিধিবিহীন উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন মানি না প্রভৃতি। অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের চেয়ারম্যান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক। সভা থেকে ভাইস চ্যান্সেলর নিয়োগের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে ৩ (তিন) জনের একটি প্যানেল মনোনয়ন করা হয়। প্যানেলে মনোনীতরা হলেন- বর্তমান উপাচার্য এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বর্তমান কোষাধ্যক্ষ ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস (আইবি) বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দীন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নীল দলের আহ্বায়ক ও থিওরিটিক্যাল এন্ড কম্পিউটেশনাল কেমিস্ট্রি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল আজিজ।

Comments

Comments!

 ঢাবির সিনেট সভায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ধস্তাধস্তিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

ঢাবির সিনেট সভায় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের ধস্তাধস্তি

Saturday, July 29, 2017 10:23 pm
du-class_53620_1501343395

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষ সিনেট অধিবেশনের আগে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের মধ্যে ধস্তাধস্তির ঘটনা ঘটেছে।

শনিবার বিকাল ৪টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবনে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

বিএনপি-জামায়াত সমর্থিত শিক্ষকদের সাদা দল এই অধিবেশন বর্জন ও আওয়ামী লীগ-সমর্থিত শিক্ষকদের নীল দলের একটি অংশ সিনেট অধিবেশনের বিরোধিতা করে আসছিল।

অধিবেশন শুরুর আগেই মল চত্বরের পাশে সিনেট ভবনের ফটকে বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনের কয়েকজন শিক্ষার্থী অবস্থান নিয়ে ডাকসুর দাবি জানাতে থাকেন। ছাত্র প্রতিনিধি ছাড়া এ নির্বাচনকে অনৈতিক বলে ঘোষণা দেন তারা।

বেলা সাড়ে তিনটার দিকে শিক্ষার্থীরা জড়ো হলে এই পথটি বন্ধ হয়ে যায়। ফটকে আগে থেকেই তালা লাগানো ছিল। সিনেট সদস্যরা আসলে এটি খুলে দেওয়া হচ্ছিল। কিন্তু শিক্ষার্থীরা আসলে ভেতরে কয়েকজন শিক্ষক অবস্থান নিয়ে ফটক বন্ধ করে দেন।

বিকাল পৌনে চারটার দিকে শিক্ষার্থীরা ফটক ভেঙে ভেতরে ঢুকে যান। এ সময় শিক্ষকেরা বাধা দিলে দুই পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সহকারী প্রক্টর অধ্যাপক রবিউল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন শিক্ষক সেখানে ছিলেন। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষককেও দেখা গেছে ঘটনাস্থলে। এক পর্যায়ে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় বসে পড়েন এবং প্রতিবাদ জানাতে থাকেন। এসময় তাদের সঙ্গে শিক্ষকদের কয়েক দফায় ধ্বস্তাধ্বস্তি হয়।

প্রতিবাদকারী শিক্ষার্থীদের ফেস্টুনে লেখা ছিল- সিনেটে শিক্ষার্থী প্রতিনিধি কোথায়? আগে ডাকসু পরে ভিসি, ছাত্রপ্রতিনিধিবিহীন উপাচার্য প্যানেল নির্বাচন মানি না প্রভৃতি।

অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের চেয়ারম্যান এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

সভা থেকে ভাইস চ্যান্সেলর নিয়োগের জন্য সর্বসম্মতিক্রমে ৩ (তিন) জনের একটি প্যানেল মনোনয়ন করা হয়।

প্যানেলে মনোনীতরা হলেন- বর্তমান উপাচার্য এবং গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগ অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক, বর্তমান কোষাধ্যক্ষ ও ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস (আইবি) বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ কামাল উদ্দীন এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের নীল দলের আহ্বায়ক ও থিওরিটিক্যাল এন্ড কম্পিউটেশনাল কেমিস্ট্রি বিভাগের অধ্যাপক ড. মোঃ আবদুল আজিজ।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X