শুক্রবার, ২৩শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ১১ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, বিকাল ৪:০৭
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Monday, January 16, 2017 4:26 pm
A- A A+ Print

নিপীড়নের কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করলেই শাস্তি

New Delhi: Army Chief Gen Bipin Rawat gestures during the Army's annual press conference in New Delhi on Friday. PTI Photo by Manvender Vashist  (PTI1_13_2017_000080B)

দিল্লি: ফের আগ্রাসী ভারতের করুণ চেহারাটা সামনে এলো দেশটির সেনাপ্রধানের বক্তব্যের মধ্যদিয়ে। এবার নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার বাইরে গিয়ে অন্যত্র নিজেদের ওপর নিপীড়নের কথা প্রকাশ করলে শাস্তির মুখে পড়বেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা। সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক সেনা সদস্যের অভিযোগের ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর নিপীড়িতদের ওপর ‘খাঁড়ার ঘা’ হিসেবে এমনই কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন দেশটির সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত। রবিবার নয়াদিল্লিতে ‘সেনা দিবস’-এর অনুষ্ঠানে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন। বিপিন রাওয়াতরর স্পষ্ট বক্তব্য, ‘জওয়ানদের ক্ষোভ জানানোর জন্য নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া রয়েছে। সেই পথে নেয়া ব্যবস্থায় যদি তারা সন্তুষ্ট না হন, তবে তারা সরাসরি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। কিন্তু এই নির্দিষ্ট পদ্ধতির বাইরে গিয়ে যদি কেউ কোনো পদক্ষেপ করেন, তবে তাকে অপরাধী বলে গণ্য করা হবে। সেক্ষেত্রে তিনি শাস্তি পেতে পারেন।’ সেনাপ্রধানের যুক্তি, কয়েকজন সেনা জওয়ানের এই আচরণের ফলে সীমান্তের বিভিন্ন অংশে প্রহরারত সাহসী জওয়ানদের মনোবলে প্রভাব পড়ছে এবং পুরো বাহিনী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। সম্প্রতি সীমান্ত রক্ষীবাহিনীর জওয়ান তেজ বাহাদুর যাদবের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট, সিআরপিএফ জওয়ান জিত সিংয়ের ইউটিউব ভিডিও এবং শেষে সেনাবাহিনীর জওয়ান যজ্ঞপ্রতাপ সিংয়ের পোস্ট প্রকাশ্যে আসার পরই শুরু হয়েছে বিতর্ক। কারো অভিযোগ খারাপ মানের খাবার, কারো আবার বৈষম্যের অভিযোগ, কেউ আবার ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তার উন্নাসিক মানসিকতার বিবরণ তুলে ধরেছেন। এর ফলে বিভিন্ন মহলে সেনার ভাবমূর্তি নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এর আগেও সাংবাদিক সম্মেলন করে সেনাদের নিয়ম মেনে অভিযোগ জানানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন সেনাপ্রধান। কিন্তু তাতেও প্রবণতা না-বদলানোয় বাধ্য হয়েই রাওয়াত এই কড়া বার্তা দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে। দায়িত্ব নিয়েছেন সবে দু’সপ্তাহ। এর মাঝেই সেনার অভ্যন্তরীণ সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে রীতিমত জেরবার হয়েছেন নতুন সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত। সাধারণত দায়িত্বগ্রহণের পর প্রথমেই একজন সেনাপ্রধান তার অধীনস্থ গুরুত্বপূর্ণ সেনা অঞ্চলগুলো ঘুরে দেখেন এবং সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গে আশু কর্তব্য নিয়ে কয়েক দফা আলোচনা সেরে নেন৷ এ যাবৎকালে এটাই ভারতীয় সেনাবাহিনীর রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেখানে কিছুটা ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত। সম্প্রতি সেনা জওয়ান যজ্ঞপ্রতাপ সিং সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ভিডিও পোস্ট করে অভিযোগ করেছিলেন, সেনাবাহিনীতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অধস্তন জওয়ানদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। অধস্তনদের দিয়ে জামা কাপড় কাচানো, জুতা পালিশ করানোর মতো কাজও করান। এই অভিযোগ নিয়ে সরব হয়েছিল বিভিন্ন মহল। এ দিন সে বিষয় নিয়ে সাফাই গেয়েছেন সেনাপ্রধান। এই বিতর্কে তিনি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশে দাঁড়িয়ে বলেছেন, ‘সেনাবাহিনীতে এই ‘সহায়ক প্রথা’ নতুন নয়। সহায়করা যেমন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দেখভাল করেন, তেমনি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও তাদের সহায়কদের সমস্যার খেয়াল রাখেন। এতে আপত্তিজনক কিছু নেই।’ টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে

Comments

Comments!

