সোমবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ইং, ৭ই ফাল্গুন, ১৪২৪ বঙ্গাব্দ, সন্ধ্যা ৭:৪৫
শিরোনাম
  • ঘৃণাকে বিজয়ী হতে দেয়া যাবে না, ট্রাম্পকে ইঙ্গিত করে জর্জ ক্লুনি
  • আমার একটাই চিন্তা দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তন করা: প্রধানমন্ত্রী
  • ‘কেন্দ্রীয় সরকারের আগ্রাসী নীতির কারণে কাশ্মীরকে হারাতে হবে’
  • সাড়ে চারমাস পর মুখোমুখি, খাদিজাকে উদ্দেশ্য করে যা বলল বদরুল
  • খালেদার ‘সাজা’ বিরোধী নেতাকর্মীদের মনোবল ভাঙ্গার কৌশল!
  • বিএনপির কর্মসূচি ‘যথাসময়ে’ জানানো হবে: রিজভী
  • দলের জন্য বোলিং করতেও রাজি মুশফিক
  • শিশু জিহাদের মৃত্যু: চার জনের ১০ বছর করে কারাদণ্ড
  • অবশেষে বাড়ি অবরুদ্ধ করে রাখা সেই দেয়াল ভেঙ্গে ফেলা হচ্ছে
  • সাক্ষ্য দিলেন খাদিজা, চাইলেন বদরুলের সর্বোচ্চ শাস্তি
  • বদরুলের বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিতে আদালতে খাদিজা
  • আজ বগুড়ায় যেসব প্রকল্প উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী
  • রোহিঙ্গা স্থানান্তরের সরকারি পরিকল্পনার সঙ্গে দ্বিমত মানবাধিকার কমিশনের
  • মহেশখালীতে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের সঙ্গে পুলিশের ‘বন্দুকযুদ্ধ’
  • হোয়াইট হাউসে কাজ করার দীর্ঘ অভিজ্ঞতার কথা জানালেন এই বাংলাদেশি সাংবাদিক
Sunday, November 27, 2016 8:45 am
A- A A+ Print

‘নোট বাতিলের আগে ২৩ স্থানে জমি কিনেছে বিজেপি’

10

ঢাকা: নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের কিছুদিন আগে দলীয় কার্যালয়ের জন্য ২৩টি স্থানে জমি কিনে রেখেছিল ভারতের ক্ষমতাসীন দল জনতা পার্টি (বিজেপি)। তথ্য প্রমাণসহ এ অভিযোগ করেছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী ও জনতা দলের (জেডিইউ) নেতা নীতিশ কুমার। শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে নীতিশ কুমার অভিযোগ করে বলেন, সরকারের নোট বাতিলের বিষয়টি আগে থেকে জেনে এর পুরো সদ্ব্যবহার করেছে দলটি। আর এ কারণেই নোট বাতিলের আগেই দলীয় সিদ্ধান্তে বিহার রাজ্যে অনেক জমি কিনে রেখেছিল বিজেপি। নোট বাতিলের এক মাস আগে ওই রাজ্যের ২৩টি স্থানে দলীয় কার্যালয়ের জন্য বিজেপি এই জমি কিনেছিল এমন তথ্যপ্রমাণ হাজির করেছেন তিনি। এর মাধ্যমে বিজেপি নিজেদের কালো টাকা সাদা করেছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি।
তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয়েছে, জমি কেনা হয়েছে চেকের মাধ্যমে। এখানে কোনো কালো টাকা ব্যবহার করা হয়নি। কালো ও জাল রুপি বন্ধ করতেই চলতি মাসের ৮ নভেম্বর হঠাৎ করেই ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিলের ঘোষণা দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পূর্ব কোনো ঘোষণা ছাড়াই নোট বাতিলের পর নানামুখী সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে। বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার বলেন, ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিলের আগে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ের জন্য ২৩টি স্থানে জমি কেনা হয়। সম্মিলিত জনতা দলের মুখপাত্র নিরাজ কুমার বলেন, নোট বাতিল হওয়ার বিষয়টি আগে থেকেই জানত ক্ষমতাসীন বিজেপি। এ কারণেই অর্থের সদ্ব্যবহার করতেই তারা আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে অনেক জমি কিনেছে। জনতা দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, বিজেপির জমি কেনার সময় নির্ধারণের দিকে নজর দিলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায়। চলতি বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বরের মধ্যে ২৩টি স্থানে কার্যালয়ের জন্য জমি কিনেছে বিজেপি। অথচ নোট বাতিলের ঘোষণা আসে ৮ নভেম্বর। তবে বিজেপির বিহারের প্রধান মঙ্গল পাণ্ডে বলেন, ‘বিভিন্ন স্থানে দলীয় কার্যালয় গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তার নির্দেশনার পরই প্রতিটি এলাকায় দলীয় কার্যালয় নির্মাণের জন্য জমি কেনা শুরু হয়। পুরো ভারতেই একই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল।’ সূত্র: এনডিটিভি
 

Comments

Comments!

