বুধবার, ২১শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, দুপুর ১:০১
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Wednesday, January 4, 2017 8:36 am
A- A A+ Print

না.গঞ্জে ইয়াবা তৈরির কারখানার সন্ধান, আটক ৩

1

নারায়ণগঞ্জ শহরের ১নং বাবুরাইল এলাকায় ইয়াবা তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। ওই কারখানায় তৈরি বেশ কিছু ইয়াবা, ইয়াবা তৈরির সরঞ্জামসহ তিন মাদক চোরাকারবারিকে আটক করা হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানানো হয়। সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল শহরের ১নং বাবুরাইল এলাকায় আমজাদ হোসেন বাদলের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় গোয়েন্দা পুলিশ ওই বাড়িতে তল্লাশি করে নিচতলার একটি রুমে ইয়াবা তৈরির  কারখানার সন্ধান পায়। ওই রুম থেকে ২৫০ পিস ইয়াবা, ইয়াবা তৈরির বিপুল পরিমাণ উপকরণ, ডিভাইস এবং মেশিনসহ তিন চোরাকারবারিকে আটক করে তারা। আটককৃতরা হলেন- ওই বাড়ির মালিক আমজাদ হোসেন, তার দুই সহযোগী সামিউল ইসলাম ও রাজেশ চৌধুরী শ্যাম। তারা সংঘবদ্ধ ইয়াবা চক্রের সদস্য বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। তাদের সঙ্গে অবৈধ মাদক ব্যবসায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ। আটককৃত সামিউল ফতুল্লা থানার তল্লা সবুজবাগ এলাকার সোনাউল্লাহর ছেলে এবং রাজেশ সিরাজগঞ্জ জেলার চর রায়পুর গ্রামের ঠাকুর চৌধুরীর ছেলে বলে গোয়েন্দা পুলিশ জানায়। সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরো জানান, আটককৃত তিন মাদক চোরাকারবারি ভারত ও মিয়ানমার থেকে ইয়াবা তৈরির প্রশিক্ষণ নিয়ে এসে এ বাড়িতে ইয়াবা তৈরির কারখানা চালু করে। তারা এখানে বসেই দীর্ঘদিন  দেশীয় প্রযুক্তির মাধ্যমে ইয়াবা তৈরি করে বড় বড় চালান সীমান্ত এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে আসছিলেন। তাদের কারখানা থেকে ইয়াবা তৈরির যে পরিমাণ উপকরণ জব্দ করা হয়েছে, তা দিয়ে কমপক্ষে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা তৈরি করা যেত।

Comments

Comments!

 না.গঞ্জে ইয়াবা তৈরির কারখানার সন্ধান, আটক ৩AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

না.গঞ্জে ইয়াবা তৈরির কারখানার সন্ধান, আটক ৩

Wednesday, January 4, 2017 8:36 am
1

নারায়ণগঞ্জ শহরের ১নং বাবুরাইল এলাকায় ইয়াবা তৈরির কারখানার সন্ধান পেয়েছে জেলা গোয়েন্দা পুলিশ। ওই কারখানায় তৈরি বেশ কিছু ইয়াবা, ইয়াবা তৈরির সরঞ্জামসহ তিন মাদক চোরাকারবারিকে আটক করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার বিকেলে জেলা পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, সকালে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল শহরের ১নং বাবুরাইল এলাকায় আমজাদ হোসেন বাদলের বাড়িতে অভিযান চালায়। এ সময় গোয়েন্দা পুলিশ ওই বাড়িতে তল্লাশি করে নিচতলার একটি রুমে ইয়াবা তৈরির  কারখানার সন্ধান পায়। ওই রুম থেকে ২৫০ পিস ইয়াবা, ইয়াবা তৈরির বিপুল পরিমাণ উপকরণ, ডিভাইস এবং মেশিনসহ তিন চোরাকারবারিকে আটক করে তারা।

আটককৃতরা হলেন- ওই বাড়ির মালিক আমজাদ হোসেন, তার দুই সহযোগী সামিউল ইসলাম ও রাজেশ চৌধুরী শ্যাম। তারা সংঘবদ্ধ ইয়াবা চক্রের সদস্য বলে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে। তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

তাদের সঙ্গে অবৈধ মাদক ব্যবসায় জড়িত অন্যদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা করছে পুলিশ। আটককৃত সামিউল ফতুল্লা থানার তল্লা সবুজবাগ এলাকার সোনাউল্লাহর ছেলে এবং রাজেশ সিরাজগঞ্জ জেলার চর রায়পুর গ্রামের ঠাকুর চৌধুরীর ছেলে বলে গোয়েন্দা পুলিশ জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরো জানান, আটককৃত তিন মাদক চোরাকারবারি ভারত ও মিয়ানমার থেকে ইয়াবা তৈরির প্রশিক্ষণ নিয়ে এসে এ বাড়িতে ইয়াবা তৈরির কারখানা চালু করে। তারা এখানে বসেই দীর্ঘদিন  দেশীয় প্রযুক্তির মাধ্যমে ইয়াবা তৈরি করে বড় বড় চালান সীমান্ত এলাকাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় সরবরাহ করে আসছিলেন। তাদের কারখানা থেকে ইয়াবা তৈরির যে পরিমাণ উপকরণ জব্দ করা হয়েছে, তা দিয়ে কমপক্ষে ৫০ হাজার পিস ইয়াবা তৈরি করা যেত।

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X