রবিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৯:৩১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, December 7, 2016 10:55 am
A- A A+ Print

নাসিক নির্বাচন : ‘ধানের শীষে’ ঐক্য হলেও ‘নৌকায়’ ধোঁয়াশা!

163432_1

নারায়ণগঞ্জ:নারায়ণগঞ্জে দীর্ঘদিন বহুভাগে বিভক্ত থাকা বিএনপি সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে ঐক্যবদ্ধ হলেও এখনো ধোঁয়াশা কাটেনি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে এমনটিই অভিমত উভয় দলের তৃণমূল নেতৃবৃন্দের। জানা গেছে, বহুবছর যাবত নারায়ণগঞ্জে জেলা ও নগর বিএনপির নেতাকর্মীরা শীর্ষস্থানীয় নেতাদের কারনে বহুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন। নেতায় নেতায় দ্বন্দে বিএনপিতে নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়। যেই কারনে দলীয় কোন কর্মসূচীও পৃথক ভাবে পালন করে আসছিলেন নেতৃবৃন্দরা। বিশেষ করে বিএনপির একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. তৈমূর আলম  খন্দকার,একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ এড. আবুল কালাম, একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব গিয়াসউদ্দিন আহম্মেদ, একটি অংশ নগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামালসহ প্রত্যেক থানা এলাকার শীর্ষস্থানীয় নেতাদের অর্ন্তদ্বন্দের কারনে তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা গ্রুপে গ্রুপে বিভক্ত হয়ে যান।
সর্বশেষ, চলতি বছরের জুন মাসে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের ১১ জন নেতা ঠাঁই পাওয়ার পর দলে ঐক্য ফেরাতে বেশ কয়েকবার উদ্যোগ নিয়েছিলেন, সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন আহম্মদ। কিন্তু তাতে কেউ সাড়া দেয়নি। আজকে এক নেতা আরেকজনের সম্পর্কে কটুক্তি করছে তো আগামীকাল আরেক নেতার কর্মীরা তার প্রতিবাদ জানাচ্ছে। মূলত এভাবেই চলতে থাকে বিএনপির রাজনীতি। কিন্তু নাসিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খানের সাথে জেলার শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েকজন নেতার অর্ন্তদ্বন্দ থাকলেও ‘ধানের শীষের’ স্বার্থে প্রার্থীর চেয়ে দলীয় প্রতীককে প্রাধান্য দিয়ে অতীত বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা। কে কোন ভাইয়ের কর্মী তার চেয়ে এখন সকলের কাছে মূখ্য হয়েছে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান ‘ধানের শীষের’ প্রার্থী। তাই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নির্দেশে এখন দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে একজোট হয়ে কাজ করছেন নেতাকর্মীরা। যা দেখে অভিভূত হয়ে যান তৃণমূল নেতাকর্মীরা। তারা প্রত্যাশা করেন, সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ‘ধানের শীষের’ বিজয়ের জন্য যেভাবে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন, আগামীতেও এই ঐক্যের ধারা বজায় রাখবেন শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দরা। অপরদিকে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগেও উত্তর মেরুর সাংসদ শামীম ওসমান আর দক্ষিণ মেরুর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর মধ্যে বছরের পর বছর যাত দ্বন্দ চলে আসছিল। নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে সম্প্রতি তৃণমূলের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে শামীম ওসমানের সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেনকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড মনোনয়ন না দিয়ে