 ‘নোট বাতিলের আগে ২৩ স্থানে জমি কিনেছে বিজেপি’AmarbangladeshonlineAmarbangladeshonline | Amarbangladeshonline

‘নোট বাতিলের আগে ২৩ স্থানে জমি কিনেছে বিজেপি’

Sunday, November 27, 2016 8:45 am
10

ঢাকা: নোট বাতিলের সিদ্ধান্তের কিছুদিন আগে দলীয় কার্যালয়ের জন্য ২৩টি স্থানে জমি কিনে রেখেছিল ভারতের ক্ষমতাসীন দল জনতা পার্টি (বিজেপি)। তথ্য প্রমাণসহ এ অভিযোগ করেছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী ও জনতা দলের (জেডিইউ) নেতা নীতিশ কুমার।

শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে নীতিশ কুমার অভিযোগ করে বলেন, সরকারের নোট বাতিলের বিষয়টি আগে থেকে জেনে এর পুরো সদ্ব্যবহার করেছে দলটি। আর এ কারণেই নোট বাতিলের আগেই দলীয় সিদ্ধান্তে বিহার রাজ্যে অনেক জমি কিনে রেখেছিল বিজেপি।

নোট বাতিলের এক মাস আগে ওই রাজ্যের ২৩টি স্থানে দলীয় কার্যালয়ের জন্য বিজেপি এই জমি কিনেছিল এমন তথ্যপ্রমাণ হাজির করেছেন তিনি। এর মাধ্যমে বিজেপি নিজেদের কালো টাকা সাদা করেছিল বলে অভিযোগ করেন তিনি।

তবে বিজেপির পক্ষ থেকে এই অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয়েছে, জমি কেনা হয়েছে চেকের মাধ্যমে। এখানে কোনো কালো টাকা ব্যবহার করা হয়নি।

কালো ও জাল রুপি বন্ধ করতেই চলতি মাসের ৮ নভেম্বর হঠাৎ করেই ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিলের ঘোষণা দেন দেশটির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। পূর্ব কোনো ঘোষণা ছাড়াই নোট বাতিলের পর নানামুখী সমস্যায় পড়তে হচ্ছে সাধারণ মানুষকে।

বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতিশ কুমার বলেন, ৫০০ ও ১০০০ রুপির নোট বাতিলের আগে বিজেপির দলীয় কার্যালয়ের জন্য ২৩টি স্থানে জমি কেনা হয়।

সম্মিলিত জনতা দলের মুখপাত্র নিরাজ কুমার বলেন, নোট বাতিল হওয়ার বিষয়টি আগে থেকেই জানত ক্ষমতাসীন বিজেপি। এ কারণেই অর্থের সদ্ব্যবহার করতেই তারা আগস্ট ও সেপ্টেম্বর মাসে অনেক জমি কিনেছে।

জনতা দলের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়, বিজেপির জমি কেনার সময় নির্ধারণের দিকে নজর দিলেই বিষয়টি পরিষ্কার হয়ে যায়। চলতি বছরের আগস্ট ও সেপ্টেম্বরের মধ্যে ২৩টি স্থানে কার্যালয়ের জন্য জমি কিনেছে বিজেপি। অথচ নোট বাতিলের ঘোষণা আসে ৮ নভেম্বর।

তবে বিজেপির বিহারের প্রধান মঙ্গল পাণ্ডে বলেন, ‘বিভিন্ন স্থানে দলীয় কার্যালয় গড়ে তোলার নির্দেশ দিয়েছিলেন বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ। তার নির্দেশনার পরই প্রতিটি এলাকায় দলীয় কার্যালয় নির্মাণের জন্য জমি কেনা শুরু হয়। পুরো ভারতেই একই নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল।’

সূত্র: এনডিটিভি

 

Comments

comments

সম্পাদক : মোহাম্মদ আবদুল বাছির
প্রকাশক: মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম
ফোন : ‎০১৭১৩৪০৯০৯০
৩৪৫/১, দিলু রোড, নিউ ইস্কাটন, ঢাকা-১০০০
X
 
নিয়মিত খবর পড়তে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক দিয়ে যুক্ত থাকুন
X