 নিপীড়নের কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করলেই শাস্তিAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নিপীড়নের কথা সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রকাশ করলেই শাস্তি

Monday, January 16, 2017 4:26 pm
New Delhi: Army Chief Gen Bipin Rawat gestures during the Army's annual press conference in New Delhi on Friday. PTI Photo by Manvender Vashist  (PTI1_13_2017_000080B)

দিল্লি: ফের আগ্রাসী ভারতের করুণ চেহারাটা সামনে এলো দেশটির সেনাপ্রধানের বক্তব্যের মধ্যদিয়ে। এবার নির্দিষ্ট প্রক্রিয়ার বাইরে গিয়ে অন্যত্র নিজেদের ওপর নিপীড়নের কথা প্রকাশ করলে শাস্তির মুখে পড়বেন ভারতীয় সেনা জওয়ানরা।

সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক সেনা সদস্যের অভিযোগের ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পর নিপীড়িতদের ওপর ‘খাঁড়ার ঘা’ হিসেবে এমনই কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন দেশটির সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত।

রবিবার নয়াদিল্লিতে ‘সেনা দিবস’-এর অনুষ্ঠানে তিনি এ হুঁশিয়ারি দেন।

বিপিন রাওয়াতরর স্পষ্ট বক্তব্য, ‘জওয়ানদের ক্ষোভ জানানোর জন্য নির্দিষ্ট প্রক্রিয়া রয়েছে। সেই পথে নেয়া ব্যবস্থায় যদি তারা সন্তুষ্ট না হন, তবে তারা সরাসরি আমার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন। কিন্তু এই নির্দিষ্ট পদ্ধতির বাইরে গিয়ে যদি কেউ কোনো পদক্ষেপ করেন, তবে তাকে অপরাধী বলে গণ্য করা হবে। সেক্ষেত্রে তিনি শাস্তি পেতে পারেন।’

সেনাপ্রধানের যুক্তি, কয়েকজন সেনা জওয়ানের এই আচরণের ফলে সীমান্তের বিভিন্ন অংশে প্রহরারত সাহসী জওয়ানদের মনোবলে প্রভাব পড়ছে এবং পুরো বাহিনী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে।

সম্প্রতি সীমান্ত রক্ষীবাহিনীর জওয়ান তেজ বাহাদুর যাদবের সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট, সিআরপিএফ জওয়ান জিত সিংয়ের ইউটিউব ভিডিও এবং শেষে সেনাবাহিনীর জওয়ান যজ্ঞপ্রতাপ সিংয়ের পোস্ট প্রকাশ্যে আসার পরই শুরু হয়েছে বিতর্ক।

কারো অভিযোগ খারাপ মানের খাবার, কারো আবার বৈষম্যের অভিযোগ, কেউ আবার ঊর্ধ্বতন সেনা কর্মকর্তার উন্নাসিক মানসিকতার বিবরণ তুলে ধরেছেন। এর ফলে বিভিন্ন মহলে সেনার ভাবমূর্তি নিয়ে প্রশ্ন উঠছে।

এর আগেও সাংবাদিক সম্মেলন করে সেনাদের নিয়ম মেনে অভিযোগ জানানোর পরামর্শ দিয়েছিলেন সেনাপ্রধান। কিন্তু তাতেও প্রবণতা না-বদলানোয় বাধ্য হয়েই রাওয়াত এই কড়া বার্তা দিলেন বলে মনে করা হচ্ছে।

দায়িত্ব নিয়েছেন সবে দু’সপ্তাহ। এর মাঝেই সেনার অভ্যন্তরীণ সমস্যার সমাধান করতে গিয়ে রীতিমত জেরবার হয়েছেন নতুন সেনা প্রধান বিপিন রাওয়াত। সাধারণত দায়িত্বগ্রহণের পর প্রথমেই একজন সেনাপ্রধান তার অধীনস্থ গুরুত্বপূর্ণ সেনা অঞ্চলগুলো ঘুরে দেখেন এবং সেখানকার দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের সঙ্গে আশু কর্তব্য নিয়ে কয়েক দফা আলোচনা সেরে নেন৷ এ যাবৎকালে এটাই ভারতীয় সেনাবাহিনীর রীতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। সেখানে কিছুটা ব্যতিক্রমী দৃষ্টান্ত স্থাপন করলেন জেনারেল বিপিন রাওয়াত।

সম্প্রতি সেনা জওয়ান যজ্ঞপ্রতাপ সিং সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ভিডিও পোস্ট করে অভিযোগ করেছিলেন, সেনাবাহিনীতে ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা অধস্তন জওয়ানদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করেন। অধস্তনদের দিয়ে জামা কাপড় কাচানো, জুতা পালিশ করানোর মতো কাজও করান। এই অভিযোগ নিয়ে সরব হয়েছিল বিভিন্ন মহল। এ দিন সে বিষয় নিয়ে সাফাই গেয়েছেন সেনাপ্রধান।

এই বিতর্কে তিনি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের পাশে দাঁড়িয়ে বলেছেন, ‘সেনাবাহিনীতে এই ‘সহায়ক প্রথা’ নতুন নয়। সহায়করা যেমন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের দেখভাল করেন, তেমনি ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও তাদের সহায়কদের সমস্যার খেয়াল রাখেন। এতে আপত্তিজনক কিছু নেই।’

টাইমস অব ইন্ডিয়া অবলম্বনে

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X