আইভীকে প্রদান করার পর উভয়ের মধ্যে বিরাজমান দ্বন্দ আরো প্রকট হয়ে উঠে। যে কারনে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থী আইভীকে নির্বাচিত করতে একত্রে কাজ করার লক্ষ্যে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শামীম ওসমান, আইভীসহ নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের গণভবনে তলব করে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন। এবং শামীম ওসমানসহ মহানগর আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীদের আইভীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন।এরপর থেকেই আইভীর পক্ষে নির্বাচনে কাজ করতে দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন শামীম ওসমান। এমনকি তিনি নিজেও আইভীকে এসএমএস  করেছিলেন সহযোগিতা নেয়ার জন্য। নাসিক নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে পাঠানো খুদে বার্তায় শামীম ওসমান বলেছিলেন, ‘প্রিয় আইভী, আপনার পরিকল্পনা আমাকে জানান। কখন মনোনয়নপত্র জমা দেবেন এবং এই বিষয়ে আমি কোনো সহযোগিতা করতে পারি কি-না বলবেন।’ কিন্তু আইভী এর কোনো জবাব দেননি। তারপরেও শামীম ওসমান দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ শিরোধার্য মেনে নাসিক নির্বাচনে আইভীর পক্ষে কাজ শুরু করেছিলেন। কিন্তু আইভী তার প্রয়াত বাবাকে নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে বৈঠককালে আপত্তিকর মন্তব্য করে উল্টো শামীম ওসমানকে ক্ষেপিয়ে তুলেছেন। যে কারনে শামীম ওসমান ক্ষুব্ধ হয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে বৈঠক করে আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্তের মতপ্রকাশ করেন। এরপরেই সবকিছু পাল্টে যায়। কিন্তু তারপরেও নাসিক নির্বাচনে প্রার্থী হিসেব না করে দলীয় প্রতীক ‘নৌকার’ বিজয় নিশ্চিত করতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা নারায়ণগঞ্জ এসে নির্দেশনা দিয়ে গেলেও অদ্যবধি আইভীর পক্ষে কাজ করতে প্রকাশ্য কোন দিকনির্দেশনা না পাওয়ায় ‘নৌকায়’ কাটেনি ধোঁয়াশা বলে মন্তব্য করেন শামীম ওসমানপন্থী তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা। যদিও বরাবরই আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা: সেলিনা হায়াত আইভীসহ শামীম ওসমানপন্থী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা দাবী করছেন, ব্যাক্তি নয়, নৌকার পক্ষে এখনো ঐক্যবদ্ধ আছেন তারা। আর আগামী ২২ ডিসেম্বর ‘নৌকা’র বিজয় শেখ হাসিনাকে উপহার দিবেন তারা। কিন্তু দৃশ্যমান এখনো কিছু দেখতে পায়নি জনসাধারনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা। গত ৫ ডিসেম্বর নাসিক নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পর আইভী অনুষ্ঠানিক প্রচারনা শুরু করে দিলেও তার সাথে ছিলেন না মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা। যদিও একইদিন বিকেলে শহরের ২নং রেলগেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি চন্দন শীল জানিয়েছেন, শামীম ওসমানরা মাজার জিয়ারতের লক্ষে বর্তমানে সিলেট অবস্থান করছেন। কিন্তু নৌকার প্রার্থীর পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে শামীম ওসমান দিকনির্দেশনা দিয়ে গেছেন। তারপরেও দু’একদিনের মধ্যে সিলেট থেকে ফিরে নাসিক নির্বাচন ইস্যুতে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করবেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান। কিন্তু সবকিছুর পরেও দলীয় সভানেত্রীর নির্দেশ মেনে শামীম ওসমান দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন বলে জানান, তার সমর্থকরা।
 

