মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:৪২
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, December 11, 2016 6:27 pm
A- A A+ Print

‘দিয়াজের শরীরে আঘাতে চিহ্ন পাওয়া গেছে’

23

ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মরদেহে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। রোববার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে দিয়াজের মরদেহের পুনঃময়নাতদন্ত শেষে এ কথা জানান তিনি। দুপুর ২টা ৩৬ মিনিটে দিয়াজের মরদেহের পুনঃময়নাতদন্ত শুরু হয়। চলে ৩টা পর্যন্ত। ভিসেরা পরীক্ষার জন্য দিয়াজের মরদেহ থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে। সোহেল মাহমুদ বলেন, তার (দিয়াজ) শরীরে আঘাতের চিহ্ন আছে। তবে এটি কীসের আঘাত তা তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না। হত্যা না আত্মহত্যা, তা নিশ্চিত হতে আমরা আলামত হিসেবে দাঁত, গলার টিস্যু সংগ্রহ করেছি। পাশাপাশি বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে কি না তা জানতে তার শরীর থেকে অন্য আলামতও সংগ্রহ করা হয়েছে। এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে বলে জানান সোহেল মাহমুদ। এতে তার সঙ্গে ফরেনসিক বিভাগের টিকিৎসক ডা. প্রদীপ ও  ডা. কবির সোহেল আছেন। সোহেল মাহমুদ আরো বলেন, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন তৈরির আগে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে চাই। পাশাপাশি এ ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গেও আলাপ করতে হবে। তাহলে বিষয়টি আমাদের কাছে আরো স্পষ্ট হবে। মরদেহ দাফনের ১৮ দিন পর পুনঃময়নাতদন্তে সকল আলমত সঠিকভাবে পাওয়া গেছে বলে জানান এই চিকিৎসক। তিনি বলেন, শীতের মৌসুম হওয়ায় লাশের কোনো আলামত নষ্ট হয়নি। গরমকাল হলে হয়তো আলামত ঠিকভাবে পাওয়া যেত কি না তা নিয়ে সন্দেহ আছে। ২০ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেট এলাকায় ভাড়া বাসা থেকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার দুই দিন পর ২৩ নভেম্বর ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে আত্মহত্যা উল্লেখ করা হলে দিয়াজের পরিবার তা প্রত্যাখ্যান করে। ২৪ নভেম্বর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সহকারী প্রক্টর ও ছাত্রলীগের সভাপতিসহ ১০ জনকে আসামি করে আদালতে হত্যা মামলা করে তার পরিবার। গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিবলু কুমার দে পুনঃময়নাতদন্তের জন্য দিয়াজের মরদেহ তোলার আদেশ দেন। একই সঙ্গে তিন সদস্যের বিশেষজ্ঞ টিম গঠন করে ময়নাতদন্ত করতে ঢামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধানকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এ আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শনিবার সকাল ৮টার দিকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের কবরস্থান থেকে তার মরদেহ তোলা হয়। প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর ওই দিন সকাল ৯টার দিকে মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয় সিআইডি। দুপুর সোয়া ২টার দিকে দিয়াজের মরদেহ ঢামেক হাসপাতালের মর্গে নিয়ে আসা হয়।

Comments

Comments!

 ‘দিয়াজের শরীরে আঘাতে চিহ্ন পাওয়া গেছে’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘দিয়াজের শরীরে আঘাতে চিহ্ন পাওয়া গেছে’

Sunday, December 11, 2016 6:27 pm
23

ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর মরদেহে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ।

রোববার দুপুরে ঢামেক হাসপাতালে দিয়াজের মরদেহের পুনঃময়নাতদন্ত শেষে এ কথা জানান তিনি।

দুপুর ২টা ৩৬ মিনিটে দিয়াজের মরদেহের পুনঃময়নাতদন্ত শুরু হয়। চলে ৩টা পর্যন্ত। ভিসেরা পরীক্ষার জন্য দিয়াজের মরদেহ থেকে আলামত সংগ্রহ করা হয়েছে।

সোহেল মাহমুদ বলেন, তার (দিয়াজ) শরীরে আঘাতের চিহ্ন আছে। তবে এটি কীসের আঘাত তা তদন্তের স্বার্থে বলা যাচ্ছে না। হত্যা না আত্মহত্যা, তা নিশ্চিত হতে আমরা আলামত হিসেবে দাঁত, গলার টিস্যু সংগ্রহ করেছি। পাশাপাশি বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হয়েছে কি না তা জানতে তার শরীর থেকে অন্য আলামতও সংগ্রহ করা হয়েছে।

এ ঘটনায় তিন সদস্যের একটি মেডিক্যাল টিম গঠন করা হয়েছে বলে জানান সোহেল মাহমুদ। এতে তার সঙ্গে ফরেনসিক বিভাগের টিকিৎসক ডা. প্রদীপ ও  ডা. কবির সোহেল আছেন।

সোহেল মাহমুদ আরো বলেন, ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন তৈরির আগে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করতে চাই। পাশাপাশি এ ঘটনার তদন্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গেও আলাপ করতে হবে। তাহলে বিষয়টি আমাদের কাছে আরো স্পষ্ট হবে।

মরদেহ দাফনের ১৮ দিন পর পুনঃময়নাতদন্তে সকল আলমত সঠিকভাবে পাওয়া গেছে বলে জানান এই চিকিৎসক। তিনি বলেন, শীতের মৌসুম হওয়ায় লাশের কোনো আলামত নষ্ট হয়নি। গরমকাল হলে হয়তো আলামত ঠিকভাবে পাওয়া যেত কি না তা নিয়ে সন্দেহ আছে।

২০ নভেম্বর রাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ নম্বর গেট এলাকায় ভাড়া বাসা থেকে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ নেতা দিয়াজ ইরফান চৌধুরীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার করা হয়। ঘটনার দুই দিন পর ২৩ নভেম্বর ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে আত্মহত্যা উল্লেখ করা হলে দিয়াজের পরিবার তা প্রত্যাখ্যান করে। ২৪ নভেম্বর চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (চবি) সহকারী প্রক্টর ও ছাত্রলীগের সভাপতিসহ ১০ জনকে আসামি করে আদালতে হত্যা মামলা করে তার পরিবার।

গত মঙ্গলবার চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট শিবলু কুমার দে পুনঃময়নাতদন্তের জন্য দিয়াজের মরদেহ তোলার আদেশ দেন। একই সঙ্গে তিন সদস্যের বিশেষজ্ঞ টিম গঠন করে ময়নাতদন্ত করতে ঢামেক হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধানকে নির্দেশ দেওয়া হয়।

এ আদেশের পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল শনিবার সকাল ৮টার দিকে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের কবরস্থান থেকে তার মরদেহ তোলা হয়।

প্রাথমিক সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরির পর ওই দিন সকাল ৯টার দিকে মরদেহ নিয়ে ঢাকার উদ্দেশে রওনা দেয় সিআইডি। দুপুর সোয়া ২টার দিকে দিয়াজের মরদেহ ঢামেক হাসপাতালের মর্গে নিয়ে আসা হয়।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X