বুধবার, ১৮ই অক্টোবর, ২০১৭ ইং, ৩রা কার্তিক, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, রাত ৮:৩৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Tuesday, October 10, 2017 8:41 pm
A- A A+ Print

নিরাপত্তায় পৃথক রেভিনিউ ফোর্স চায় এনবিআর

NBR20171010181103

বিভিন্ন মহল থেকে প্রাণনাশের হুমকি ও অনাকাংখিত ঘটনা মোকাবেলায় পৃথক রেভিনিউ ফোর্স গঠন করার প্রস্তাব দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)। মঙ্গলবার এনবিআরের নিরাপত্তা বিষয়ক অংশীদারিত্বমূলক সংলাপে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এ প্রস্তাব দেন। এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সংলাপে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। বিভিন্ন বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ও এনবিআর সদস্যরা এতে উপস্থিত ছিলেন। অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘এনবিআরে যে কোন বাস্তবসম্মত প্রস্তাব শেখ হাসিনার সরকার মেনে নেবে। এনবিআর প্রস্তাব যদি দেশ ও জনগণের কল্যাণ বয়ে আনে তা হলে মানতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।’ তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশের অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে একটা গতি তৈরি হয়েছে। এই গতি ধরে রাখতে হলে অর্থের প্রয়োজন। সরকার প্রয়োজনীয় অর্থের ব্যবস্থা এনবিআরের মাধ্যমেই করবে। এনবিআরই অর্থের যোগান দিবে। এনবিআরের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি অর্থবছরে নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হয়নি। এখানে বাজেটের ২০ হাজার কোটি টাকা ঘাটতি হওয়ার কথা আছে। কিন্তু আনন্দের কথা হচ্ছে, এনবিআর নতুন ভ্যাট আইন ধরে যে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে তার চেয়েও বেশি রাজস্ব আদায় করেছে। এনবিআর চেয়ারম্যানের যোগ্য নেতৃত্বে সামনের ৩ প্রান্তিকেও রাজস্ব আদায়ের এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করি।’ মান্নান বলেন, ‘এনবিআরের বর্তমান নেতৃত্বের উপর সরকারের আস্থা আছে। তাদের উপর আমাদের সকলের সমর্থন আছে। এ কৃতিত্ব এনবিআরের। এনবিআরের রাজস্ব আদায় কার্যক্রমে আমাদের সকল সংস্থার আইনি সহায়তা চলমান আছে। এ সহায়তা ও সমর্থন অব্যাহত থাকবে। যে কোন অপশক্তি ও সন্ত্রাসীকে মোকাবেলা করতে হবে। এজন্য প্রয়োজনে এনবিআরের আলাদা বাহিনী গঠনের প্রস্তাব সরকার বিবেচনা করবে।’ তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে কম হয়রানি করে কীভাবে বেশি কর আদায় করা যায় তা বর্তমান এনবিআর প্রমাণ করতে পেরেছে। আমি বলবো, ১০০ জন অপরাধী বেরিয়ে যাক। কোন সমস্যা নেই। কিন্তু একজন নিরাপরাধ লোকও যেন ভূক্তভোগী না হয়। এটাই এনবিআরের মূল প্রতিপাদ্য হওয়া উচিত।’ এর আগে সংলাপে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করে ড. মইনুল খান বলেন, ‘এনবিআরের কাস্টমস, ভ্যাট ও আয়কর বিভাগের কর্মকর্তারা রাষ্ট্রের প্রয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ রাজস্ব সংগ্রহ ও জন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক পণ্যের আমদানি ঠেকাতে গিয়ে প্রতিনিয়িত ঝুঁকির কাজ করছেন। রাজস্ব কর্মকর্তাদেরকে দায়িত্ব পালনের খাতিরে বিভিন্ন সময় হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘অবৈধ কারবারীরা শক্তিশালী। তারা হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করে। তাদের পক্ষে যে কোন অশুভ কাজ করা সম্ভব। ইতোমধ্যে এনবিআর সদস্যের উপর গুলিবর্ষণ ও আমাদের কর্মকর্তাদের উপর দেশের বিভিন্ন জায়গায় হামলার ঘটনা ঘটছে। প্রতিনিয়ত একটি মহল প্রাণনাশের হুমকি ধমকি দিচ্ছে রাজস্ব কর্মকর্তাদের। সরকারের আয়ের প্রধান উৎস এনবিআর। রাষ্ট্রের রাজস্ব আদায় নির্বিঘ্ন রাখতে এনবিআর কর্মকর্তাদের সুরক্ষা জরুরী।’ তিনি এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা দিয়ে বলেন, ‘অশুভ শক্তি ঠেকাতে সরকারের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে এনবিআরের পার্টনারশীপ জোরদার করতে হবে। এছাড়া রাজস্ব কর্মকর্তাদের দাপ্তরিকভাবে অস্ত্রবহন ও সরবরাহের অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। অস্ত্র পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা যেতে পারে। অন্যান্য সকল বাহিনীর সমন্বয়ে আলাদা ফোর্স গঠন করা যেতে পারে। রাজস্ব আহরণ কার্যক্রম নির্বিঘ্ন রাখতে গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে স্থায়ীভাবে রেভিনিউ ফোর্স গঠন বা আপতত ডেপুটেশনে রেভিনিউ বাহিনী গঠন করার প্রস্তাব করছি।’

Comments

Comments!