Comments

Comments!

 নাসিক নির্বাচন : ‘ধানের শীষে’ ঐক্য হলেও ‘নৌকায়’ ধোঁয়াশা!AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নাসিক নির্বাচন : ‘ধানের শীষে’ ঐক্য হলেও ‘নৌকায়’ ধোঁয়াশা!

Wednesday, December 7, 2016 10:55 am
163432_1

নারায়ণগঞ্জ:নারায়ণগঞ্জে দীর্ঘদিন বহুভাগে বিভক্ত থাকা বিএনপি সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করতে ঐক্যবদ্ধ হলেও এখনো ধোঁয়াশা কাটেনি ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগে এমনটিই অভিমত উভয় দলের তৃণমূল নেতৃবৃন্দের।

জানা গেছে, বহুবছর যাবত নারায়ণগঞ্জে জেলা ও নগর বিএনপির নেতাকর্মীরা শীর্ষস্থানীয় নেতাদের কারনে বহুভাগে বিভক্ত হয়ে পড়েন। নেতায় নেতায় দ্বন্দে বিএনপিতে নাজুক অবস্থার সৃষ্টি হয়। যেই কারনে দলীয় কোন কর্মসূচীও পৃথক ভাবে পালন করে আসছিলেন নেতৃবৃন্দরা।

বিশেষ করে বিএনপির একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ জেলা বিএনপির সভাপতি অ্যাড. তৈমূর আলম  খন্দকার,একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ-৫ আসনের সাংসদ এড. আবুল কালাম, একটি অংশ নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাবেক সাংসদ আলহাজ্ব গিয়াসউদ্দিন আহম্মেদ, একটি অংশ নগর বিএনপির সাধারন সম্পাদক এটিএম কামালসহ প্রত্যেক থানা এলাকার শীর্ষস্থানীয় নেতাদের অর্ন্তদ্বন্দের কারনে তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা গ্রুপে গ্রুপে বিভক্ত হয়ে যান।

সর্বশেষ, চলতি বছরের জুন মাসে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটিতে নারায়ণগঞ্জের ১১ জন নেতা ঠাঁই পাওয়ার পর দলে ঐক্য ফেরাতে বেশ কয়েকবার উদ্যোগ নিয়েছিলেন, সাবেক এমপি গিয়াস উদ্দিন আহম্মদ। কিন্তু তাতে কেউ সাড়া দেয়নি।

আজকে এক নেতা আরেকজনের সম্পর্কে কটুক্তি করছে তো আগামীকাল আরেক নেতার কর্মীরা তার প্রতিবাদ জানাচ্ছে। মূলত এভাবেই চলতে থাকে বিএনপির রাজনীতি।

কিন্তু নাসিক নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খানের সাথে জেলার শীর্ষস্থানীয় বেশ কয়েকজন নেতার অর্ন্তদ্বন্দ থাকলেও ‘ধানের শীষের’ স্বার্থে প্রার্থীর চেয়ে দলীয় প্রতীককে প্রাধান্য দিয়ে অতীত বিভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন বিএনপির নেতাকর্মীরা।

কে কোন ভাইয়ের কর্মী তার চেয়ে এখন সকলের কাছে মূখ্য হয়েছে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান ‘ধানের শীষের’ প্রার্থী। তাই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার নির্দেশে এখন দলীয় প্রার্থীকে বিজয়ী করতে একজোট হয়ে কাজ করছেন নেতাকর্মীরা।

যা দেখে অভিভূত হয়ে যান তৃণমূল নেতাকর্মীরা। তারা প্রত্যাশা করেন, সিটি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে ‘ধানের শীষের’ বিজয়ের জন্য যেভাবে ঐক্যবদ্ধ হয়েছেন, আগামীতেও এই ঐক্যের ধারা বজায় রাখবেন শীর্ষস্থানীয় নেতৃবৃন্দরা।

অপরদিকে, ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগেও উত্তর মেরুর সাংসদ শামীম ওসমান আর দক্ষিণ মেরুর নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা: সেলিনা হায়াত আইভীর মধ্যে বছরের পর বছর যাত দ্বন্দ চলে আসছিল।

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচন উপলক্ষে সম্প্রতি তৃণমূলের প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে শামীম ওসমানের সমর্থিত মেয়র প্রার্থী মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার হোসেনকে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় মনোনয়ন বোর্ড মনোনয়ন না দিয়ে আইভীকে প্রদান করার পর উভয়ের মধ্যে বিরাজমান দ্বন্দ আরো প্রকট হয়ে উঠে।

যে কারনে নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনে দলীয় মেয়র প্রার্থী আইভীকে নির্বাচিত করতে একত্রে কাজ করার লক্ষ্যে দলীয় সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শামীম ওসমান, আইভীসহ নারায়ণগঞ্জ জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দদের গণভবনে তলব করে বিভিন্ন দিক নির্দেশনা দেন।

