শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৪:২৩
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Thursday, December 15, 2016 1:36 pm
A- A A+ Print

দক্ষিণ চীন সাগরে বেজিংয়ের অস্ত্র মোতায়েন

164104_1

বেইজিং: আমেরিকাকে অনেকটা প্রকাশ্যেই চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে অস্ত্র মোতায়েন করছে বেজিং। দৈত্যাকৃতির অ্যান্টি-এয়ারক্রাফট গান, ক্লোজ ইন উইপন সিস্টেম বসছে কৃত্রিম দ্বীপটিতে। বেজিংয়ের এই পদক্ষেপে কার্যত দিশাহারা আমেরিকা। পেন্টাগনের অভিযোগ, যুদ্ধের জন্য পা বাড়িয়েই রেখেছে চীন। শুধু প্রতিরক্ষার জন্য যে বিতর্কিত কৃত্রিম দ্বীপে ভারী অস্ত্র মোতায়েন করা হচ্ছে না সেটা স্পষ্টতই বুঝেছে পেন্টাগন। আর তাই ঘুম ছুটেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের। মাটি থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়ে শত্রুর বিমানকে ধরাশায়ী করতে পারে এমন পেল্লাই কামান বসেছে দক্ষিণ চীন সাগরের উপর সাতটি দ্বীপেই। ‘এশিয়া মেরিটাইম ট্রান্সপারেন্সি ইনিশিয়েটিভ’ বা এএমটিআইয়ের ডিরেক্টর গ্রেগ পোলিং কোনো রাখঢাক না রেখেই সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘এটা সামরিকীকরণ। চীন কিছুতেই দাবি করতে পারে না এত অস্ত্রশস্ত্র তারা কেবল প্রতিরক্ষার জন্য বরাদ্দ করেছে। যে যে অস্ত্র ওই দ্বীপগুলিতে মোতায়েন করা হচ্ছে, দেখেই বোঝা যাচ্ছে চীন ভবিষ্যতে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে।’
কৃত্রিম মার্কিন উপগ্রহ থেকে তোলা ছবিতে দেখা গিয়েছে, যুদ্ধবিমান, রণতরী থেকে ছোঁড়া ক্রুজ মিসাইলকেও রুখে দিতে পারবে চীনা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। পাল্টা হামলা চালাতেও তৈরি সাংঘাতিক সব অস্ত্র। চীন যে চুপিচুপি ওই দ্বীপগুলিতে এসব অস্ত্র মজুত করেছে, এতদিন জানতেই পারেনি আমেরিকা। মাসের পর মাস গুপ্তচর লাগিয়ে শেষে অস্ত্র মোতায়েনের খবর জানতে পেরে ঘুম ছুটে গিয়েছে পেন্টাগনের। এএমটিআই জানাচ্ছে, বেজিং বরাবরই দাবি করে এসেছে দক্ষিণ চীন সাগরে তারা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলছে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে ওই দ্বীপগুলিতে সর্বক্ষণ মোতায়েন রয়েছে ফাইটার জেট, অ্যান্টি-এয়ারক্রাফট মিসাইল, সারফেস টু এয়ার মিসাইল। প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার গড়ে তোলার ছলে আস্ত একটি ‘সারফেস টু এয়ার মিসাইল’ প্ল্যাটফর্ম বা ‘এসএএম’ গড়ে ফেলেছে বেজিং। ভবিষ্যতে যে কোনো মুহূর্তে চীন হামলা চালাতে পারে বলেও চূড়ান্ত আশঙ্কায় পেন্টাগন।   সূত্র: রয়টার্স

Comments

Comments!

 দক্ষিণ চীন সাগরে বেজিংয়ের অস্ত্র মোতায়েনAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

দক্ষিণ চীন সাগরে বেজিংয়ের অস্ত্র মোতায়েন

Thursday, December 15, 2016 1:36 pm
164104_1

বেইজিং: আমেরিকাকে অনেকটা প্রকাশ্যেই চ্যালেঞ্জ জানিয়ে বিতর্কিত দক্ষিণ চীন সাগরে অস্ত্র মোতায়েন করছে বেজিং। দৈত্যাকৃতির অ্যান্টি-এয়ারক্রাফট গান, ক্লোজ ইন উইপন সিস্টেম বসছে কৃত্রিম দ্বীপটিতে।

বেজিংয়ের এই পদক্ষেপে কার্যত দিশাহারা আমেরিকা। পেন্টাগনের অভিযোগ, যুদ্ধের জন্য পা বাড়িয়েই রেখেছে চীন। শুধু প্রতিরক্ষার জন্য যে বিতর্কিত কৃত্রিম দ্বীপে ভারী অস্ত্র মোতায়েন করা হচ্ছে না সেটা স্পষ্টতই বুঝেছে পেন্টাগন। আর তাই ঘুম ছুটেছে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তরের। মাটি থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুঁড়ে শত্রুর বিমানকে ধরাশায়ী করতে পারে এমন পেল্লাই কামান বসেছে দক্ষিণ চীন সাগরের উপর সাতটি দ্বীপেই।

‘এশিয়া মেরিটাইম ট্রান্সপারেন্সি ইনিশিয়েটিভ’ বা এএমটিআইয়ের ডিরেক্টর গ্রেগ পোলিং কোনো রাখঢাক না রেখেই সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, ‘এটা সামরিকীকরণ। চীন কিছুতেই দাবি করতে পারে না এত অস্ত্রশস্ত্র তারা কেবল প্রতিরক্ষার জন্য বরাদ্দ করেছে। যে যে অস্ত্র ওই দ্বীপগুলিতে মোতায়েন করা হচ্ছে, দেখেই বোঝা যাচ্ছে চীন ভবিষ্যতে যুদ্ধের প্রস্তুতি নিচ্ছে।’

কৃত্রিম মার্কিন উপগ্রহ থেকে তোলা ছবিতে দেখা গিয়েছে, যুদ্ধবিমান, রণতরী থেকে ছোঁড়া ক্রুজ মিসাইলকেও রুখে দিতে পারবে চীনা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা। পাল্টা হামলা চালাতেও তৈরি সাংঘাতিক সব অস্ত্র। চীন যে চুপিচুপি ওই দ্বীপগুলিতে এসব অস্ত্র মজুত করেছে, এতদিন জানতেই পারেনি আমেরিকা। মাসের পর মাস গুপ্তচর লাগিয়ে শেষে অস্ত্র মোতায়েনের খবর জানতে পেরে ঘুম ছুটে গিয়েছে পেন্টাগনের।

এএমটিআই জানাচ্ছে, বেজিং বরাবরই দাবি করে এসেছে দক্ষিণ চীন সাগরে তারা প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা গড়ে তুলছে। কিন্তু এখন দেখা যাচ্ছে ওই দ্বীপগুলিতে সর্বক্ষণ মোতায়েন রয়েছে ফাইটার জেট, অ্যান্টি-এয়ারক্রাফট মিসাইল, সারফেস টু এয়ার মিসাইল। প্রতিরক্ষা ব্যবস্থার গড়ে তোলার ছলে আস্ত একটি ‘সারফেস টু এয়ার মিসাইল’ প্ল্যাটফর্ম বা ‘এসএএম’ গড়ে ফেলেছে বেজিং। ভবিষ্যতে যে কোনো মুহূর্তে চীন হামলা চালাতে পারে বলেও চূড়ান্ত আশঙ্কায় পেন্টাগন।

 

সূত্র: রয়টার্স

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X