বৃহস্পতিবার, ২২শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১০ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ১১:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, December 6, 2016 9:22 am
A- A A+ Print

নাসিক নির্বাচন, আইভী-সাখাওয়াত শিবিরে অনৈক্যের চিত্র

163318_1

নারায়ণগঞ্জ: আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বড় দুইদলের প্রর্থীদের মনোনয়নের পর থেকেই  বিভেদ চাঙ্গা হয়েছে। যদিও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই হেভিওয়েট প্রার্থীরা বার বার দাবি করছেন ভেতর কোনো বিভেদ নেই। নেতারা ঐক্যবদ্ধ। এখন হয়তো আসেননি বা নামেননি, তবে প্রতীক বরাদ্দের দিন দেখা যাবে। শেষ পর্যন্ত অনৈক্যের চিত্রই ফুটে উঠেছে প্রতীক বরাদ্দের সময়। মনোনয়নপত্র জমার দিন বিএনপিতে ঐক্য দেখা গেলেও গতকাল সোমবার দেখা গেছে উল্টো চিত্র। শীর্ষ নেতাদের একটি অংশ গড় হাজির। এ নিয়ে বিএনপি শিবিরে নানা আলোচনা। অপরদিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমার দিনের আর গতকাল সোমবারের চিত্র একই । প্রতীক নেয়ার সময় দলের বিভাজন পরিষ্কারভাবে ফুটে উঠেছে মাঠ পর্যায়েরর নেতাকর্মীদের মাঝে। এতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই প্রার্থীকে দলের অনৈক্যের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে হয়েছে।
সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রতীক বুঝে নিতে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেডে যান ২০ দলীয় জোট প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সসদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, ৪ আসনের সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, নগর বিএনপি’র সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল প্রমুখ। দেখা যায়নি মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসা নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপি’র সভাপতি তৈমূর আলম খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামান, বন্দর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল গংদের। এছাড়াও আসেননি জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. শাহ আলম । এই নেতাদের অনুপস্থিতিতে বিএনপি ভেতরের চিত্র বেরিয়ে এসেছে। গত কয়েকদিন উপরে উপরে বিএনপি প্রার্থী নেতাদের মধ্যে ঐক্যের কথা বলে এলেও গতকাল সোমবারের চিত্র হতাশ করেছে মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীদের। তাছাড়া সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ক্লাবের সামনে এসে পৌঁছান সাখাওয়াত হোসেন খান। তখন সঙ্গে আসেন জেলা বিএনপি’র প্রস্তাবিত কমিটির সহ-সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস। যিনি ওয়ান- ইলেভেনের পর নারায়ণগঞ্জে বিএনপিকে সক্রিয় রাখতে কাজ করেছিলেন। ওই সময়ে সাখাওয়াত হোসেন ও তার লোকজন মিলে জান্নাতুল ফেরদৌসকে শরীরে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। একপর্যায়ে ফেরদৌস ক্ষুব্ধ হয়ে ওই এলাকা ত্যাগ করেন। এদিকে সোমবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রতীক বুঝে নিয়ে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে যান ১৪ দলীয় প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, ব্যবসায়ী আবদুর রাশেদ রাশু, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, জেলা যুবলীগের সভাপতি আবদুল কাদির এবং প্রবীণ আইনজীবী আসাদুজ্জামান। মনোয়নপত্র জমার দিন এবং সোমবারও মহানগর আওয়ামী লীগের কোন নেতাকে তার সঙ্গে দেখা যায়নি। যদিও আইভী বলে আসছিলেন প্রতীক বরাদ্দের দিন ঐক্যের চিত্র দেখা যাবে না। কিন্তু বাস্তবে অনৈক্যই দেখেছে নেতাকর্মীরা। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে শামীম ওসমানের সঙ্গে তার দূরুত্ব বাড়ছে বরং কমছে না। দুইজনের দ্বন্দ্বে বেকাদায় দলের নেতাকর্মীরা। যদিও রোববার বিকালে শহরের চাষাড়ায় রাইফেল ক্লাবে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে শামীম ওসমান তার কষ্টের কথা বলেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, শামীম ওসমান বলেছেন, আইভী আমার বাবার নামে সমালোচনা করেছেন যা দুঃখজনক। আমি এতে অনেক কষ্ট  পেয়েছি মর্মাহত হয়েছি। এ ধরনের কথা আমাকে পীড়া দিয়েছে। মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার দিন আমি আইভীকে তিনটি এসএমএস দিয়েছি। সে কোনো উত্তর দেয়নি। আমার তিনটি থানা এলাকার  নেতাদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। তাতেও আমি আপনাদের সবাইকে বলেছি পরিস্থিতি সামলে দিতে। কারণ নৌকা প্রতীক  কোনো ব্যক্তির না। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক, এটা বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, স্বাধীনতার প্রতীক ও গণতন্ত্রের প্রতীক। তাই এ প্রতীকের পক্ষে কাজ করতে হবে- এটাই আমার নির্দেশনা। কিন্তু শামীম ওসমানের এই নির্দেশনার প্রতিফলন গতকাল সোমবার দেখা যায়নি। তার অনুসারী কোনো নেতাকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণার সময় গতকাল সোমবার আইভীর সঙ্গে দেখা যায়নি। এমনকি মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেও আইভীর পক্ষে তার কোনো তৎপরতা নেই। যদিও দলের নেতাকর্মীদের ধারণা ছিল, মেয়র পদে মনোনয়ন না দিয়ে আনোয়ার হোসেনকে দল বঞ্চিত করলেও জেলা পরিষদের মনোনয়ন দিয়ে তাকে মূল্যায়ন করেছে। তাই আইভীর প্রতি তার ক্ষোভ, দুঃখ থাকার কথা নয়। কিন্তু তিনিও নিশ্চুপ। এদিকে গতকাল সোমবার আইভীর পক্ষে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ১০/১২ জন নেতা নারায়ণগঞ্জে এসে মহানগরের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় বৈঠক করেন। বৈঠকে অল্প সময়ের জন্য আইভীও উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ্ বলেন, ১৪ দলের প্রার্থী হিসেবে ডা. সেলিনা হায়াত আইভী নৌকা প্রতীক নিয়ে এ নিার্বচনে অংশ নিচ্ছেন। এ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে সবাইকে ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।
 

