মঙ্গলবার, ২০শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৮ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সকাল ৯:৫৮
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, January 22, 2017 12:53 pm
A- A A+ Print

নতুন সংবিধান নিয়ে গণভোট, তুর্কি জনগণ বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবে না: এরদোগান

2

  আঙ্কারা: আসন্ন গণভোটে তুর্কি সাংবিধানিক পরিবর্তনের সমর্থনে প্রচারণা চালাতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেব এরদোগান। শনিবার ইস্তানবুলের পেনডিক জেলায় নতুন মেট্রো লাইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আহ্বান জানান। এরদোগান বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, এই গণভোটের প্রচারাভিযানে আপনারা আপনাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন।’ তিনি আরো বলেন, ‘আমি আশা করি, জাতি একটি বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবে না।’ প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে পার্লামেন্টে বিতর্কের পর শনিবার সকালে তুর্কি আইনপ্রণেতারা দেশটির নতুন এই সংবিধান অনুমোদন করে। এ অনুমোদনের ফলে দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান বাড়তি নির্বাহী ক্ষমতার মালিক হবেন। সংবিধানের ১৮ অুনচ্ছেদ পাস হওয়ার ফলে তুরস্কে এখন প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির সরকারব্যবস্থা চালু হবে। তবে তার আগে গণভোট দিতে হবে যা আগামী এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হবে আশা করা হচ্ছে। প্রস্তাবিত সংবিধানের এই পরিবর্তনে গণভোটে ৫১ শতাংশ ভোটের প্রয়োজন হবে। গণভোটে এতে জনগণের সমর্থণ পেলে তুরস্কের বর্তমান সংসদীয় ব্যবস্থার পরিবর্তে রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার ব্যবস্থা চালু হবে। নতুন আইনের আওতায় প্রেসিডেন্ট এরদোগান বার্ষিক বাজেট নিয়ন্ত্রণ করবেন এবং মন্ত্রিপরিষদের সদস্য বরখাস্ত, প্রেসিডেন্ট ও সংসদ নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিজ দলের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে পারবেন। প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির সরকার চালু হলে এরদোগান টানা দু দফায় পাঁচ বছর করে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। এর অর্থ হচ্ছে- এরদোগান ২০২৯ সাল পর্যন্ত তুরস্কের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকবেন। এরদোগান ও তার সমর্থকদের যুক্তি, দুর্বল শাসন ব্যবস্থা এড়াতে তুরস্কের জন্য প্রয়োজন একটি শক্তিশালী প্রেসিডেন্সি পদ্ধতির সরকার। যে ব্যবস্থায় দেশের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ সফলভাবে মোকাবেলা করার অনুমতি দেয়। তবে, প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টির নেতা কামাল কিলিদারুগলো নতুন এই সংবিধানের বিরোধিতা করে এর বিপক্ষে অবস্থান নেয়ার জন্য তুর্কিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। সূত্র: আনাদুলো নিউজ এজেন্সি  

Comments

Comments!

 নতুন সংবিধান নিয়ে গণভোট, তুর্কি জনগণ বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবে না: এরদোগানAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নতুন সংবিধান নিয়ে গণভোট, তুর্কি জনগণ বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবে না: এরদোগান

Sunday, January 22, 2017 12:53 pm
2

 

আঙ্কারা: আসন্ন গণভোটে তুর্কি সাংবিধানিক পরিবর্তনের সমর্থনে প্রচারণা চালাতে সমর্থকদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেব এরদোগান।

শনিবার ইস্তানবুলের পেনডিক জেলায় নতুন মেট্রো লাইনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি আহ্বান জানান।

এরদোগান বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি, এই গণভোটের প্রচারাভিযানে আপনারা আপনাদের সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘আমি আশা করি, জাতি একটি বাস্তবসম্মত সিদ্ধান্ত নিতে ভুল করবে না।’

প্রায় তিন সপ্তাহ ধরে পার্লামেন্টে বিতর্কের পর শনিবার সকালে তুর্কি আইনপ্রণেতারা দেশটির নতুন এই সংবিধান অনুমোদন করে। এ অনুমোদনের ফলে দেশটির প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়্যেপ এরদোগান বাড়তি নির্বাহী ক্ষমতার মালিক হবেন।

সংবিধানের ১৮ অুনচ্ছেদ পাস হওয়ার ফলে তুরস্কে এখন প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির সরকারব্যবস্থা চালু হবে। তবে তার আগে গণভোট দিতে হবে যা আগামী এপ্রিলে অনুষ্ঠিত হবে আশা করা হচ্ছে।

প্রস্তাবিত সংবিধানের এই পরিবর্তনে গণভোটে ৫১ শতাংশ ভোটের প্রয়োজন হবে। গণভোটে এতে জনগণের সমর্থণ পেলে তুরস্কের বর্তমান সংসদীয় ব্যবস্থার পরিবর্তে রাষ্ট্রপতি শাসিত সরকার ব্যবস্থা চালু হবে।

নতুন আইনের আওতায় প্রেসিডেন্ট এরদোগান বার্ষিক বাজেট নিয়ন্ত্রণ করবেন এবং মন্ত্রিপরিষদের সদস্য বরখাস্ত, প্রেসিডেন্ট ও সংসদ নির্বাচন নিয়ন্ত্রণ করার পাশাপাশি প্রেসিডেন্ট হিসেবে নিজ দলের সঙ্গে সম্পর্ক রাখতে পারবেন।

প্রেসিডেন্ট পদ্ধতির সরকার চালু হলে এরদোগান টানা দু দফায় পাঁচ বছর করে প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকতে পারবেন। এর অর্থ হচ্ছে- এরদোগান ২০২৯ সাল পর্যন্ত তুরস্কের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ক্ষমতায় থাকবেন।

এরদোগান ও তার সমর্থকদের যুক্তি, দুর্বল শাসন ব্যবস্থা এড়াতে তুরস্কের জন্য প্রয়োজন একটি শক্তিশালী প্রেসিডেন্সি পদ্ধতির সরকার। যে ব্যবস্থায় দেশের বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ সফলভাবে মোকাবেলা করার অনুমতি দেয়।

তবে, প্রধান বিরোধী দল রিপাবলিকান পিপলস পার্টির নেতা কামাল কিলিদারুগলো নতুন এই সংবিধানের বিরোধিতা করে এর বিপক্ষে অবস্থান নেয়ার জন্য তুর্কিদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

সূত্র: আনাদুলো নিউজ এজেন্সি

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X