 নিরাপত্তায় পৃথক রেভিনিউ ফোর্স চায় এনবিআরAmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

নিরাপত্তায় পৃথক রেভিনিউ ফোর্স চায় এনবিআর

Tuesday, October 10, 2017 8:41 pm
NBR20171010181103

বিভিন্ন মহল থেকে প্রাণনাশের হুমকি ও অনাকাংখিত ঘটনা মোকাবেলায় পৃথক রেভিনিউ ফোর্স গঠন করার প্রস্তাব দিয়েছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

মঙ্গলবার এনবিআরের নিরাপত্তা বিষয়ক অংশীদারিত্বমূলক সংলাপে শুল্ক গোয়েন্দা ও তদন্ত অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মইনুল খান এ প্রস্তাব দেন।

এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমানের সভাপতিত্বে সংলাপে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের সচিব ফরিদ উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী। বিভিন্ন বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ও এনবিআর সদস্যরা এতে উপস্থিত ছিলেন।

অর্থ প্রতিমন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘এনবিআরে যে কোন বাস্তবসম্মত প্রস্তাব শেখ হাসিনার সরকার মেনে নেবে। এনবিআর প্রস্তাব যদি দেশ ও জনগণের কল্যাণ বয়ে আনে তা হলে মানতে আমাদের কোন সমস্যা নেই।’

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে দেশের অর্থনীতিসহ সকল ক্ষেত্রে একটা গতি তৈরি হয়েছে। এই গতি ধরে রাখতে হলে অর্থের প্রয়োজন। সরকার প্রয়োজনীয় অর্থের ব্যবস্থা এনবিআরের মাধ্যমেই করবে। এনবিআরই অর্থের যোগান দিবে।

এনবিআরের কার্যক্রমে সন্তোষ প্রকাশ করে অর্থ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘চলতি অর্থবছরে নতুন ভ্যাট আইন বাস্তবায়ন হয়নি। এখানে বাজেটের ২০ হাজার কোটি টাকা ঘাটতি হওয়ার কথা আছে। কিন্তু আনন্দের কথা হচ্ছে, এনবিআর নতুন ভ্যাট আইন ধরে যে রাজস্ব লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করেছে অর্থবছরের প্রথম প্রান্তিকে তার চেয়েও বেশি রাজস্ব আদায় করেছে। এনবিআর চেয়ারম্যানের যোগ্য নেতৃত্বে সামনের ৩ প্রান্তিকেও রাজস্ব আদায়ের এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে আশা করি।’

মান্নান বলেন, ‘এনবিআরের বর্তমান নেতৃত্বের উপর সরকারের আস্থা আছে। তাদের উপর আমাদের সকলের সমর্থন আছে। এ কৃতিত্ব এনবিআরের। এনবিআরের রাজস্ব আদায় কার্যক্রমে আমাদের সকল সংস্থার আইনি সহায়তা চলমান আছে। এ সহায়তা ও সমর্থন অব্যাহত থাকবে। যে কোন অপশক্তি ও সন্ত্রাসীকে মোকাবেলা করতে হবে। এজন্য প্রয়োজনে এনবিআরের আলাদা বাহিনী গঠনের প্রস্তাব সরকার বিবেচনা করবে।’

তিনি বলেন, ‘সবচেয়ে কম হয়রানি করে কীভাবে বেশি কর আদায় করা যায় তা বর্তমান এনবিআর প্রমাণ করতে পেরেছে। আমি বলবো, ১০০ জন অপরাধী বেরিয়ে যাক। কোন সমস্যা নেই। কিন্তু একজন নিরাপরাধ লোকও যেন ভূক্তভোগী না হয়। এটাই এনবিআরের মূল প্রতিপাদ্য হওয়া উচিত।’

এর আগে সংলাপে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করে ড. মইনুল খান বলেন, ‘এনবিআরের কাস্টমস, ভ্যাট ও আয়কর বিভাগের কর্মকর্তারা রাষ্ট্রের প্রয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ রাজস্ব সংগ্রহ ও জন স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকারক পণ্যের আমদানি ঠেকাতে গিয়ে প্রতিনিয়িত ঝুঁকির কাজ করছেন। রাজস্ব কর্মকর্তাদেরকে দায়িত্ব পালনের খাতিরে বিভিন্ন সময় হুমকির মুখে পড়তে হচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধ কারবারীরা শক্তিশালী। তারা হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করে। তাদের পক্ষে যে কোন অশুভ কাজ করা সম্ভব। ইতোমধ্যে এনবিআর সদস্যের উপর গুলিবর্ষণ ও আমাদের কর্মকর্তাদের উপর দেশের বিভিন্ন জায়গায় হামলার ঘটনা ঘটছে। প্রতিনিয়ত একটি মহল প্রাণনাশের হুমকি ধমকি দিচ্ছে রাজস্ব কর্মকর্তাদের। সরকারের আয়ের প্রধান উৎস এনবিআর। রাষ্ট্রের রাজস্ব আদায় নির্বিঘ্ন রাখতে এনবিআর কর্মকর্তাদের সুরক্ষা জরুরী।’

তিনি এ বিষয়ে সুনির্দিষ্ট প্রস্তাবনা দিয়ে বলেন, ‘অশুভ শক্তি ঠেকাতে সরকারের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোর মধ্যে এনবিআরের পার্টনারশীপ জোরদার করতে হবে। এছাড়া রাজস্ব কর্মকর্তাদের দাপ্তরিকভাবে অস্ত্রবহন ও সরবরাহের অনুমতি দেওয়া যেতে পারে। অস্ত্র পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় ট্রেনিংয়ের ব্যবস্থা করা যেতে পারে। অন্যান্য সকল বাহিনীর সমন্বয়ে আলাদা ফোর্স গঠন করা যেতে পারে। রাজস্ব আহরণ কার্যক্রম নির্বিঘ্ন রাখতে গঠনতন্ত্র পরিবর্তন করে স্থায়ীভাবে রেভিনিউ ফোর্স গঠন বা আপতত ডেপুটেশনে রেভিনিউ বাহিনী গঠন করার প্রস্তাব করছি।’

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X