Comments

Comments!

 নাসিক নির্বাচন, আইভী-সাখাওয়াত শিবিরে অনৈক্যের চিত্রAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নাসিক নির্বাচন, আইভী-সাখাওয়াত শিবিরে অনৈক্যের চিত্র

Tuesday, December 6, 2016 9:22 am
163318_1

নারায়ণগঞ্জ: আসন্ন নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বড় দুইদলের প্রর্থীদের মনোনয়নের পর থেকেই  বিভেদ চাঙ্গা হয়েছে। যদিও আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই হেভিওয়েট প্রার্থীরা বার বার দাবি করছেন ভেতর কোনো বিভেদ নেই। নেতারা ঐক্যবদ্ধ। এখন হয়তো আসেননি বা নামেননি, তবে প্রতীক বরাদ্দের দিন দেখা যাবে।

শেষ পর্যন্ত অনৈক্যের চিত্রই ফুটে উঠেছে প্রতীক বরাদ্দের সময়। মনোনয়নপত্র জমার দিন বিএনপিতে ঐক্য দেখা গেলেও গতকাল সোমবার দেখা গেছে উল্টো চিত্র। শীর্ষ নেতাদের একটি অংশ গড় হাজির। এ নিয়ে বিএনপি শিবিরে নানা আলোচনা।

অপরদিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর মনোনয়নপত্র জমার দিনের আর গতকাল সোমবারের চিত্র একই । প্রতীক নেয়ার সময় দলের বিভাজন পরিষ্কারভাবে ফুটে উঠেছে মাঠ পর্যায়েরর নেতাকর্মীদের মাঝে। এতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপি’র দুই প্রার্থীকে দলের অনৈক্যের মধ্যেই আনুষ্ঠানিক নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করতে হয়েছে।

সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রতীক বুঝে নিতে নারায়ণগঞ্জ ক্লাব লিমিটেডে যান ২০ দলীয় জোট প্রার্থী সাখাওয়াত হোসেন খান। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাবেক সসদস্য অ্যাডভোকেট আবুল কালাম, ৪ আসনের সাবেক সাংসদ মুহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন, নগর বিএনপি’র সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাধারণ সম্পাদক এটিএম কামাল প্রমুখ।

দেখা যায়নি মনোনয়নপত্র জমা দিতে আসা নারায়ণগঞ্জ-৩ আসনের সাবেক এমপি আতাউর রহমান খান আঙ্গুর, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও জেলা বিএনপি’র সভাপতি তৈমূর আলম খন্দকার, সাধারণ সম্পাদক কাজী মনিরুজ্জামান, বন্দর উপজেলা বিএনপি’র সভাপতি আতাউর রহমান মুকুল গংদের।

এছাড়াও আসেননি জেলা বিএনপির সিনিয়র সহ-সভাপতি মো. শাহ আলম । এই নেতাদের অনুপস্থিতিতে বিএনপি ভেতরের চিত্র বেরিয়ে এসেছে। গত কয়েকদিন উপরে উপরে বিএনপি প্রার্থী নেতাদের মধ্যে ঐক্যের কথা বলে এলেও গতকাল সোমবারের চিত্র হতাশ করেছে মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীদের।

