সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১২:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, November 14, 2016 8:13 pm
A- A A+ Print

নরসিংদীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

narshindhi1479127980

নরসিংদীর রায়পুরার নিলক্ষায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিবদমান দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন। এতে পাঁচ পুলিশসহ আহত হয়েছেন ২০ জন। এ সময় আগুন দেওয়া হয়েছে প্রায় ২০/২৫টি বাড়ি-ঘরে। সোমবার বেলা ১১টা থেকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। সন্ধ্যা সোয়া ৫টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সংঘর্ষ চলছে। নিহতরা হলেন আমিরাবাদ গ্রামের আলতাফ মিয়ার ছেলে মানিক মিয়া (৪৫), একই গ্রামের আব্দুস ছালামের ছেলে শাহজাহান (৪৫), সোনাকান্দী গ্রামের অারব আলীর ছেলে খোকন মিয়া (৩২) ও একই গ্রামের মঙ্গল মিয়ার ছেলে মামুন মিয়া (২২)। আহতদের মধ্যে পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হলেন- রায়পুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার, উপপরিদর্শক আসাদ মিয়া, মোজাম্মেল হক, জিয়াউর রহমান ও কনস্টেবল জিল্লুর রহমান। আহত গ্রামবাসীরা গ্রেপ্তার এড়াতে অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছে। তাই তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।   Narshindhi   স্থানীয়রা জানান, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নিলক্ষা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান আব্দুল হকের সমর্থকরা সকাল থেকে টেঁটা, বল্লম ও ককটেলসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ২০ থেকে ২৫টি বাড়িতে আগুন দেওয়া হয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এ সময় ককটেল, টেঁটা ও বল্লমের আঘাতে চারজন নিহত ও পাঁচ পুলিশসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন আহত  হন। তবে তিনজন নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, পুলিশের গুলিতে তাদের মৃত্যু হয়েছে। শাহজাহান টেঁটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন। এদিকে রায়পুরা থানা পুলিশসহ নরসিংদী থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন। নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি বর্ষণের কথা স্বীকার করলেও তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের তথ্য জানাতে পারেননি।

Comments

Comments!

 নরসিংদীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নরসিংদীতে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪

Monday, November 14, 2016 8:13 pm
narshindhi1479127980

নরসিংদীর রায়পুরার নিলক্ষায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিবদমান দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে চারজন নিহত হয়েছেন।

এতে পাঁচ পুলিশসহ আহত হয়েছেন ২০ জন। এ সময় আগুন দেওয়া হয়েছে প্রায় ২০/২৫টি বাড়ি-ঘরে।

সোমবার বেলা ১১টা থেকে এ সংঘর্ষ শুরু হয়। সন্ধ্যা সোয়া ৫টায় শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সংঘর্ষ চলছে।

নিহতরা হলেন আমিরাবাদ গ্রামের আলতাফ মিয়ার ছেলে মানিক মিয়া (৪৫), একই গ্রামের আব্দুস ছালামের ছেলে শাহজাহান (৪৫), সোনাকান্দী গ্রামের অারব আলীর ছেলে খোকন মিয়া (৩২) ও একই গ্রামের মঙ্গল মিয়ার ছেলে মামুন মিয়া (২২)।

আহতদের মধ্যে পাঁচ পুলিশ কর্মকর্তাকে নরসিংদী জেলা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এরা হলেন- রায়পুরা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজহারুল ইসলাম সরকার, উপপরিদর্শক আসাদ মিয়া, মোজাম্মেল হক, জিয়াউর রহমান ও কনস্টেবল জিল্লুর রহমান। আহত গ্রামবাসীরা গ্রেপ্তার এড়াতে অজ্ঞাত স্থানে চিকিৎসা নিচ্ছে। তাই তাদের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

 

Narshindhi

 

স্থানীয়রা জানান, আধিপত্য বিস্তার নিয়ে নিলক্ষা ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান তাজুল ইসলাম ও প্রাক্তন চেয়ারম্যান আব্দুল হকের সমর্থকরা সকাল থেকে টেঁটা, বল্লম ও ককটেলসহ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এ সময় ২০ থেকে ২৫টি বাড়িতে আগুন দেওয়া হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ফাঁকা গুলি ছোড়ে। এ সময় ককটেল, টেঁটা ও বল্লমের আঘাতে চারজন নিহত ও পাঁচ পুলিশসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ২০ জন আহত  হন।

তবে তিনজন নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হচ্ছে, পুলিশের গুলিতে তাদের মৃত্যু হয়েছে। শাহজাহান টেঁটাবিদ্ধ হয়ে নিহত হয়েছেন।

এদিকে রায়পুরা থানা পুলিশসহ নরসিংদী থেকে অতিরিক্ত পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করছেন।

নরসিংদীর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হাসিবুল আলম পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গুলি বর্ষণের কথা স্বীকার করলেও তাৎক্ষণিকভাবে নিহতের তথ্য জানাতে পারেননি।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X