এবং শামীম ওসমানসহ মহানগর আওয়ামী লীগের সকল নেতাকর্মীদের আইভীর পক্ষে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন।এরপর থেকেই আইভীর পক্ষে নির্বাচনে কাজ করতে দলীয় নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করার নির্দেশ দেন শামীম ওসমান।

এমনকি তিনি নিজেও আইভীকে এসএমএস  করেছিলেন সহযোগিতা নেয়ার জন্য। নাসিক নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন ডা. সেলিনা হায়াত আইভীকে পাঠানো খুদে বার্তায় শামীম ওসমান বলেছিলেন, ‘প্রিয় আইভী, আপনার পরিকল্পনা আমাকে জানান।

কখন মনোনয়নপত্র জমা দেবেন এবং এই বিষয়ে আমি কোনো সহযোগিতা করতে পারি কি-না বলবেন।’ কিন্তু আইভী এর কোনো জবাব দেননি।

তারপরেও শামীম ওসমান দলীয় সভানেত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ শিরোধার্য মেনে নাসিক নির্বাচনে আইভীর পক্ষে কাজ শুরু করেছিলেন। কিন্তু আইভী তার প্রয়াত বাবাকে নিয়ে কেন্দ্রীয় নেতাদের সাথে বৈঠককালে আপত্তিকর মন্তব্য করে উল্টো শামীম ওসমানকে ক্ষেপিয়ে তুলেছেন।

যে কারনে শামীম ওসমান ক্ষুব্ধ হয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সাথে বৈঠক করে আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগ করার সিদ্ধান্তের মতপ্রকাশ করেন। এরপরেই সবকিছু পাল্টে যায়।

কিন্তু তারপরেও নাসিক নির্বাচনে প্রার্থী হিসেব না করে দলীয় প্রতীক ‘নৌকার’ বিজয় নিশ্চিত করতে নারায়ণগঞ্জ আওয়ামী লীগের সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দরা নারায়ণগঞ্জ এসে নির্দেশনা দিয়ে গেলেও অদ্যবধি আইভীর পক্ষে কাজ করতে প্রকাশ্য কোন দিকনির্দেশনা না পাওয়ায় ‘নৌকায়’ কাটেনি ধোঁয়াশা বলে মন্তব্য করেন শামীম ওসমানপন্থী তৃণমূল নেতৃবৃন্দরা।

যদিও বরাবরই আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী ডা: সেলিনা হায়াত আইভীসহ শামীম ওসমানপন্থী জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা দাবী করছেন, ব্যাক্তি নয়, নৌকার পক্ষে এখনো ঐক্যবদ্ধ আছেন তারা। আর আগামী ২২ ডিসেম্বর ‘নৌকা’র বিজয় শেখ হাসিনাকে উপহার দিবেন তারা। কিন্তু দৃশ্যমান এখনো কিছু দেখতে পায়নি জনসাধারনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা।

গত ৫ ডিসেম্বর নাসিক নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পর আইভী অনুষ্ঠানিক প্রচারনা শুরু করে দিলেও তার সাথে ছিলেন না মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দরা।

যদিও একইদিন বিকেলে শহরের ২নং রেলগেটস্থ দলীয় কার্যালয়ে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময় সভায় মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি চন্দন শীল জানিয়েছেন, শামীম ওসমানরা মাজার জিয়ারতের লক্ষে বর্তমানে সিলেট অবস্থান করছেন।

কিন্তু নৌকার প্রার্থীর পক্ষে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করতে শামীম ওসমান দিকনির্দেশনা দিয়ে গেছেন। তারপরেও দু’একদিনের মধ্যে সিলেট থেকে ফিরে নাসিক নির্বাচন ইস্যুতে দলীয় প্রার্থীর পক্ষে নিজের অবস্থান স্পষ্ট করবেন নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সাংসদ শামীম ওসমান।

কিন্তু সবকিছুর পরেও দলীয় সভানেত্রীর নির্দেশ মেনে শামীম ওসমান দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে কাজ করবেন বলে জানান, তার সমর্থকরা।

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X