তাছাড়া সকাল সাড়ে ১১টার দিকে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ক্লাবের সামনে এসে পৌঁছান সাখাওয়াত হোসেন খান। তখন সঙ্গে আসেন জেলা বিএনপি’র প্রস্তাবিত কমিটির সহ-সভাপতি জান্নাতুল ফেরদৌস। যিনি ওয়ান- ইলেভেনের পর নারায়ণগঞ্জে বিএনপিকে সক্রিয় রাখতে কাজ করেছিলেন। ওই সময়ে সাখাওয়াত হোসেন ও তার লোকজন মিলে জান্নাতুল ফেরদৌসকে শরীরে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন ও শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন। একপর্যায়ে ফেরদৌস ক্ষুব্ধ হয়ে ওই এলাকা ত্যাগ করেন।

এদিকে সোমবার বেলা পৌনে ১২টার দিকে রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছ থেকে প্রতীক বুঝে নিয়ে নারায়ণগঞ্জ ক্লাবে যান ১৪ দলীয় প্রার্থী ডা. সেলিনা হায়াত আইভী। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবদুল হাই, ব্যবসায়ী আবদুর রাশেদ রাশু, আওয়ামী লীগ নেতা জাহাঙ্গীর আলম, জেলা যুবলীগের সভাপতি আবদুল কাদির এবং প্রবীণ আইনজীবী আসাদুজ্জামান।

মনোয়নপত্র জমার দিন এবং সোমবারও মহানগর আওয়ামী লীগের কোন নেতাকে তার সঙ্গে দেখা যায়নি। যদিও আইভী বলে আসছিলেন প্রতীক বরাদ্দের দিন ঐক্যের চিত্র দেখা যাবে না। কিন্তু বাস্তবে অনৈক্যই দেখেছে নেতাকর্মীরা। দলীয় মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকে শামীম ওসমানের সঙ্গে তার দূরুত্ব বাড়ছে বরং কমছে না।

দুইজনের দ্বন্দ্বে বেকাদায় দলের নেতাকর্মীরা। যদিও রোববার বিকালে শহরের চাষাড়ায় রাইফেল ক্লাবে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার নেতাকর্মীরা তার সঙ্গে দেখা করতে গেলে শামীম ওসমান তার কষ্টের কথা বলেছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক আওয়ামী লীগ নেতা জানান, শামীম ওসমান বলেছেন, আইভী আমার বাবার নামে সমালোচনা করেছেন যা দুঃখজনক। আমি এতে অনেক কষ্ট  পেয়েছি মর্মাহত হয়েছি। এ ধরনের কথা আমাকে পীড়া দিয়েছে।

মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার দিন আমি আইভীকে তিনটি এসএমএস দিয়েছি। সে কোনো উত্তর দেয়নি। আমার তিনটি থানা এলাকার  নেতাদের অবমূল্যায়ন করা হয়েছে। তাতেও আমি আপনাদের সবাইকে বলেছি পরিস্থিতি সামলে দিতে। কারণ নৌকা প্রতীক  কোনো ব্যক্তির না। এটা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতীক, এটা বঙ্গবন্ধুর প্রতীক, স্বাধীনতার প্রতীক ও গণতন্ত্রের প্রতীক।

তাই এ প্রতীকের পক্ষে কাজ করতে হবে- এটাই আমার নির্দেশনা। কিন্তু শামীম ওসমানের এই নির্দেশনার প্রতিফলন গতকাল সোমবার দেখা যায়নি। তার অনুসারী কোনো নেতাকে আনুষ্ঠানিক প্রচারণার সময় গতকাল সোমবার আইভীর সঙ্গে দেখা যায়নি। এমনকি মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন সুস্থ হয়ে হাসপাতাল থেকে বাসায় ফিরলেও আইভীর পক্ষে তার কোনো তৎপরতা নেই।

যদিও দলের নেতাকর্মীদের ধারণা ছিল, মেয়র পদে মনোনয়ন না দিয়ে আনোয়ার হোসেনকে দল বঞ্চিত করলেও জেলা পরিষদের মনোনয়ন দিয়ে তাকে মূল্যায়ন করেছে। তাই আইভীর প্রতি তার ক্ষোভ, দুঃখ থাকার কথা নয়। কিন্তু তিনিও নিশ্চুপ।

এদিকে গতকাল সোমবার আইভীর পক্ষে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ১০/১২ জন নেতা নারায়ণগঞ্জে এসে মহানগরের নেতৃবৃন্দের সঙ্গে মতবিনিময় বৈঠক করেন। বৈঠকে অল্প সময়ের জন্য আইভীও উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফর উল্লাহ্ বলেন, ১৪ দলের প্রার্থী হিসেবে ডা. সেলিনা হায়াত আইভী নৌকা প্রতীক নিয়ে এ নিার্বচনে অংশ নিচ্ছেন। এ নির্বাচন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। নৌকা প্রতীককে বিজয়ী করতে সবাইকে ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার আহ্বান জানান তিনি।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X